খুনের ঘটনায় তিন জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ছবি: সংগৃহীত

স্বামী বদলে রাজি না হওয়ায় স্ত্রীকে খুন!

বিশালের নিজ স্ত্রীকে ভালো লাগত না, ভালো লাগত স্ত্রীর ছোট বোনকে। অন্যদিকে বিশালের ভায়েরা ভাইয়ের পছন্দ ছিল স্ত্রীর বড় বোনকে।

আজাদ চৌধুরী
জ্যেষ্ঠ সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ০৭ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৯:৪৬
আপডেট: ০৭ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৯:৪৬


খুনের ঘটনায় তিন জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) স্বামী বদলে রাজি না হওয়া নিজ স্ত্রীকে খুন করলেন বিশাল নামের এক ব্যক্তি। এ ঘটনায় তাঁকে সহযোগিতা করেন তার ভায়েরা ভাই এবং অন্য আরেকজন। ঘটনার সঙ্গে জড়িত তিনজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ভারতের উত্তরপ্রদেশে এ ঘটনা ঘটে।

আনন্দবাজার পত্রিকার প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, স্বামী বিশালের নিজের স্ত্রীকে ভালো লাগত না, মনে ধরেছিল স্ত্রীর বোনকে। অন্যদিকে বিশালের ভায়েরা ভাই যোগেন্দ্র মনে মনে বড় শালিকাকে (স্ত্রীর বড় বোনকে) কামনা করতেন। পরে দুই ভায়েরা ভাই মিলে পরিকল্পনা করেছিলেন স্ত্রী-বদলের।

বিশালের পরিকল্পনায় রাজি ছিলেন তিনজন। কিন্তু বাদ সাধেন কেবল বিশালের স্ত্রী লক্ষ্মী। উল্টো বোনের স্বামীকে অপমান করেন। চড়ও মারেন। সেই অপমান মানতে পারেননি দুই ভায়েরা। তখনই মনে মনে বদলা নেওয়ার পরিকল্পনা করে ফেলেন তারা। সেই মতো ২৩ বছর বয়সী স্ত্রীকে খুন করলেন বিশাল। খুনের বিষয়ে তাকে সাহায্য করেন ভায়েরা ভাই।

ঘটনার পর পুলিশ অভিযুক্ত বিশাল কুমার, তার ভায়েরা ভাই যোগেন্দ্রকে গ্রেফতার করেছে। খুনে সাহায্য করার জন্য সোনু নামে এক যুবককেও গ্রেফতার করা হয়েছে।

পুলিশের জেরার মুখে খুনের কথা স্বীকার করেছেন বিশাল। তিনি জানিয়েছেন, স্ত্রী লক্ষ্মীকে তার পছন্দ ছিল না; বরং তার ভালো লাগত যোগেন্দ্রর স্ত্রীকে। অন্যদিকে যোগেন্দ্রর পছন্দ ছিল লক্ষ্মীকে। সে জন্যই স্ত্রী বদলের পরিকল্পনা করেছিলেন তারা। কিন্তু এই প্রস্তাব শোনার পর তা মানতে চাননি লক্ষ্মী। উল্টো তিনি যোগেন্দ্রকে অপমান করেন। এর পরই লক্ষ্মীকে খুন করার পরিকল্পনা করেছিলেন তারা।

রায়পুর সদরের পুলিশ কর্মকর্তা রাজেন্দ্র সিংহ জানান, খুনের ঘটনাটি ঘটে গত ৩০ নভেম্বর। ওই দিন হায়জায়পুর গ্রামে বাপের বাড়ি যাওয়ার কথা ছিল লক্ষ্মীর। সেদিন রাত ৯টা নাগাদ ফোন করে স্ত্রীকে তাদের আজাদ কলোনির বাড়ি থেকে বের হতে বলেন বিশাল। শ্বশুরবাড়ি থেকে ১০০ মিটার দূরে এক জায়গায় লক্ষ্মীকে খুন করেন বিশাল এবং যোগেন্দ্র। এই কাজে সাহায্য করেন সোনু। পরে লক্ষ্মীর মৃতদেহ ফেলে পালিয়ে যান তিনজনই।

রাজেন্দ্র সিংহ আরও জানান, লক্ষ্মীর নিখোঁজের বিষয়ে তার পরিবার বিশালের কাছে জানতে চায়। কিন্তু বিশালের কাছ থেকে এ বিষয়ে কোনো সদুত্তর না পেয়ে তারা থানায় অভিযোগ করেছিলেন। পরে গত বুধবার লক্ষ্মীর মৃতদেহ প্রথম নজরে আসে লক্ষ্মীর এক অবিবাহিত বোনের। তিনি বিষয়টি পুলিশে জানান। অভিযোগ জানানো হয় বিশালের নামেও। বুধবার রাতেই গ্রেফতার করা হয় বিশালকে। জেরায় সব দোষ স্বীকার করেন বিশাল।

প্রিয় সংবাদ

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন
স্পন্সরড কনটেন্ট
প্রেম, অন্তঃসত্ত্বা অতঃপর খুন
প্রেম, অন্তঃসত্ত্বা অতঃপর খুন
সময় টিভি - ৫ দিন, ১৬ ঘণ্টা আগে
ভালুকায় মাকে গলা কেটে খুন ছেলে আটক
ভালুকায় মাকে গলা কেটে খুন ছেলে আটক
https://samakal.com/ - ৫ দিন, ১৬ ঘণ্টা আগে

loading ...