‘শনিবার বিকেল’ ছবির একটি দৃশ্য। ছবি: সংগৃহীত

আটকে গেল ফারুকীর ‘শনিবার বিকেল’

‘শনিবার বিকেল’ ছবিটি মুক্তি পেলে দেশের ‘সম্মানহানি’ হবে বলে মনে করছেন বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডের সদস্যরা।

মিঠু হালদার
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১৯ জানুয়ারি ২০১৯, ১৪:০৭ আপডেট: ২১ জানুয়ারি ২০১৯, ০০:২১
প্রকাশিত: ১৯ জানুয়ারি ২০১৯, ১৪:০৭ আপডেট: ২১ জানুয়ারি ২০১৯, ০০:২১


‘শনিবার বিকেল’ ছবির একটি দৃশ্য। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) ঢাকার গুলশানের হলি আর্টিজান হামলার ঘটনা অবলম্বনে নির্মিত চলচ্চিত্র ‘শনিবার বিকেল’ বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডে দুই দফা প্রদর্শনের পরও ছাড়পত্র পায়নি। ছবিটি মুক্তি পেলে দেশের ‘সম্মানহানি’ হবে বলে মনে করছেন বোর্ডের সদস্যরা।

এদিকে এ সিদ্ধান্ত সিনেমার শিল্পের বিকাশে বাধা বলে মনে করছেন ছবিটির নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকী। আর সেন্সর বোর্ড কর্তৃপক্ষ বলেছে, ছবিটি মুক্তি পেলে বাংলাদেশে ধার্মিক দ্বন্দ্ব সৃষ্টি করতে পারে। সে কারণেই এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

গত বৃহস্পতিবার সেন্সর বোর্ড কর্তৃপক্ষ বলেছে, ‘শনিবার বিকেল’ সিনেমাটির বিষয়ে রবিবার (২০ জানুয়ারি) চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে তারা। কিন্তু তার আগেই জানা গেল এ খবর।

সেন্সর বোর্ডের সদস্য ইফতেখার উদ্দিন নওশাদ এ বিষয়ে প্রিয়.কম’কে ১৯ জানুয়ারি দুপুরে বলেন, ‘রবিবার ছবিটির নির্মাতা ও প্রযোজককে নিষিদ্ধের বিষয়ে চিঠি দেওয়া হবে। চিঠিতে তাদের কারণও জানানো হবে। নির্মাতা যদি আপিল করতে চায়, সে করবে।’

ফারুকী এ বিষয়ে প্রিয়.কমকে বলেন, ‘আমরা আপিল করব। জাহিদ (জাহিদ হাসান) ও তিশাকে (নুসরাত ইমরোজ তিশা) নিয়ে একটা প্রোপাগান্ডা ছড়ানো হয়েছে! এই যে একটা মিথ্যচার প্রতিষ্ঠা করা হলো, এরা জঙ্গী চরিত্রে অভিনয় করছে। এটা তো মিথ্যা কথা!’

সেন্সর বোর্ডের সচিব মোহাম্মদ আলী সরকার ১৬ জানুয়ারি বলেছেন, ছবিটি দুই দফা দেখার পরও সিনেমাটির কয়েকটি সংলাপ নিয়ে কিছু পর্যবেক্ষণ রয়ে গেছে।

তিনি জানান, ছবিটি দেখলে বোঝা যায়, এটি হোলি আর্টিজান বেকারিতে ঘটে যাওয়া সন্ত্রাসী আক্রমণ ও জিম্মিদশাকে অবলম্বন করে।

নওশাদ ছবিটি নিয়ে আরও বলেন, ‘ছবিটির গল্পের সঙ্গে হোলি আর্টিজান হামলার ঘটনার যথেষ্ট মিল রয়েছে। তবে পরিচালক সরাসরি হোলি আর্টিজান বিষয়ে এই সিনেমায় কিছুই বলেননি, একটি আক্রমণ বুঝিয়েছেন। তবে গল্পটা আসলে একই।’

ছবিটির শুটিংয়ের এক বছর পর বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডে ছাড়পত্রের জন্য সম্প্রতি জমা দেওয়া হয়। প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান মাস দুয়েকের মধ্যে সিনেমাটি মুক্তি দেওয়ার পরিকল্পনা করেছিল।

‘শনিবার বিকেল’ সিনেমা শুটিংয়ের শুরু থেকে আলোচিত। দেশের গুণী ও জনপ্রিয় অভিনয়শিল্পীদের পাশাপাশি এই সিনেমায় বিশ্বের নামকরা তারকারাও যুক্ত হয়েছেন।

‘আমার এই ছবিটি গুলশানের হোলি আর্টিজান ঘটনার পুননির্মাণ নয়। তবে ছবিটির জন্য হোলি আর্টিজানের ঘটনা থেকে ইন্সপিরেশন নিয়েছি।’ ‘শনিবার বিকেল’ নিয়ে এভাবেই বলেছেন ফারুকী।

নাম কেন ‘শনিবার বিকেল’ এমন প্রশ্নে ফারুকী বলেছেন, ‘একটা শনিবার বিকেল, সুন্দর বিকেল, ঝরঝরে বিকেল, চমৎকার বিকেল কী করে দুঃসহ ও বিভীষিকাময় হয়ে উঠল, তা-ই বলতে চেয়েছি। কিন্তু আমাদের গল্পটা শেষ পর্যন্ত বিভীষিকাময় থাকল না, গল্পটা আশার।’

এ ছবিতে অভিনয় করেছেন জাহিদ হাসান, ইরেশ যাকের, ভারতের পরমব্রত, নুসরাত ইমরোজ তিশা, ফিলিস্তিনের চলচ্চিত্র তারকা ইয়াদ হুরানিসহ আরো অনেকে।

বাংলাদেশ-ভারত-জার্মান যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত ‘শনিবার বিকেল’। বাংলাদেশের জাজ মাল্টিমিডিয়া ও ভারতের কলকাতার শ্যাম সুন্দর দের পাশাপাশি প্রযোজনার সঙ্গে যুক্ত আছে ছবিয়াল।

প্রিয় বিনোদন/গোরা

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...