চলচ্চিত্র নির্মাতা আমজাদ হোসেন। ছবি: শামছুল হক রিপন, প্রিয়.কম

প্রেসক্লাবে আমজাদ হোসেন স্মরণে সভা

প্রিয়.কমকে ১০ জানুয়ারি, বৃহস্পতিবার রাতে এ তথ্য জানিয়েছেন সোহেল আরমান।

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিয়.কম
প্রকাশিত: ১১ জানুয়ারি ২০১৯, ১২:১৮ আপডেট: ১১ জানুয়ারি ২০১৯, ১৩:০২
প্রকাশিত: ১১ জানুয়ারি ২০১৯, ১২:১৮ আপডেট: ১১ জানুয়ারি ২০১৯, ১৩:০২


চলচ্চিত্র নির্মাতা আমজাদ হোসেন। ছবি: শামছুল হক রিপন, প্রিয়.কম

(প্রিয়.কম) প্রয়াত বরেণ্য চলচ্চিত্র নির্মাতা আমজাদ হোসেন স্মরণে ১১ জানুয়ারি বিকেল চারটায় জাতীয় প্রেসক্লাবে যৌথভাবে এক স্মরণ সভার আয়োজন করেছে ময়মনসিংহ কালচারাল ফোরাম ও জামালপুর সামাজিক সাংস্কৃতিক ফোরাম নামের দুটি সংগঠন।

১০ জানুয়ারি, বৃহস্পতিবার রাতে প্রিয়.কমের সঙ্গে আলাপকালে এ তথ্য জানিয়েছেন আমজাদ হোসেনের ছেলে সোহেল আরমান।

তিনি জানান, এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তফা জব্বার। আর বিশেষ অতিথি হিসেবে থাকবেন দেশের জনপ্রিয় অভিনেতা ও এমপি আকবর হোসেন খান পাঠান ফারুক ও জামালপুর সদরের এমপি ইঞ্জিনিয়ার মোজাফফর হোসেন।

স্মরণ সভায় প্রধান আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখবেন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব সৈয়দ হাসান ইমাম। আর বিশেষ আলোচক হিসেবে থাকবেন নাট্যব্যক্তিত্ব মামুনুর রশীদ।

ব্যাংককের বামরুনগ্রাদ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ১৪ ডিসেম্বর আমজাদ হোসেন বাংলাদেশ সময় দুপুর ২টা ৫৭ মিনিটে মারা গিয়েছেন।

আমজাদ হোসেন ১৯৬১ সালে ‘হারানো দিন’ চলচ্চিত্রে অভিনয় দিয়ে চলচ্চিত্র অঙ্গনে আসেন। পরে চিত্রনাট্য রচনা ও নির্মাণে মনোনিবেশ করেন।

১৯৬৭ সালে আমজাদ ‘আগুন নিয়ে খেলা’ নামে প্রথম চলচ্চিত্র নির্মাণ করেন। পরে তিনি ‘নয়নমণি’, ‘গোলাপী এখন ট্রেনে’, ‘ভাত দে’র মতো চলচ্চিত্র নির্মাণ করে প্রশংসিত হন।

‘গোলাপী এখন ট্রেনে’ ও ‘ভাত দে’ চলচ্চিত্রের জন্য তিনি শ্রেষ্ঠ পরিচালক হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন নির্মাতা আমজাদ হোসেন।

এ ছাড়া শিল্পকলায় অবদানের জন্য তিনি একুশে পদক ও স্বাধীনতা পুরস্কারও পেয়েছেন। আমজাদ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির আজীবন সদস্য।

সাহিত্য রচনার জন্য এই নির্মাতা ১৯৯৩ ও ১৯৯৪ সালে দুবার অগ্রণী শিশু সাহিত্য পুরস্কার এবং ২০০৪ সালে বাংলা একাডেমি পুরস্কার পেয়েছেন।

১৯৪২ সালের ১৪ আগস্ট জামালপুরে জন্মগ্রহণ করেন আমজাদ হোসেন। পঞ্চাশের দশকে ঢাকায় এসে সাহিত্য ও নাট্যচর্চার সঙ্গে জড়িত হন। তারপরই চলচ্চিত্রে আসেন।

এ ছাড়া আমজাদ হোসেন প্রখ্যাত চলচ্চিত্র পরিচালক এবং গল্পকার জহির রায়হানের অনেক ছবির চিত্রনাট্য লিখেছেন ও সহযোগি হিসেবে কাজ করেছেন।

প্রিয় বিনোদন/গোরা 

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...