ফতুল্লা থানার ভোলাইল এলাকায় এন আর গ্রুপের শ্রমিকদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়। ছবি: প্রিয়.কম

ফতুল্লায় আবারও শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষ, আহত অর্ধ শতাধিক

উৎপাদন মজুরি বৃদ্ধির দাবিতে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় আবারও একটি শিল্প প্রতিষ্ঠানের শ্রমিকদের বিক্ষোভ চলাকালে শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষ হয়েছে।

ইমামুল হাসান স্বপন
নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৯:০১
আপডেট: ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৯:০২


ফতুল্লা থানার ভোলাইল এলাকায় এন আর গ্রুপের শ্রমিকদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়। ছবি: প্রিয়.কম

(প্রিয়.কম) উৎপাদন মজুরি বৃদ্ধির দাবিতে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় আবারও একটি শিল্প প্রতিষ্ঠানের শ্রমিকদের বিক্ষোভ চলাকালে শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষ হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ সদস্যসহ অর্ধ শতাধিক শ্রমিক আহত হয়েছেন।

৬ ডিসেম্বর, বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে সদর উপজেলার ফতুল্লা থানার ভোলাইল এলাকায় এন আর গ্রুপের শ্রমিকদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়।

শ্রমিকদের ভাষ্য, উৎপাদন মজুরি বৃদ্ধির দাবিতে এন আর গ্রুপের শ্রমিকরা সকাল ১১টার দিকে কর্মবিরতি দিয়ে নারায়ণগঞ্জ-মুন্সিগঞ্জ সড়কে অবস্থান নেন। ওই সময় শ্রমিকরা রাস্তায় গাছের গুঁড়ি ফেলে আগুন ধরিয়ে অবরোধ সৃষ্টি করে বিক্ষোভ শুরু করেন। খবর পেয়ে ফতুল্লা থানার পুলিশ ও শিল্প পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে শ্রমিকদের রাস্তা থেকে সরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করলে শ্রমিকরা ইট-পাটকেল নিক্ষেপ শুরু করে।

একপর্যায়ে শ্রমিক-পুলিশের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষ ও ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া হয়। ওই সময় ২০ পুলিশ সদস্যসহ অন্তত অর্ধ শতাধিক শ্রমিক আহত হন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ কয়েক রাউন্ড টিয়ারসেল ও গুলি ছোড়ে। সংঘর্ষের কারণে বেলা ১১টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত এক ঘণ্টা নারায়ণগঞ্জ-মুন্সীগঞ্জ সড়কে যান চলাচল বন্ধ থাকে। পরে স্থানীয় সংসদ সদস্য (এমপি) শামীম ওসমান কারখানা মালিকদের সঙ্গে কথা বলে শ্রমিকদের দাবি পূরণের আশ্বাস দিলে শ্রমিকরা শান্ত হয়। দুপুর ১টার দিকে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে সড়কে যান চলাচল শুরু হয়।

শিল্প পুলিশ জানায়, শ্রমিকরা সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করলে পুলিশ তাদের সরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করে। ওই সময় শ্রমিকরা পুলিশের ওপর হামলা করলে ২০ পুলিশ সদস্য আহত হন। পরে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। 

এর আগে গত ৩ ডিসেম্বর, সোমবার একই দাবিতে ফতুল্লার বিসিক শিল্প নগরীতে অবস্থিত ফকির গ্রুপের শ্রমিকদের বিক্ষোভের সময় শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষে দুই পুলিশ কর্মকর্তা ও বেশ কয়েকজন পুলিশ সদস্যসহ প্রায় অর্ধশত সাধারণ শ্রমিক আহত হন। পরে কারখানার মালিক, বিসিক কর্তৃপক্ষ ও শ্রম অধিদফতরের কর্মকর্তারা বৈঠক করে শ্রমিকদের মজুরি বৃদ্ধির ব্যাপারে আশ্বাস দিলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।

প্রিয় সংবাদ/নোমান/শান্ত

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন
স্পন্সরড কনটেন্ট
শ্রেষ্ঠ পুলিশ সুপার হারুন অর রশীদ
শ্রেষ্ঠ পুলিশ সুপার হারুন অর রশীদ
https://www.prothomalo.com/ - ৯ ঘণ্টা আগে
আফরোজা আব্বাসের গণসংযোগে হামলা, সংঘর্ষ
আফরোজা আব্বাসের গণসংযোগে হামলা, সংঘর্ষ
https://www.prothomalo.com/ - ১ দিন, ৩ ঘণ্টা আগে
জাপানের রেস্তোরাঁয় বিস্ফোরণে আহত ৪২
জাপানের রেস্তোরাঁয় বিস্ফোরণে আহত ৪২
নয়া দিগন্ত - ১ দিন, ১৪ ঘণ্টা আগে
বাড়িতে পুলিশ গেছে!
বাড়িতে পুলিশ গেছে!
নয়া দিগন্ত - ১ দিন, ২১ ঘণ্টা আগে
জাপানে রেস্তোরাঁয় বিস্ফোরণ, আহত ৪২
জাপানে রেস্তোরাঁয় বিস্ফোরণ, আহত ৪২
https://www.prothomalo.com/ - ২ দিন, ২ ঘণ্টা আগে
‘দাস আইনে’র প্রতিবাদে হাঙ্গেরিতে বিক্ষোভ, সংঘর্ষ
‘দাস আইনে’র প্রতিবাদে হাঙ্গেরিতে বিক্ষোভ, সংঘর্ষ
বাংলা ট্রিবিউন - ২ দিন, ৫ ঘণ্টা আগে

loading ...