মাশরাফি বিন মুর্তজা। ফাইল ছবি

মাশরাফি কি পারবেন রাজনীতির বদনাম মুছতে?

আশা করছি, তার মতো শত যোগ্য ও দক্ষ মানুষের নেতৃত্বগুণে আমাদের রাজনীতির দৃশ্যপটও ক্রিকেট মাঠের মতোই বদলে যাবে।

জসিমউদ্দীন জিহাদ
সংবাদকর্মী/লেখক
প্রকাশিত: ২৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৬:১৫ আপডেট: ২৯ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৮:৫৩
প্রকাশিত: ২৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৬:১৫ আপডেট: ২৯ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৮:৫৩


মাশরাফি বিন মুর্তজা। ফাইল ছবি

মাশরাফি বিন মুর্তজা ক্রিকেটার হিসেবে যেমন বিশ্বের সেরাদের ‘সেরা’ একজন; তেমনি মানুষ হিসেবেও সেরাদের সেরা। এতে কোনো সন্দেহের অবকাশ নেই। মাশরাফির মতো ব্যক্তিত্ব ও বীরের জন্ম সবসময় হয় না। সে ক্ষেত্রে নির্দ্বিধায় বলতে পারি, আমরা ভাগ্যবান জাতি।

মাশরাফির রাজনীতিতে আসাটা অনেকেই ভালো চোখে দেখছেনা। সে কারণে হয়তো যে মাশরাফির সমালোচনা নামক দুনিয়াটাতে অপরিচিত ছিল, সে মাশরাফির আজ সমালোচকের কোনোই অভাব নেই। বলা যায়, একপ্রকার আকাশচুম্বী জনপ্রিয় একমাত্র ব্যক্তিটিরও জনপ্রিয়তায় একপ্রকার ধস নেমেছে।

আমি ব্যক্তিগতভাবে মাশরাফিকে রাজনীতির মাঠে স্বাগত জানাচ্ছি। আর আশা করছি, তার মতো শত যোগ্য ও দক্ষ মানুষের নেতৃত্বগুণে আমাদের রাজনীতির দৃশ্যপটও ক্রিকেট মাঠের মতোই বদলে যাবে।আশা করছি রাজনীতির মাঠে মাশরাফিকে কেউ ছোট না ভেবে, ছোট না করে মাশরাফি হতে চেষ্টা করবে। আমরা মাশরাফির কল্যাণে আরও মাশরাফি রাজনীতির মাঠে পাব। একটা সময় পুরো বাংলাদেশটাই মাশরাফিতে ভরে যাবে।

তবে মনে প্রশ্ন আর সংশয় রয়ে যাচ্ছে এই ভেবে যে, নিজ দল বা ঘরের মানুষেরা কি মাশরাফিকে মাশরাফির মতোই থাকতে দেবেন? চলতে দেবেন? নাকি নিজেদের মতো করে চলতে বাধ্য করবেন? যার ফলে অপরাজিত মাশরাফির পরাজয় হবে শোচনীয় ও করুণ।

সময় হয়তো বা সব বলে দেবে। তবে আমি আমার অল্প জ্ঞানে দুটি কথা বলে রাখছি, আমাদের দেশে যে পরিমাণ অপরাজনীতির প্রতিযোগিতা এখন চলছে এমনটা চলতে থাকলে হাজার মাশরাফিও এই দেশের জন্য কিছুই করতে পারবেন না। যতদিন না আমরা নিজেরাই পরিবর্তন হচ্ছি। মন, মানসিকতা, চিন্তা, চেতনা যতদিন না পচা সাবানে মেখে পাথরে ঘষে পরিষ্কার করছি।

এখন দেখার বিষয় মাশরাফি কি পারবেন রাজনীতির বদনাম মুছতে! না বদনামই মাশরাফিকে মুছে ফেলবে?

সবশেষে একটা কথাই বলব, মাশরাফি দেশের সম্পদ, তাকে সবাই যত্ন করুন, দেশের কল্যাণে কাজে লাগান। এই লেখাটা কারো পক্ষে বা বিপক্ষে নয়। মনের গভীরে জমে থাকা কিছু ভাবনার প্রকাশ করেছি মাত্র। তবুও ভুল হলে সবাই ক্ষমার দৃষ্টিতে দেখবেন।

[প্রকাশিত মতামত লেখকের একান্তই নিজস্ব। প্রিয়.কম লেখকের মতাদর্শ ও লেখার প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত মতামতের সঙ্গে প্রিয়.কম-এর সম্পাদকীয় নীতির মিল না-ও থাকতে পারে।]