স্ট্র্যাটেজিক টাইম আউটের সময় ঘটে এই ঘটনা। ছবি: সংগৃহীত

সাকিবকে কেন ধাক্কা দিয়েছিলেন ভিক্টোরিয়ান্স কোচ সালাউদ্দিন

কি হয়েছিল আসলে সাকিব-সালাউদ্দিনের মধ্যে? এ নিয়ে ধোঁয়াশার মধ্যেই অনেকে ব্যাপারটাকে গুরুতর ভেবে সমালোচনা শুরু করেন।

সৌরভ মাহমুদ
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ২৩ জানুয়ারি ২০১৯, ০৯:১৮ আপডেট: ২৩ জানুয়ারি ২০১৯, ০৯:১৮
প্রকাশিত: ২৩ জানুয়ারি ২০১৯, ০৯:১৮ আপডেট: ২৩ জানুয়ারি ২০১৯, ০৯:১৮


স্ট্র্যাটেজিক টাইম আউটের সময় ঘটে এই ঘটনা। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) ঘটনার সূত্রপাত একটি ওয়াইড বলকে কেন্দ্র করে। তখন সপ্তম ওভারের খেলা চলছিল। কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের স্পিনার মেহেদি হাসানের করা বলটি ঢাকা ডায়নামাইটসের ব্যাটসম্যান দারুস রাসুলের ব্যাট ছুঁয়ে মাটিতে পড়ে উইকেটরক্ষক এনামুল হক বিজয়ের হাতে যায়। আম্পায়ার বলটি ওয়াইড ঘোষণা করেন।

আম্পায়ারের এমন সিদ্ধান্তে বিস্মিত হয়ে যায় কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। এনামুল-মেহেদীসহ অধিনায়ক ইমরুল কায়েস এ সময় আম্পায়ারকে বোঝাতে চেষ্টা করেন যে বলটি ব্যাটসম্যানের ব্যাট ছুঁয়েছিল। টেলিভিশন রিপ্লেতেও স্পষ্ট দেখা গেছে বল ব্যাটে লেগে গতি পরিবর্তন হয়ে যাচ্ছে অন্যদিকে। তবু নিজের সিদ্ধান্তে অটল ছিলেন আম্পায়ার।

ওই আম্পায়ার জানান, বোলার মেহেদী ফলো থ্রোতে আম্পায়ারের সামনে দাঁড়ানোয় তিনি বলটা ঠিকমতো দেখতে পাননি।এর খানিক পর স্ট্র্যাটেজিক টাইম আউটের সময় কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের কোচ মোহাম্মদ সালাউদ্দিন মাঠে ঢুকে আম্পায়ারের কাছে এমন ওয়াইড দেওয়ার কারণ জানতে চান।

তখন আম্পায়ারদের কাছে ছুটে যান উইকেটে থাকা ঢাকা ডায়নামাইটসের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। তিনিও কিছু একটা বলছিলেন। এ সময় সালাউদ্দিন তাকে হাত দিয়ে ঠেলে সরিয়ে বাইরে চলে যান। টিভি পর্দায় এই দৃশ্য দেখার পরই তুমুল আলোচনা শুরু হয় সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলোতে।

টিভি পর্দায় এমন দৃশ্য দেখে তৈরি হয় ধোঁয়াশা। ছবি: সংগৃহীত

কি হয়েছিল আসলে সাকিব-সালাউদ্দিনের মধ্যে? এ নিয়ে ধোঁয়াশার মধ্যেই অনেকে ব্যাপারটাকে গুরুতর ভেবে সমালোচনা শুরু করেন। আবার কেউ কেউ বলছিলেন, এটা কেবলই গুরু-শিষ্যের খুনসুটি। ম্যাচ শেষে কুমিল্লা অধিনায়ক ইমরুল সংবাদ সম্মেলনে আসলে বিষয়টি সেখানেও ওঠে আসে। ইমরুল জানান, বিষয়টি গুরুতর কিছু নয়।

সাকিব ও সালাউদ্দিন দুজনই ছিলেন ‘ফানি’ মুডে। একে অন্যের সঙ্গে নাকি মজা করেছেন তারা। টিভি পর্দায় শব্দ ছাড়া কেবল ফুটেজ যাওয়ায় তৈরি হয়েছে ভুল বোঝাবুঝি। এ ব্যাপারে ঢাকার অধিনায়ক সাকিব কোনো অভিযোগও করেননি।

ইমরুলের ভাষ্য, ‘ঘটনাটা খুবই ফানি একটা জিনিস। আপনারা সবাই জানেন সালাহউদ্দিন স্যার সাকিবের ছোটবেলার কোচ। কোচ হিসেবে ওর সঙ্গে ফান করেছে, সিরিয়াস কিছু না। সাকিবও হাসছিল। ইয়ার্কি মারতেছিল। সাকিব অন্য কিছু নিয়ে আম্পায়ারের সঙ্গে কথা বলছিল, সালাউদ্দিন স্যারকে নিয়ে নয়। সাকিবও সালাউদ্দিন স্যারের সঙ্গে ফাজলামো করছিল। আমি পাশেই ছিলাম।’

সংবাদমাধ্যমে সাকিবের ‘গুরু’ হিসেবে অনেকবারই এসেছে সালাউদ্দিনের নাম। দেশের অন্যতম সেরা এই কোচ অনেক ক্রিকেটার তৈরি করেছেন নিজের হাতে। আজকের সাকিব গড়ে উঠেছেন তার হাতেই। কেবল সাকিব নন, নাসির হোসেন ও মুমিনুল হকও তার সরাসরি শিষ্য। অফফর্মে থাকলে প্রায়শই তাদের সালাউদ্দিনের শরণাপন্ন হতে দেখা যায়।

প্রিয় খেলা/রুহুল

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...