চলতি বিপিএলে সিলেট সিক্সার্সের হয়ে খেলছেন সাব্বির রহমান। ছবি: প্রিয়.কম

ছয় মাস নয়, সাব্বিরের শাস্তি তিন মাস!

নিউজিল্যান্ড এবং বিশ্বকাপের কথা মাথায় রেখে সাব্বিরের শাস্তি তিন মাস মওকুফ করেছে বিসিবি।

শান্ত মাহমুদ
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২৩ জানুয়ারি ২০১৯, ০১:৫১ আপডেট: ২৩ জানুয়ারি ২০১৯, ০২:০১
প্রকাশিত: ২৩ জানুয়ারি ২০১৯, ০১:৫১ আপডেট: ২৩ জানুয়ারি ২০১৯, ০২:০১


চলতি বিপিএলে সিলেট সিক্সার্সের হয়ে খেলছেন সাব্বির রহমান। ছবি: প্রিয়.কম

(প্রিয়.কম) দেশি-বিদেশি তারকা ক্রিকেটারদের নিয়ে ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি আসর বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) প্রায় জমে উঠেছে। ক্রিকেটমোদীদের নজর এখন এদিকেই। কিন্তু বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের দৃষ্টি আগামী ফেব্রুয়ারির নিউজিল্যান্ড সফরে। এই সফরকে সামনে রেখে বুধবার দল ঘোষণা করবে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। এই দলে দেখা যেতে পারে পেসার তাসকিন আহমেদকে। এমনকি দলে রাখা হতে পারে সাব্বির রহমানকেও।

তাসকিনের ফেরা নিয়ে আলোচনা না থাকলেও সাব্বিরের দলে অন্তর্ভুক্তির ব্যাপারটি শোরগোল পাকাচ্ছে। কারণ শৃঙ্খলাভঙ্গের কারণে গত সেপ্টেম্বরে ছয় মাসের জন্য তাকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ করেছিল বিসিবি। যে শাস্তির মেয়াদ শেষ হবে আগামী মার্চের শুরুতে। যে কারণেই প্রশ্ন উঠছে, ফেব্রুয়ারিতে তাহলে বাংলাদেশ দলের হয়ে কীভাবে খেলবেন সাব্বির!

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সাব্বিরের শাস্তি আসলে তিন মাস। যার মেয়াদ শেষ হয়েছে গত ৩১ ডিসেম্বর। এমনটা জানিয়েছেন জাতীয় দলের প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু। বিসিবির ডিসিপ্লিনারি কমিটি থেকে নির্বাচকদের এমনই জানানো হয়েছে। বিসিবি সূত্রে জানা গেছে, নিউজিল্যান্ড এবং বিশ্বকাপের কথা মাথায় রেখে সাব্বিরের শাস্তি তিন মাস মওকুফ করা হয়েছে। অর্থাৎ গত ৩১ ডিসেম্বর ডানহাতি এই ব্যাটসম্যানের শাস্তির মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে। বাংলাদেশ দলের হয়ে খেলতে তাই তার কোনো বাধা নেই।

সাব্বিরের শাস্তির ব্যাপারটি নতুন করে আলোচনায় এসেছে মূলত বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজার করা মন্তব্যের কারণে। রংপুর রাইডার্সকে নেতৃত্ব দেওয়া মাশরাফি মঙ্গলবার বিপিএলের ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে জানান, টি-টোয়েন্টি এই আসরে ভালো করলে নিউজিল্যান্ড সফরে দলে থাকতেও পারেন সাব্বির। এ সময় তাসকিন আহমেদ, শফিউল ইসলামদের দলে থাকার সম্ভাবনা নিয়েও কথা বলেন তিনি।

বিপিএলে নিজের দেখা দেশি ক্রিকেটারদের পারফরম্যান্স নিয়ে বলতে গিয়ে তাসকিন-শফিউল-সাব্বিরদের নাম উল্লেখ করেন ওয়ানডে অধিনায়ক। এই তিন ক্রিকেটারকে নিয়ে তিনি বলেন, ‘আমার মনে হয় তাসকিন ভালো করছে, শফিউল ভালো করছে। একটা ম্যাচে সাব্বির ভালো করেছে, ও যদি এখন পারফর্ম করে যেতে পারে। কিছু জায়গা আছে, এরা যদি ভালো করে সুযোগ থাকবে। টুর্নামেন্টের আরও তো বাকি আছে।’

তবে সিলেট সিক্সার্সের হয়ে বিপিএলের ৭ ম্যাচে ১৪১ রান করা সাব্বির মাত্র একটি ইনিংসে নিজের সহজাত ক্রিকেট খেলতে পেরেছেন। ৫১ বলে ৮৫ রানের একটি ইনিংস দিয়েই তাকে বিবেচনা করা ঠিক হবে কি না? জবাবে মাশরাফি বলেছেন, ‘দলে আসার কথা বলছি না। টপ অর্ডার থেকে ছয় নম্বর পর্যন্ত বড় চেইঞ্জের সুযোগ আছে। হয়তো এক্সট্রা বোলার, দুইজন এক্সট্রা ব্যাটসম্যান নিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে ওদের নিয়ে যাওয়ার সুযোগ থাকতে পারে। এখানে এক্সট্রা ব্যাটসম্যানের ক্ষেত্রে সাব্বির আছে, মোসাদ্দেক আছে। ওদের মধ্যে যে ভালো করে তাদের চান্স বাড়বে।’

বিশ্বকাপ পরিকল্পনায় সাব্বির আছেন, এটা অনেকটা ‘ওপেন সিক্রেট’। তবে মাশরাফি চাওয়া, নিউজিল্যান্ড সফর থেকেই সাব্বির দলে থাকুক। বিসিবি সূত্রে জানা গেছে, সাব্বিরের ব্যাপারে সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় নির্বাচকদের নিয়ে আলোচনায় বসেছিলেন বিসিবির নীতি-নির্ধারকরা।

এ ছাড়া মঙ্গলবার খুলনা-রংপুর ম্যাচের পর পুরস্কার বিতরণীর আগে মাশরাফির সঙ্গে আলোচনা করতে দেখা গেছে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনকে। যেহেতু ওয়ানডে অধিনায়ক সাব্বিরকে দলে চান আর নিষেধাজ্ঞাও উঠে গেছে, তাই নিউজিল্যান্ড সফরের জন্য ঘোষিত দলে সাব্বিরকে দেখা যেতে পারে।

গত বছরের জুলাইয়ে উইন্ডিজ সফর চলাকালীন ফেসবুকে এক সমর্থককে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে শাস্তির খড়গে পড়েন সাব্বির। এরপর ১ সেপ্টেম্বর শুনানী শেষে সাব্বিরের শাস্তির ব্যাপারে বিসিবির পরিচালক ইসমাইল হায়দার মল্লিক সংবাদমাধ্যমকে বলেছিলেন, ‘সাব্বিরের শুনানিটা ছিল মূলত ফেসবুকের ঘটনার কারণে। তার আগের নানা কারণের জন্য শাস্তি তো তাকে দেওয়াই হয়েছিল। তার নতুন শাস্তি হলো, সে ছয় মাস আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলতে পারবে না।’

প্রিয় খেলা/শান্ত মাহমুদ