উইকেট পাওয়ার পর রাজশাহীর ক্রিকেটারদের উল্লাস। ছবি: প্রিয়.কম

ঢাকার জয়রথ থামাল মিরাজের রাজশাহী

অবশেষে ঢাকার রাজত্ব থামাল রাজশাহী কিংস।

শান্ত মাহমুদ
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১৬ জানুয়ারি ২০১৯, ১৭:১৩ আপডেট: ১৬ জানুয়ারি ২০১৯, ১৭:২৩
প্রকাশিত: ১৬ জানুয়ারি ২০১৯, ১৭:১৩ আপডেট: ১৬ জানুয়ারি ২০১৯, ১৭:২৩


উইকেট পাওয়ার পর রাজশাহীর ক্রিকেটারদের উল্লাস। ছবি: প্রিয়.কম

(প্রিয়.কম) দারুণ জয়ে শুরু। এরপর ঢাকা ডায়নামাইটস কেবল জয়ের বন্দরেই তরী ভিড়িয়েছে। কোনো প্রতিপক্ষই তাদেরকে হারের স্বাদ দিতে পারছিল না। অবশেষে ঢাকার রাজত্ব থামাল রাজশাহী কিংস। রুদ্ধশ্বাস ম্যাচে বুধবার সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ঢাকা ডায়নামাইটসকে ২০ রানে হারিয়ে দিয়েছে মেহেদী হাসান মিরাজের দল। এই ম্যাচে হারলেও ঢাকা পর্বে চার জয় পাওয়া সাকিব আল হাসানের দলই পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষস্থান ধরে রেখেছে।

টস জিতে আগে ব্যাটিং করতে নামা রাজশাহী কিংস সুনীল নারিন, আন্দ্রে রাসেল, রুবেল হোসেনদের বোলিংয়ের সামনে বিশেষ সুবিধা করতে পারেনি। প্রথম ম্যাচ খেলতে নামা মার্শাল আইয়ুবের করা ইনিংস সেরা ৪৫ রানের সুবাদে ৬ উইকেটে ১৩৬ রান তোলে তারা। জবাবে চরম অগোছালো শুরু করা ঢাকার ইনিংস শেষ হয় ১১৬ রানে।

জয়ের লক্ষ্যে ব্যাটিং করতে নামা ঢাকা ডায়নামাইটসের শুরুটা হয় চরম হতাশার। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভার করতে আসা রাজশাহীর অধিনায়ক মিরাজ এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেলে ঢাকার ওপেনার সুনীল নারিনকে ফিরিয়ে দেন। প্রথম উইকেট হারিয়েই যেন শনির দশা লেগে যায় ঢাকার ইনিংসে। শুরু থেকেই ধুঁকতে থাকা হজরতউল্লাহ জাজাইও কিছুক্ষণ পর ফিরে যান।

তেড়েফুঁড়ে শুরু করা আন্দ্রে রাসেলের ভাগ্য সুপ্রসন্ন হয়নি। ৮ বলে একটি চার ও একটি ছক্কায় ১৩ রান করে বিদায় নেন ক্যারিবীয় এই অলরাউন্ডার। ২৩ রানেই তিন উইকেট হারিয়ে বিপাকে পড়ে যাওয়া ঢাকার রান তোলার গতি একেবারেই ঝিমিয়ে পড়ে। পাওয়ার প্লের ছয় ওভার থেকে মাত্র ৩২ রান পায় তারা। এই অবস্থা কাটিয়ে তোলার কাজে মন লাগান রনি তালুকদার ও অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। যদিও দুঃসময় কাটিয়ে দলকে ভালো অবস্থানে নিয়ে যেতে পারেনি এই জুটি।

৩ উইকেট নিয়ে ঢাকাকে দিক ভুলিয়ে দেওয়া আরাফাত সানির শিকারে পরিণত হয়ে থামতে হয় ১৩ রান করা সাকিব ও ১৪ রান করা রনিকে। এরপর নাইম শেখকে সঙ্গে নিয়ে কাইরন পোলার্ড কিছুটা লড়াই করেন। কিন্তু এই দুজনও শেষ করতে পারেননি। পোলার্ড ১৩ ও নাইম ১৭ রান করেন।

শেষের দিকে ২১ রান করা নুরুল হাসান সোহান, আসিফ হাসানদের লড়াই হারের ব্যবধান কমিয়েছে মাত্র। মাত্র ৮ রান খরচায় ৩ উইকেট নেন ম্যাচসেরা আরাফাত সানি। এ ছাড়া অধিনায়ক মিরাজ ২টি এবং ইসুরু উদানা, কামরুল ইসলাম রাব্বি ও মুস্তাফিজুর রহমান একটি করে উইকেট নেন।

এরআগে টস জিতে ব্যাটিংয়ে নামা রাজশাহী এই ম্যাচেও মন জুড়িয়ে দেওয়া ব্যাটিং করতে পারেনি। দলীয় ২ রানেই অধিনায়ক মেহেদী হাসান মিরাজকে হারাতে হয় তাদের। দ্বিতীয় উইকেটে অবশ্য স্বস্তি ফিরে পায় দলটি। এবারের বিপিএলে রাজশাহীর হয়ে প্রথম ম্যাচ খেলতে নামা দুই ব্যাটসম্যান শাহরিয়ার নাফিস ও মার্শাল আইয়ুব দ্বিতীয় উইকেটে ৭৫ রানের জুটি গড়ে তোলেন।

রাজশাহীর হয়ে মূলত এই দুজনই ব্যাট চালিয়েছেন। মার্শাল আইয়ুব ৩১ বলে ৩টি চার ২টি ছক্কায় ইনিংস সেরা ৪৫ রান করেন। নাফিসের ব্যাট থেকে আসে দ্বিতীয় সেরা ২৫ রান। এরপর রায়ান টেন ডেসকাটের ১৬ ও জাকির হাসানের ২০ রান রাজশাহীকে ১৩৬ রানে পৌঁছে দেয়। ঢাকার ক্যারিবিয়ান স্পিনার নারিন ১৯ রান খরচায় ৩টি উইকেট নেন। এ ছাড়া রাসেল, সাকিব ও আল ইসলাম একটি করে উইকেট নেন।

প্রিয় খেলা/শান্ত মাহমুদ    

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...