ইউটিলিটি বিল পরিশোধ করতে আইপে সিস্টেম লিমিটেড এবং এটুআইয়ের সাথে একটি প্রাথমিক চুক্তি হয়েছে। ছবি: আইপে

আইপের সাথে চুক্তি স্বাক্ষরিত হলো এটুআইয়ের

ইউটিলিটি বিল পরিশোধ করতে আইপে সিস্টেম লিমিটেড এবং এটুআইয়ের সাথে একটি প্রাথমিক চুক্তি হয়েছে। ১৯ নভেম্বর, ২০১৮ শেরেবাংলা নগরের আগারগাঁও আইসিটি বিভাগে এই চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।

প্রিয় ডেস্ক
ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশিত: ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮, ১০:৫০ আপডেট: ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮, ১০:৫০
প্রকাশিত: ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮, ১০:৫০ আপডেট: ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮, ১০:৫০


ইউটিলিটি বিল পরিশোধ করতে আইপে সিস্টেম লিমিটেড এবং এটুআইয়ের সাথে একটি প্রাথমিক চুক্তি হয়েছে। ছবি: আইপে

(প্রিয়.কম) ইউটিলিটি বিল পরিশোধ করতে আইপে সিস্টেম লিমিটেড এবং এটুআইয়ের সাথে একটি প্রাথমিক চুক্তি হয়েছে। ১৯ নভেম্বর, ২০১৮ শেরেবাংলা নগরের আগারগাঁও আইসিটি বিভাগে এই চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। এই চুক্তির ফলে বিল প্রদানকারীরা আইপে অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করে তাদের ইউটিলিটি বিল পরিশোধ করতে পারবে। পেমেন্ট সুইচ ইতোমধ্যে সব সরকারি ইউটিলিটি বিলিং সিস্টেমের সাথে সংযুক্ত করা হয়েছে।

আইপে সিস্টেমের পক্ষে উপদেষ্টা মোহম্মদ নূরুল আমিন, হেড অব বিজনেস এন্ড স্ট্র্যাটেজি মুহাম্মদ আবুল খায়ের চৌধুরী, হেড অব স্টেক হোল্ডার ম্যানেজমেন্ট নোমান রেজা, হেড অব মার্চেন্ট রায়হান ফয়েজ ওসমানী এবং আইসিটি বিভাগের পক্ষে জুয়েনা আজিজ এবং এটুআই প্রকল্প পরিচালক মো. মোস্তাফিজুর রহমান চুক্তি স্বাক্ষরের সময় উপস্থিত ছিলেন।

এটুআই প্রকল্প পরিচালক মো. মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘এই চুক্তির ফলে বিল প্রদানকারী তাদের বিলগুলো ডিজিটালভাবে পরিধোশ করতে পারবে। ডিসেম্বরের মধ্যে এটি চালু করা যাবে বলেও তিনি আশাবাদ প্রকাশ করেন। এই সিস্টেম নাগরিকদের সময় এবং অর্থ দুটোই বাঁচাবে বলে মন্তব্য করেন চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ও আইসিটি বিভাগের সচিব জুয়েনা আজিজ। জীবনকে সহজিকরণ ও দ্রুততর করার জন্য সরকারের ডিজিটালাইজেশনের প্রক্রিয়ার সাথে যুক্ত হতে পেরে আইপে গর্ববোধ করছে বলে জানান হেড অব বিজনেস এন্ড স্ট্র্যাটেজি মুহাম্মদ আবুল খায়ের চৌধুরী।

বর্তমানে দেশে প্রতি মাসে ৬ হাজার কোটি টাকা ইউটিলিটি বিল পরিধোশ করা হয়, যার মধ্যে ১০ শতাংশেরও কম গ্রাহক অন লাইনের মাধ্যমে পরিশোধ করে। তবে, সরকার আগামী ৫ বছরের মধ্যে অন্তত ৫০ শতাংশ ইউটিলিটি বিল অনলাইনের মাধ্যমে পরিশোধের টার্গেট নিয়েছে। আইপে এই মহান উদ্যোগের সাথে নিজেদেরকে সম্পৃক্ত করতে পেরে গর্ববোধ করে কারণ এটি ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠন এবং নগদ অর্থ লেনদেন হ্রাসে নতুন একটি তরঙ্গ তৈরি করবে। 

আইপে সিস্টেমস লিমিটেড বাংলাদেশের প্রথম ডিজিটাল ওয়ালেট সার্ভিস যা বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক পেমেন্ট সার্ভিস প্রোভাইডার (পিএসপি) লাইসেন্স প্রাপ্ত। আইপে অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহারকারীরা আইপে অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করে তাদের বিল পরিশোধ, মনোনিত ব্যাংকে অর্থ প্রেরণ, ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে আইপে ওয়ালেটে অর্থ সংযুক্ত, বন্ধু এবং পরিবারের কাছে অর্থ প্রেরন ও মোবাইল রিচার্জ করতে পারেন।

প্রিয় ব্যবসা/আশরাফ

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


loading ...