সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা জানানোর জন্য বুলবুলের মরদেহ শহিদ মিনারে রাখা হয়েছে। ছবি: সংগৃহীত

শহিদ মিনারে বুলবুলের মরদেহ

শহিদ মিনারে শ্রদ্ধা জানানো শেষে লাশ নেওয়া হবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদে।

আশরাফ ইসলাম
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ২৩ জানুয়ারি ২০১৯, ১১:৪৪ আপডেট: ২৩ জানুয়ারি ২০১৯, ১১:৫১
প্রকাশিত: ২৩ জানুয়ারি ২০১৯, ১১:৪৪ আপডেট: ২৩ জানুয়ারি ২০১৯, ১১:৫১


সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা জানানোর জন্য বুলবুলের মরদেহ শহিদ মিনারে রাখা হয়েছে। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) সর্বসাধারণের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে নেওয়া হয়েছে মুক্তিযোদ্ধা, বরেণ্য গীতিকার, সুরকার ও সংগীত পরিচালক আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুলের লাশ। সেখানে মুক্তিযোদ্ধা এ শিল্পীকে রাষ্ট্রীয়ভাবে গার্ড অব অনার প্রদান করা হবে।

২৩ জানুয়ারি, বুধবার বেলা ১১টার দিকে বুলবুলের লাশ শহিদ মিনারে নেওয়া হয়। দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত তার মরদেহে শ্রদ্ধা নিবেদন করবে সর্বস্তরের জনসাধারণ। 

শহিদ মিনারে শ্রদ্ধা জানানো শেষে লাশ নেওয়া হবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদে। মসজিদ প্রাঙ্গণে বাদ জোহর অনুষ্ঠিত হবে তার জানাজা। এরপর বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে তাকে সমাহিত করা হবে। 

২২ জানুয়ারি, মঙ্গলবার ভোর সোয়া ৪টার দিকে আফতাব নগরের নিজ বাসায় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান বুলবুল। গত প্রায় এক বছর ধরে নানা অসুস্থতায় ভোগা এই সুরকারের বয়স হয়েছিল ৬৩ বছর। দীর্ঘদিন ধরে তিনি হৃদযন্ত্রের জটিলতায় ভুগছিলেন।

ইউনিভার্সেল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. আশীষ চক্রবর্তী জানিয়েছেন, আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। তাকে সকাল সোয়া ৬টা নাগাদ হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। ধারণা করা হচ্ছে, তিনি ভোর সাড়ে ৫টার দিকে মারা গেছেন।

আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল। ছবি: সংগৃহীত

আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল তিন শতাধিক চলচ্চিত্রের সংগীত পরিচালনা করেছেন। চলচ্চিত্রের সংগীত পরিচালনা করে দুবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন।

তার জন্ম ১৯৫৭ সালের ১ জানুয়ারি ঢাকায়। ১৯৭১ সালে মাত্র ১৫ বছর বয়সে বুলবুল কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে রাইফেল হাতে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন রণাঙ্গনে। মুক্তিযুদ্ধের প্রত্যক্ষ স্মৃতি বিস্মৃতি নিয়ে বহু জনপ্রিয় গান লিখেছেন এবং সুর করেছেন।

প্রিয় সংবাদ/

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...