খালেদা জিয়া। ফাইল ছবি

আদালতে দেওয়া খালেদা জিয়ার আলোচিত বক্তব্য

আদালত তো এইভাবেই নির্মিত। নিরাপত্তার স্বার্থে তাকে ওই জায়গায় বসানো হয়েছে।

মোক্তাদির হোসেন প্রান্তিক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২৪ জানুয়ারি ২০১৯, ১৭:৪৪ আপডেট: ২৪ জানুয়ারি ২০১৯, ১৭:৪৪
প্রকাশিত: ২৪ জানুয়ারি ২০১৯, ১৭:৪৪ আপডেট: ২৪ জানুয়ারি ২০১৯, ১৭:৪৪


খালেদা জিয়া। ফাইল ছবি

(প্রিয়.কম) গ্যাটকো মামলার চার্জ গঠনের শুনানিতে আদালতে হাজিরা দিতে আসা বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বলেছেন, ‘আমি তো কিছুই দেখছি না। আমি তো আপনাকে (বিচারক) দেখছি না। এই দেয়াল তো এর আগে ছিল না, এখন কোথা থেকে এলো? আমি এখানে থাকব না। আমি এখান থেকে চলে যাব।’

২৪ জানুয়ারি, বৃহস্পতিবার আদালতে প্রবেশ করার পর বিচারককে উদ্দেশ করে খালেদা জিয়া এসব কথা বলেন। আদালতে যেখানে তাকে বসানো হয়, তা নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি এসব কথা বলেন। এরপর বিচারক বলেন, ‘বসার জন্য আগামীতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

এ সময় খালেদা জিয়ার আইনজীবী এ জে মোহাম্মদ আলী, আমিনুল ইসলাম ও মাসুদ আহমেদ তালুকদার বিচারককে বলেন, ‘কেন তাকে পৃথক করছেন? আপনি সিদ্ধান্ত দিয়ে তাকে সামনে নিয়ে আসেন। তাকে পৃথক রাখার কোনো সুযোগ নেই।’

ফ্লোর নিয়ে দুদকের আইনজীবী মোশাররফ হোসেন কাজল বলেন, ‘আদালত তো এইভাবেই নির্মিত। নিরাপত্তার স্বার্থে তাকে ওই জায়গায় বসানো হয়েছে।’

এ সময় বিচারক বলেন, ‘আমি তো আজ নতুন। বিষয়টা আমি দেখব। আজ এখানেই থাকুক।’

এর আগেও আদালতের স্থান নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ খালেদা জিয়া বলেন, ‘সাজা দিতে চাইলে দিয়ে দেন। আমি আর এ আদালতে আসব না। এখানে আমার আইনজীবীদের বসার জায়গা নাই। এভাবে যদি ট্রায়াল চলে, তাহলে আমি আর আসতে পারব না। আমাকে যা সাজা দেওয়ার দিয়ে দেন। এখানে ওপেন ট্রায়াল হচ্ছে না।’

৩ জানুয়ারি নাইকো দুর্নীতি মামলায় ঢাকার পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগারে অস্থায়ী বিশেষ জজ-৯-এর বিচারক শেখ হাফিজুর রহমানের আদালতে এসব কথা বলেন তিনি।

তারও আগে ২৯ অক্টোবর আদালতে আনা হলে খালেদা জিয়া বলেন, ‘এখানে এত লোকজন কেন? পুলিশ কমাতে বলেন। এত পুলিশ থাকলে আমার আইনজীবীরা কীভাবে আসবে? জজ সাহেবের সামনে এত পুলিশ কীভাবে থাকে?’

‘এত লোক থাকলে তাদের বসতে দিতে হবে। আমি বলতে চাই, এ রকম সংকীর্ণ জায়গায় কোর্ট চলতে পারে না। আর যদি এই জায়গায় কোর্ট চলে, তাহলে আমি আর আসব না। যা সাজা দেওয়ার দিয়ে দেবেন। আমার লোকজন আসতে পারে না। এর আগেও আমি বলেছি এ কথা। কিন্তু কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।’

তখন আদালত বলে, ‘আগামী কোর্টে পর্যাপ্ত ব্যবস্থা করা হবে।’ বিএনপির চেয়ারপারসন বলেন, ‘ব্যবস্থাই শুধু করার কথা বলা হয়, কিন্তু নেওয়া হয় না।’

বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দুর্নীতির মামলার বিচারের জন্য ঢাকা পুরনো কারাগারের ভেতরেই আদালত বসানো হয়েছিল। কিন্তু খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা এর প্রতিবাদ জানিয়ে মামলার শুনানিতেই অংশ নেননি।

খালেদা জিয়াকে ওই আদালতে হাজির করা হলে তিনি জানান, অসুস্থ হওয়ার কারণে তার পক্ষে বারবার আদালতে আসা সম্ভব নয়। আদালতে ন্যায়বিচার পাওয়া নিয়েও সংশয় প্রকাশ করে তিনি বলেন, ‘আমি আর এখানে আসতে পারব না। আমার মেডিকেল রিপোর্টগুলো এখানে জমা আছে। আপনারা দেখেন রিপোর্টে কী আছে, আমার অবস্থাটা কী রকম। আমাকে জোর করে এখানে আনা হয়েছে। আমি আর আসব না।’

‘এখানে ন্যায় বিচার নেই। যা ইচ্ছা তাই সাজা দিতে পারেন। যত ইচ্ছা সাজা দিতে পারেন। আমি অসুস্থ। আমি বারবার আদালতে আসতে পারব না।’

এদিকে সদ্য সমাপ্ত একাদশ সংসদ নির্বাচন নিয়ে কারাবন্দী বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া এখন কিছু বলবেন না বলে জানিয়েছেন। ৩ জানুয়ারি মামলায় হাজিরা শেষে তাকে কারাগারের ভেতরে নিয়ে যাওয়ার সময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

হাজিরা শেষে খালেদা জিয়া আদালত কক্ষেই কিছু সময় তার আইনজীবীদের সঙ্গে কথা বলেন। পরে তাকে হুইলচেয়ারে করে নিয়ে যাওয়ার সময় সম্প্রতি হয়ে যাওয়া একাদশ জাতীয় নির্বাচন নিয়ে তার কিছু বলার আছে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘নির্বাচন নিয়ে এখন কিছু বলব না।’

প্রিয় সংবাদ/আজাদ চৌধুরী

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...