বিপিএলের অন্যতম ধারাভাষ্যকার শামীম আশরাফ চৌধুরী (বামে), আতাহার আলি খান (ডানে)। ছবি: সংগৃহীত

প্রযুক্তি নয়, ভুল করছেন ধারাভাষ্যকাররা!

এ সময় গ্রাফিক্সের ভুলের কথাও স্বীকার করেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) এই কর্মকর্তা।

মুশাহিদ
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ১১ জানুয়ারি ২০১৯, ২১:১৯ আপডেট: ১১ জানুয়ারি ২০১৯, ২১:৩৬
প্রকাশিত: ১১ জানুয়ারি ২০১৯, ২১:১৯ আপডেট: ১১ জানুয়ারি ২০১৯, ২১:৩৬


বিপিএলের অন্যতম ধারাভাষ্যকার শামীম আশরাফ চৌধুরী (বামে), আতাহার আলি খান (ডানে)। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) মাঠে গড়ানোর আগেই আলোচনা ছিল বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) ষষ্ঠ আসর নিয়ে। সম্প্রচারে নতুনত্ব, প্রযুক্তির ব্যবহার ছাড়াও প্রথমবারের মতো অন্তর্ভুক্ত করা হয় ডিসিশন রিভিউ সিস্টেম (ডিআরএস)। প্রযুক্তির ব্যবহার বাড়ানো হলেও নানা অব্যবস্থাপনায় টুর্নামেন্টের প্রথম দিন থেকেই শুরু হয় সমালোচনার ঝড়।

ডিআরএস আছে কিন্তু তাতে নেই হটস্পট, স্নিকোমিটার কিংবা আলট্রাএজ। এখানেই শেষ নয়। স্কোরকার্ডেও ধরা পড়ে নানা রকমের অসঙ্গতি। টিকিটের দাম ও খেলার সময় নিয়েও দেখা দেয় বিতর্ক। এর সঙ্গে প্রতিটি ম্যাচেই যোগ হয়েছে ধারাভাষ্য নিয়ে সমালোচনা।

তবে বিপিএল গর্ভনিং কাউন্সিলের সদস্য সচিব ইসমাইল হায়দার মল্লিক দায় দিচ্ছেন শুধু ধারাভাষ্যকার ও গ্রাফিক্সের। তিনি জানান, প্রযুক্তিগত দিক থেকে চেষ্টায় কিংবা খরচের কোনো কমতি রাখেনি আয়োজকরা।

এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘ম্যান পাওয়ারের ক্ষেত্রে কোনো কমতি নেই। আপনারা জানেন যে, আমাদের ড্রোনটি এসেছে কানাডা থেকে, স্পাইডার ক্যাম এসেছে অস্ট্রেলিয়া থেকে। আইসিসি যেটি ব্যবহার করে সেই কোম্পানি থেকেই আনা। একই মানুষ এই সিস্টেম অপারেট করছে। মানে এখানে কিন্তু কোনো দেশি লোক পরিচালনা করছে না। যারা আইসিসি ইভেন্টগুলো অপারেট করে তারাই করছে। এখানে কোনো ভুল হয়নি, ভুল আসলে একটি হলো ধারাভাষ্যকারের।’

এ সময় গ্রাফিক্সের ভুলের কথাও স্বীকার করেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) এই কর্মকর্তা। একইসঙ্গে জানান, প্রতিনিয়ত ভুলগুলো নিয়ে পর্যালোচনা হচ্ছে।

পরবর্তীতে একই ভুলের পুনরাবৃত্তি না হওয়ার আশ্বাস দিয়ে তিনি বলেন, ‘গ্রাফিক্সে বেশ কয়েকটি ভুল আমাদের চোখে পড়েছে, হয়তো আরও কিছু ভুল আছে যেগুলো আমাদের চোখে পড়েনি। আমরা কিন্তু এই ভুলগুলো প্রায় প্রতিদিনই জানাচ্ছি যেন পরবর্তীতে আর ভুল না হয়। ধারাভাষ্যকারের ব্যাপারটিও দেখাছি। সামনে আরও নতুন প্যানেল আসবে।’

‘প্রত্যেক জিনিসেরই উন্নতির অনেক বিষয় আছে। আমরা বলছি না, এটাই বেস্ট প্রোডাকশন। তবে প্রযুক্তি ও যন্ত্রপাতির দিক থেকে আরও উন্নতির জায়গা আছে। এখন পর্যন্ত যেসব যন্ত্রপাতি আইসিসি বিশ্বকাপেও ব্যবহার করে না। যেগুলো সেরা প্রযুক্তি ব্যবহার হয় সেগুলো আমরা নিয়ে এসেছি। এখন প্রশ্ন হতে পারে মান নিয়ে। মানের উন্নতির কোনো স্কোপ আছে কিনা,’ বলেন ইসমাইল হায়দার।

প্রিয় খেলা /কামরুল

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...