রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে শনিবার বিকেলে আওয়ামী লীগ আয়োজিত বিজয় সমাবেশে বক্তব্য দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ছবি: ফোকাস বাংলা

সকলের জন্য কাজ করব: প্রধানমন্ত্রী

শেখ হাসিনা বলেন, ‘প্রত্যেকটা মানুষের জীবনমান উন্নত করব, সেখানে কোনো দল বা মত দেখা হবে না। প্রতিটি নাগরিক আমাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ। তাদের সেবা করার দায়িত্ব জনগণ আমাদের দিয়েছে।’

প্রিয় ডেস্ক
ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশিত: ১৯ জানুয়ারি ২০১৯, ২০:৩৬ আপডেট: ১৯ জানুয়ারি ২০১৯, ২০:৫০
প্রকাশিত: ১৯ জানুয়ারি ২০১৯, ২০:৩৬ আপডেট: ১৯ জানুয়ারি ২০১৯, ২০:৫০


রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে শনিবার বিকেলে আওয়ামী লীগ আয়োজিত বিজয় সমাবেশে বক্তব্য দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ছবি: ফোকাস বাংলা

(প্রিয়.কম) একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিরঙ্কুশ বিজয় অর্জন করে দল-মত নির্বিশেষে সবার জন্য কাজ করার অঙ্গীকার করেছেন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

১৯ জানুয়ারি, শনিবার বিকেলে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জয়লাভ উপলক্ষ্যে আওয়ামী লীগ আয়োজিত বিজয় সমাবেশে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘বিগত নির্বাচনে জনগণ স্বতঃস্ফূর্তভাবে ভোট দিয়ে আওয়ামী লীগকে বিপুল ভোটে বিজয়ী করেছে। জনগণ এই ভোট দিয়েছে দুর্নীতির বিরুদ্ধে, জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে, মাদক ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে। সরকার, জনপ্রতিনিধি, দলীয় নেতাকর্মী সবাই মিলে সেগুলো নিশ্চিত করতে হবে। দুর্নীতি ও জঙ্গিবাদ দূর করতে হবে। মাদক আর সন্ত্রাস নির্মূল করতে হবে। সবাইকে মনে রাখতে হবে, বিজয় পাওয়া কঠিন কিন্তু সেই বিজয় ধরে রাখা আরও কঠিন।’

নির্বাচনে অংশগ্রহণকারী দলগুলোর প্রতি শেখ হাসিনা বলেন, ‘তারা (বিভিন্ন রাজনৈতিক দল) এই নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে নির্বাচনকে অর্থবহ করেছে। জয়-পরাজয় একটা নির্বাচনে স্বাভাবিক ব্যাপার। আমি এটুকু তাদের বলতে চাই, আওয়ামী লীগ নৌকা মার্কায় ভোট পেয়ে জয় পেয়েছে এটা সত্য কিন্তু যখন রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা হাতে এসেছে, যখন দায়িত্ব পেয়েছি জনগণের সেবা করার, যখন দায়িত্ব পেয়েছি মানুষের জন্য কাজ করার; তখন আমি দ্ব্যর্থহীনভাবে বলতে পারি, দল-মত নির্বিশেষে সকলের জন্যই আমাদের সরকার কাজ করে যাবে। প্রত্যেকের আর্থসামাজিক উন্নয়নে কাজ করবে সরকার। রাজনৈতিক অধিকার নিশ্চিত করা হবে।’

‘প্রত্যেকটা মানুষের জীবনমান উন্নত করব, সেখানে কোনো দল বা মত দেখা হবে না। প্রতিটি নাগরিক আমাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ। তাদের সেবা করার দায়িত্ব জনগণ আমাদের দিয়েছে।’

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, ‘আওয়ামী লীগের নির্বাচনি ইশতেহারের পক্ষে জনগণ রায় দিয়েছে। সেই ভোটের সম্মান যাতে থাকে, অবশ্যই আমরা সেই বিষয়টা সব সময় মাথায় রেখে সার্বিকভাবে সুষম উন্নয়ন করে যাব দেশের জনগণের স্বার্থে। আমরা ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ে তুলেছি। আরও আধুনিকভাবে ডিজিটাল বাংলাদেশ এগিয়ে যাবে। জনগণের এই রায় হচ্ছে, সেই আধুনিক ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ে তোলার পক্ষে রায়। এই রায় হচ্ছে মুক্তিযুদ্ধের আদর্শের পক্ষে রায়। এর ভিত্তিতে আমি বলব, বাংলার মাটিতে স্বাধীনতাবিরোধী-যুদ্ধাপরাধীদের কোনো স্থান হবে না। দুর্নীতিবাজ, জঙ্গিবাদ, মাদক ও সন্ত্রাসের স্থান হবে না, বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় গড়ে ওঠবে। আমরা যে অঙ্গীকার করেছি, সে অঙ্গীকার আমরা অক্ষরে-অক্ষরে পূরণ করব। আজকের এই সমাবেশে আমি সে কথাই বলে যেতে চাই, বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবে।’

সভায় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের দলের সভাপতি শেখ হাসিনাকে উদ্দেশে করে একটি অভিনন্দনপত্র পাঠ করেন এবং পরে কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের অন্যদের নিয়ে শেখ হাসিনার হাতে অভিনন্দনপত্র তুলে দেন। সমাবেশটি পরিচালনা করেন দলের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ ও উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন।

শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে সমাবেশে আরও বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য আমির হোসেন আমু, তোফায়েল আহমেদ, সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মোহাম্মদ নাসিম, মতিয়া চৌধুরী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, কার্যনির্বাহী সদস্য মির্জা আজম, ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ দক্ষিণ ও উত্তরের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ ও সাদেক খান, যুবলীগ চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী, যুব মহিলা লীগের সভাপতি নাজমা আকতার, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মোল্লা মো. আবু কাওসার, তাঁতী লীগের সাধারণ সম্পাদক খগেন্দ্র চন্দ্র দেবনাথ এবং ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল চৌধুরী শোভন।

প্রিয় সংবাদ/নোমান/কামরুল

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...