তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়িপ এরদোয়ান। ছবি: সংগৃহীত

যুবরাজ বিন সালমানের ঘনিষ্ঠরাই হত্যাকাণ্ড ঘটায়: এরদোয়ান

শুক্রবার ইস্তাম্বুলে ইসলামি সহযোগিতা সংস্থার (ওআইসি) সদস্য দেশগুলোর বিচার ব্যবস্থাবিষয়ক সম্মেলনে এ আহ্বান জানান তিনি।

প্রিয় ডেস্ক
ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশিত: ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮, ১০:২৭ আপডেট: ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮, ১০:২৭
প্রকাশিত: ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮, ১০:২৭ আপডেট: ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮, ১০:২৭


তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়িপ এরদোয়ান। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) সাংবাদিক ও লেখক জামাল খাসোগি হত্যার প্রধান হোতাদের চিহ্নিত করার আহ্বান জানিয়েছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়িপ এরদোয়ান

১৪ নভেম্বরন, শুক্রবার ইস্তাম্বুলে ইসলামি সহযোগিতা সংস্থার (ওআইসি) সদস্য দেশগুলোর বিচার ব্যবস্থাবিষয়ক সম্মেলনে এ আহ্বান জানান তিনি। পার্স টুডের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘খাসোগি হত্যার যে অডিও ক্লিপ রয়েছে তা থেকে স্পষ্ট সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের সবচেয়ে ঘনিষ্ঠ ব্যক্তিরা সক্রিয়ভাবে এ হত্যাকাণ্ডে অংশ নিয়েছেন।’

এরদোয়ান আরও জানান, সৌদি থেকে যে ১৫ জন ব্যক্তিকে তুরস্কে পাঠানো হয়েছিল তারা এ হত্যাকাণ্ডে জড়িত রয়েছে। কিন্তু সৌদি অ্যাটর্নি জেনারেল তুরস্ক সফরে এসে খাসোগি হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে এক বিন্দু তথ্যও আঙ্কারাকে দেয়নি।

এর আগে সৌদি আরবের সাংবাদিক ও লেখক জামাল খাসোগি হত্যার অডিও সৌদি আরব, যুক্তরাষ্ট্র, জার্মানি, ফ্রান্স ও যুক্তরাজ্যকে সরবরাহের কথা জানিয়েছিলেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান। তার আগে খাসোগি হত্যার সম্ভাব্য একটি অডিও নিজেদের কাছে আছে বলে জানিয়েছিল তুর্কি কিছু সূত্র।

সৌদি রাজতন্ত্রের সমালোচক খাসোগি ২০১৭ সাল থেকে ওয়াশিংটনে স্বেচ্ছা-নির্বাসিত জীবন কাটাচ্ছিলেন। গত ২ অক্টোবর প্রয়োজনীয় কিছু কাগজপত্র নিতে ইস্তাম্বুলের সৌদি কনস্যুলেটে প্রবেশের পর থেকেই নিখোঁজ হন। পরে বিভিন্ন মহলের চাপে খাসোগির খুনের বিষয়টি স্বীকার করে সৌদি আরব।

সৌদি আরব প্রথম থেকেই খাসোগির নিখোঁজের বিষয়ে নিজেদের সংশ্লিষ্টতার কথা অস্বীকার করে। তবে প্রায় তিন সপ্তাহ ধরে পশ্চিমা দেশগুলোর উত্তরোত্তর চাপ বৃদ্ধির পর সৌদি আরব অবশেষে স্বীকার করে যে খাসোগিকে দূতাবাসের ভেতরে হত্যা করা হয়েছে।

প্রিয় সংবাদ/আশরাফ/রুহুল

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...