মেসি-নেইমারদের টুর্নামেন্টে খেলতে দেখা যাবে কাতার ও জাপানকে। ছবি: সংগৃহীত

এবারের কোপা আমেরিকায় খেলবে কাতার-জাপান, কিন্তু কীভাবে?

বাইরের অঞ্চলের দল হয়েও কোপা আমেরিকায় খেলতে বিশেষ কোনো শর্ত পূরণ করতে হয় না।

শান্ত মাহমুদ
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২৫ জানুয়ারি ২০১৯, ২২:২৩ আপডেট: ২৫ জানুয়ারি ২০১৯, ২২:৩১
প্রকাশিত: ২৫ জানুয়ারি ২০১৯, ২২:২৩ আপডেট: ২৫ জানুয়ারি ২০১৯, ২২:৩১


মেসি-নেইমারদের টুর্নামেন্টে খেলতে দেখা যাবে কাতার ও জাপানকে। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) কোপা আমেরিকা; ল্যাটিন অঞ্চলের সবচেয়ে জমজমাট ফুটবল আসর। দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী আর্জেন্টিনা-ব্রাজিল ছাড়াও এই আসরে অংশ নেয় উরুগুয়ে, প্যারাগুয়ে, চিলি, কলম্বিয়ার মতো ফুটবল পরাশক্তিরা। ১৯৯৩ সালের পর থেকে কনকাকাফ অঞ্চলের দলগুলোও সুযোগ পাচ্ছে ল্যাটিন অঞ্চলের সবচেয়ে মর্যাদার এই টুর্নামেন্টে খেলার। এবার এই আসরে খেলতে যাচ্ছে এশিয়ার দুই দল কাতার ও জাপান।

লিওনেল মেসি-নেইমারদের এই টুর্নামেন্টে কাতার-জাপান কীভাবে? এই পশ্নের উত্তর জানার আগে জেনে নেওয়া যাক, এমন ঘটনা এবারই প্রথম কি না। কোপা আমেরিকায় ল্যাটিন অঞ্চলের বাইরের দলের অংশগ্রহণ এবারই প্রথম নয়। ১৯৯৩ সাল থেকে কোপা আমেরিকা খেলে আসছে কনকাকাফ অঞ্চলের দলগুলো। ওই আসর থেকে শুরু হয় অতিথি দলের অংশগ্রহণও।

এশিয়া অঞ্চল থেকে এবারের আসর খেলতে যাওয়া জাপানেরই অভিজ্ঞতা আছে এই টুর্নামেন্টে খেলার। অতিথি দল হিসেবে ১৯৯৯ সালে কোপা আমেরিকায় খেলেছিল ব্লু সামুরাইরা। তবে আরব অঞ্চলের প্রথম দেশ হিসেবে এই আসরে খেলতে যাচ্ছে ২০২২ বিশ্বকাপের আয়োজক কাতার।

বাইরের অঞ্চলের দল হয়েও কোপা আমেরিকায় খেলতে বিশেষ কোনো শর্ত পূরণ করতে হয় না। মূলত আয়োজদের আমন্ত্রণে আগ্রহী দলগুলো এই আসরে অংশ নেয়। একইভাবে কাতার ও জাপান এবারের কোপায় খেলতে যাচ্ছে। ব্রাজিলে অনুষ্ঠেয় এবারের আসরটি ১৬ দলের হওয়ার কথা ছিল। এশিয়া অঞ্চল থেকে তিনটি দল, কনকাকাফ অঞ্চল থেকে তিনটি এবং ল্যাটিন অঞ্চলের ১০ দলের অংশ নেওয়ার কথা ছিল এই আসরে।

কিন্তু আয়োজকরা পরে সিদ্ধান্ত বদলায়। ১৯৯৩ সাল থেকে অনুষ্ঠিত হয়ে আসা নিয়মেই ১২ দল নিয়ে কোপা আমেরিকার এবারের আসর আয়োজন করার সিদ্ধান্ত নেয় তারা। সঙ্গে অতিথি দল হিসেবে রাখা হয়েছে কাতার ও জাপানকে। তবে এবারের আসরে কনকাকাফ অঞ্চলের কোনো দল অংশ নিচ্ছে না। যা ১৯৯৩ সালের পর প্রথম ঘটনা।

আগামী ১৪ জুন শুরু হতে যাওয়া এই আসরের গ্রুপ ও ফিকশ্চার ইতোমধ্যে প্রকাশ করা হয়েছে। ‘এ’ গ্রুপে আয়োজক ব্রাজিলের সঙ্গে আছে বলিভিয়া, ভেনেজুয়েলা ও পেরু। ‘ব্রি’ গ্রুপে আর্জেন্টিনার সঙ্গী কলম্বিয়া, প্যারাগুয়ে ও কাতার। ‘সি’ গ্রুপে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন চিলির বিপক্ষে লড়বে উরুগুয়ে, ইকুয়েডর ও জাপান।

প্রিয় খেলা/শান্ত মাহমুদ