সোহরাওয়ার্দী সমাবেশ মঞ্চে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ছবি: সংগৃহীত

মঞ্চে শেখ হাসিনা, সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে মুখরিত ‘জয় বাংলা’

বড় বিজয়ের উৎসবও বড় হবে, তাই মহাসমাবেশকেই বিজয় মিছিলে রূপ দেওয়ার লক্ষ্য ছিল সারা দেশের নেতাকর্মীদের।

মোক্তাদির হোসেন প্রান্তিক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১৯ জানুয়ারি ২০১৯, ১৫:৪৭ আপডেট: ১৯ জানুয়ারি ২০১৯, ১৫:৪৭
প্রকাশিত: ১৯ জানুয়ারি ২০১৯, ১৫:৪৭ আপডেট: ১৯ জানুয়ারি ২০১৯, ১৫:৪৭


সোহরাওয়ার্দী সমাবেশ মঞ্চে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিজয় উপলক্ষে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ আয়োজিত বিজয় উৎসবের মঞ্চে পৌঁছেছেন দলটির সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

শনিবার দুপুর ৩টার দিকে তিনি সমাবেশস্থলে পৌঁছান। এর আগে দুপুর ১২টার দিকে সমাবেশের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়। সমাবেশে দিক নির্দেশনামূলক বক্তব্য রাখবেন আওয়ামী লীগ সভাপতি।

বিজয় উৎসবের সমাবেশ উপলক্ষে সকাল থেকেই সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ভিড় জমিয়েছেন বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মী। নেতাকর্মীদের ‘জয় বাংলা’ স্লোগানে মুখরিত হয়ে উঠেছে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান। বেলা ১১টায় সমাবেশস্থলের চারপাশের গেট খুলে দেওয়া হয়। আর দুপুর ১২টার পর থেকে আওয়ামী সমর্থকদের চাপ অনেকটা বেড়ে যায়। উদ্যানে প্রবেশে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসির গেটে দীর্ঘ লাইন দেখা যায়। সমাবেশে আগত সবাইকে আর্চওয়ে গেট ও দেহ তল্লাশির মাধ্যমে ঢোকানোর কারণে কিছুটা সময় লাগে।

গত ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত একাদশ সংসদ নির্বাচনে ২৫৭টি আসনে জয় নিয়ে টানা তৃতীয়বার সরকার গঠন করেছে আওয়ামী লীগ। শেখ হাসিনা চতুর্থবার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন। ভোটের ১৯ দিন পর বিজয় উৎসব পালন করছে আওয়ামী লীগ।

নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নিরঙ্কুশ বিজয়ের দিন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশ ছিল তাৎক্ষণিক বিজয় মিছিল না করার। বড় বিজয়ের উৎসবও বড় হবে, তাই মহাসমাবেশকেই বিজয় মিছিলে রূপ দেওয়ার লক্ষ্য ছিল সারা দেশের নেতাকর্মীদের। লাইনে দাঁড়িয়েই যুবলীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগসহ অন্যান্য অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীদের আওয়ামী লীগ সরকারকে নিয়ে ইতিবাচক স্লোগান দিতে শোনা যায়।

লাল-সবুজ টি শার্ট ও মাথায় ক্যাপ পরে উদ্যানের দিকে আসেন ঢাকা মহানগরের বিভিন্ন থানা, ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, মহিলা আওয়ামী লীগ, যুব মহিলা লীগ, শ্রমিক লীগের নেতাকর্মী ও সমর্থকরা। রাজধানী ছাড়াও এর পাশের মানিকগঞ্জ, গাজীপুর, নারায়ণগঞ্জ, সাভার, আশুলিয়া ও মুন্সীগঞ্জ জেলার বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মীকে মহাসমাবেশে নিয়ে এসেছে আওয়ামী লীগ। বাস, ট্রাক ও রেলপথে নেতাকর্মীরা ঢাকায় এসে বর্ণিল মিছিল নিয়ে সোহরাওয়ার্দী ময়দানে সমবেত হয়েছেন।

সমাবেশে আগত নেতাকর্মীরা/ ছবি: সংগৃহীত

এদিকে মাঠ ভর্তি হওয়ার পরে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা নেতাকর্মীরা ভিড় করছেন উদ্যানের বিভিন্ন গেটের সামনে। ফলে রাজধানীর টিএসসি মোড়, শাহবাগ মোড়, ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউট মোড় এবং শিশু পার্কের আশপাশের এলাকায় সমাবেশে অংশ নিতে আসা নেতাকর্মীদের ভিড় তৈরি হয়েছে। পুরো এলাকা ঘিড়ে তৎপর রয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। যেকোনো অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে নেওয়া হয়েছে রণ প্রস্তুতিও। গেট দিয়ে প্রবেশ করা প্রত্যেক নেতাকর্মীকে তল্লাশি করা হচ্ছে। এ জন্য প্রবেশ পথে রয়েছেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পুরুষ ও নারী সদস্যরা।

বিজয় সমাবেশে বেশ কিছু বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ বার্তা দেবেন প্রধানমন্ত্রী। আওয়ামী লীগ সভাপতির আগমনের সময় শিল্পী মমতাজ গান পরিবেশন করেন এবং মঞ্চে আসন গ্রহণের পর ‘জিতবে এবার নৌকা’ গানের শিল্পীরা সমবেত কণ্ঠে গান পরিবেশন করেন।

গান পরিবেশনে ছিলেন আঁখি আলমগীর, রফিকুল আলম, ফাহমিদা নবী, কল্পনা মজুমদার ও জলের গান-এর দল। সমাবেশে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিবেদন করে ‘আপনার জন্ম একটি নতুন সময়ের ইঙ্গিত’ কবিতা আবৃত্তি করেন কবি রাসেল আশেকী। এখন দলের নেতারা বক্তব্য দিচ্ছেন। মূল অনুষ্ঠান পরিচালনা করছেন দলের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ এবং উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন।

জনসভার কারণে বেলা ১১টা থেকে শাহবাগের রূপসী বাংলা সিগন্যাল, কাঁটাবন মার্কেট মোড়, নীলক্ষেত মোড়, চানখাঁরপুল, জিপিও ও মৎস্য ভবন মোড় থেকে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানমুখী সব রাস্তায় যান চলাচল বন্ধ রয়েছে।

উদ্যানের ভেতরে আওয়ামী লীগের নির্বাচনী প্রতীক নৌকার আদলে তৈরি করা হয়েছে বিশাল মঞ্চ। মূল মঞ্চটি সাজানো হয়েছে দলের এবারের ইশতেহারের মলাটের রঙে। বৈঠাসহ ছোট বড় ৪০টিরও বেশি নৌকা, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার ছবি সংবলিত ফেস্টুনে সাজানো হয়েছে সমাবেশ মাঠ।

প্রিয় সংবাদ/রুহুল

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...