আওয়ামী লীগর সংসদ সদস্য শেখ হেলাল উদ্দীন। ছবি: সংগৃহীত

নির্বাচনে না জিতলে কেউ টিকে থাকবে না: শেখ হেলাল

শেখ হেলাল উদ্দীন বলেন, ‘দেশ আজ দুটি ভাগে বিভক্ত। এক ভাগে রয়েছে শেখ হাসিনা আর আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তি। অন্যপক্ষে রয়েছে বিএনপির নেতৃত্বে স্বাধীনতাবিরোধী শক্তি।’

জানিবুল হক হিরা
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ২২:১৫ আপডেট: ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ২২:১৭
প্রকাশিত: ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ২২:১৫ আপডেট: ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ২২:১৭


আওয়ামী লীগর সংসদ সদস্য শেখ হেলাল উদ্দীন। ছবি: সংগৃহীত

(ইউএনবি) একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কঠিন নির্বাচন দাবি করে আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য শেখ হেলাল উদ্দীন বলেছেন, ‘এই নির্বাচনে জয়ী হলে আমরা টিকে থাকব, না হলে আমরা কেউ থাকব না।’

৬ ডিসেম্বর, বৃহস্পতিবার বিকেলে যশোর পৌর কমিউনিটি সেন্টারে জেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন। 

শেখ হেলাল উদ্দীন বলেন, ‘দেশ আজ দুটি ভাগে বিভক্ত। এক ভাগে রয়েছে শেখ হাসিনা আর আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তি। অন্যপক্ষে রয়েছে বিএনপির নেতৃত্বে স্বাধীনতাবিরোধী শক্তি। যারা বাংলাদেশের অস্তিত্বকে স্বীকার করে না।’

তিনি বলেন, ‘যশোরবাসীর জন্য আমি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার একটা বার্তা নিয়ে এসেছি। তা হলো, ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে সবকিছু ভুলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে নৌকা প্রতীককে জেতাতে হবে।’

জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলনের সভাপতিত্বে সভায় সম্মানিত অতিথি হিসেবে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য পীযূষকান্তি ভট্টাচার্য, বিশেষ অতিথি হিসেবে দলের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সম্পাদক সংসদ সদস্য আব্দুর রহমান, কার্যকরি সদস্য এসএম কামাল, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদার বক্তৃতা করেন।
 
বর্ধিত সভায় যশোরের ছয়টি আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য ও দলীয় মনোনয়ন পাওয়া প্রার্থী কাজী নাবিল আহমেদ, শেখ আফিল উদ্দিন, স্বপন ভট্টাচার্য্য, মনিরুল ইসলাম, মেজর জেনারেল(অব.) ডা. নাসির উদ্দিনসহ বিভিন্ন উপজেলার নেতারা উপস্থিত ছিলেন। 

সভায় শেখ হেলাল আরও বলেন, ‘প্রাচীন ও বড় দল হিসেবে আওয়ামী লীগ থেকে অনেকেই মনোনয়ন চাইতে পারেন। এটা খারাপ কিছু নয়। কিন্তু সবাইকে মনোনয়ন দেওয়া সম্ভব নয়। স্বাভাবিকভাবেই অনেকেই মনোনয়ন পাননি। এটাকে যদি কেউ খারাপভাবে নেন, তাহলে সেটা ভালো রাজনীতি হবে না। যিনিই মনোনয়ন পান- আমরা সবাই ঐক্যবদ্ধ থাকবো নৌকার পক্ষে। আমরা এক থাকলে, ঘর ঠিক থাকলে, দল ঠিক থাকলে ইনশাআল্লাহ বাংলাদেশে আওয়ামী লীগকে মোকাবিলা করার শক্তি কারো নেই।’

তিনি বলেন, ‘বড় দলে গ্রুপিং থাকবেই। তাই বলে দলের প্রয়োজনের সময় আপনারা কেউ ভুল সিদ্ধান্ত নেবেন না। নেত্রী আমাদের শেষ আস্থার জায়গা। উনি যে নির্দেশ দেবেন, আমরা সেটা বাস্তবায়ন করব। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলে আপনারা ভালো থাকবেন। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় না থাকলে দেশ ভালো থাকবে না। তাই নৌকাকে বিজয়ী করে আপনারা আওয়ামী লীগকে আবার ক্ষমতায় নিয়ে আসবেন। ইনশাআল্লাহ আগামীতে বাংলাদেশে কেউ আর বিএনপির নাম নেবে না।’

জেলার বিভিন্ন স্থান থেকে আসা দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশে শেখ হেলাল বলেন, ‘কে মনোনয়ন পেল, সে আপনার লোক না কার লোক, এসব দেখতে যাবেন না। নেত্রী শেখ হাসিনা মনোনয়ন দিয়েছেন। শেখ হাসিনাকে যদি আবার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দেখতে চান, তাহলে নৌকায় ভোট দিয়ে আওয়ামী লীগকে বিজয়ী করতে হবে। সবাইকে মনে রাখতে হবে, আপনি নৌকায় ভোট দিচ্ছেন মানেই আপনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ভোট দিচ্ছেন।’

প্রিয় সংবাদ/হিরা/শান্ত 

পাঠকের মন্তব্য(১)

মন্তব্য করতে করুন


নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

tomra eto unnoyon korla eto desher manusher valo korla taile tomader eto voy keno? Jara Churi Korese, Lutpat korese tarao to ekhono ei 12 bosor poero to eto voy pai na. Tahole tomra eto voy pao ken?

আরো পড়ুন

loading ...