দরকারি তথ্য মনে রাখতে কোনো না কোনো সময় আমাদের সবারই ভুল হয়ে যায়। ছবি: প্রিয়.কম

দরকারি তথ্য ভুলে যাচ্ছেন? জেনে রাখুন একটি কৌশল

ছোট্ট এই কৌশলে যে কোনো তথ্য মনে রাখতে পারবেন আপনি।

কে এন দেয়া
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ১২ জানুয়ারি ২০১৯, ২০:২২ আপডেট: ১২ জানুয়ারি ২০১৯, ২০:২২
প্রকাশিত: ১২ জানুয়ারি ২০১৯, ২০:২২ আপডেট: ১২ জানুয়ারি ২০১৯, ২০:২২


দরকারি তথ্য মনে রাখতে কোনো না কোনো সময় আমাদের সবারই ভুল হয়ে যায়। ছবি: প্রিয়.কম

(প্রিয়.কম) দরকারি তথ্য মনে রাখতে কোনো না কোনো সময় আমাদের সবারই ভুল হয়ে যায়। বাজার থেকে প্রয়োজনীয় জিনিসটি কিনতেই আমরা ভুলে যাই। কাজের চাপে ভুলে যাই সন্তানের জন্মদিনটাও।  এরপর থেকে জরুরী কিছু মনে রাখতে একটি কাজ করুন- কাগজ কলম নিয়ে ওই তথ্যের সাথে সম্পর্কিত কিছু এঁকে নিন। কনশাসনেস অ্যান্ড কগনিশন জার্নালে প্রকাশিতব্য এক গবেষণায় জানানো হয়, নতুন তথ্য মনে রাখতে তা এঁকে ফেলাটা সবচেতে ভালো উপায়। নোট নেওয়া ও ওই সংক্রান্ত ছবি দেখার তুলনায় ছবিটি নিজের হাতে আঁকা অনেক বেশি কার্যকরী।  ছবি আঁকা ভালো হচ্ছে না খারাপ হচ্ছে, তাতে কিছুই যায় আসে না। ছবি আঁকলেই তথ্যটি ভালোভাবে মনে রাখা যায়।

এই গবেষণাটি বিশেষ করে সেসব মানুষের জন্য উপকারী যাদের ডিমেনশিয়ার সমস্যা রয়েছে।  বার্ধক্যজনিত রোগ ডিমেনশিয়া হলে স্মৃতিশক্তি খুবই দুর্বল হয়ে পড়ে।  তারা প্রতিদিনই ছবি আঁকার চর্চা করতে পারেন, যাতে তাদের স্মৃতিশক্তির উন্নতি হয়। উদাহরণস্বরুপ, বাজারে যাওয়ার আগে নোটবইতে ছোট করে সেই সবজিগুলোর ছবি আঁকুন যা কিনতে হবে।  সবজির তালিকা লেখার তুলনায় এটা বেশি কাজে আসবে।

গবেষণায় ৪৮ জন মানুষ অংশ নেন যাদের বয়স ২০ এর কোঠা থেকে শুরু করে ৮০র কোঠা পর্যন্ত ছিলো। তাদেরকে ১৫ টি শব্দ লিখতে বলা হয় এবং ১৫ টি শব্দের ছবি আঁকতে বলা হয়। যেমন, ‘ইয়ট’ শব্দটির জন্য সাধারণ একটি নৌকার অবয়ব আঁকতে বলা হয়।

তাদের মস্তিষ্ক থেকে এসব তথ্য দূর করার জন্য এরপর ৬০ ধরণের শব্দ শোনানো হয়।  এই কাজটির শেষে তাদেরকে লিখতে বা আঁকতে দেওয়া ওই ১৫টি শব্দ মনে করতে বলা হয়। এর জন্য তাদেরকে ২ মিনিট সময় দেওয়া হয়।

সবশেষে দেখা যায়, তরুণ ও বৃদ্ধ সব বয়সের মানুষই আঁকার পর শব্দগুলোকে ভালোভাবে মনে করতে পারছেন। তবে বয়স্কদের মাঝে এর প্রভাব বেশি দেখা যায়।   গবেষকরা ধারণা করছেন, আঁকার সময়ে মস্তিষ্কের অনেকগুলো জায়গা কাজ করে বলে তা ভালো মনে থাকে।

এক্ষেত্রে আরও বেশি গবেষণা প্রয়োজন। তবে গবেষকরা আশা করছেন, ডিমেনশিয়া রোগীদের চিকিৎসায় তা বেশ কাজে আসবে।  শুধু তাই নয়, শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রেও তা কাজে আসার কথা। অনেক শিক্ষার্থী মনে করে ক্লাসে নোট নেওয়া ও তা আবার নতুন করে লেখাতে পড়া ভালোভাবে মনে থাকে। এর বদলে তারা ওই সংক্রান্ত ছবি আঁকতে পারে। এতে পড়া মনে থাকবে আরো ভালোভাবে।

সূত্র: হাফিংটন পোস্ট

প্রিয় বিজ্ঞান/ আর বি 

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...