দক্ষিণ আফ্রিকার এই দুই ব্যাটসম্যানের ব্যাটে জয়ের খুব কাছে পৌঁছে যায় রংপুর রাইডার্স। ছবি: প্রিয়.কম

দুই প্রোটিয়া যেন রংপুরের রক্ষাকর্তা

গেইল না পারলেও আরো একবার পেরেছেন রাইলি রুশো-এবি ডি ভিলিয়ার্সরা।

শান্ত মাহমুদ
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২৯ জানুয়ারি ২০১৯, ২১:৫১ আপডেট: ২৯ জানুয়ারি ২০১৯, ২২:০৩
প্রকাশিত: ২৯ জানুয়ারি ২০১৯, ২১:৫১ আপডেট: ২৯ জানুয়ারি ২০১৯, ২২:০৩


দক্ষিণ আফ্রিকার এই দুই ব্যাটসম্যানের ব্যাটে জয়ের খুব কাছে পৌঁছে যায় রংপুর রাইডার্স। ছবি: প্রিয়.কম

(প্রিয়.কম) ক্রিস গেইল আরো একবার হতাশ হয়ে সাজঘরে। আরো একবার হতাশা ছুঁয়ে গেল রংপুর রাইডার্স শিবিরে। তবে এই হতাশা ম্যাচ হারের নয়, ক্যারিবীয় ব্যাটিং দানবকে রুদ্রমূর্তি চেহারায় না দেখতে পারার। গেইল না পারলেও আরো একবার পেরেছেন রাইলি রুশো-এবি ডি ভিলিয়ার্সরা। যাদের ব্যাটে দারুণ এক জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ল মাশরাফি বিন মুর্তজার দল। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) মঙ্গলবার রাজশাহী কিংসকে ৬ উইকেটে হারিয়ে শেষ চারে ওঠা প্রায় নিশ্চিত করে রাখল ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা।

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে টস জিতে আগে ব্যাটিং করতে নামা রাজশাহী কিংস টি-টোয়েন্টির মেজাজে রান তুলতে পারেনি। যে কারণে বড় সংগ্রহও জমা হয়নি তাদের স্কোরকার্ডে। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেটে ১৪১ রান তোলে মেহেদী হাসান মিরাজের দল। জবাবে প্রায় সব ম্যাচে ত্রাতা হয়ে ওঠা রাইলি রুশো ও এবি ডি ভিলিয়ার্সের ব্যাটে ৬ উইকেটের জয় তুলে নেয় রংপুর রাইডার্স।

বিপিএলে ১১ ম্যাচে রংপুরের এটা সপ্তম জয়। এই জয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে উঠে এসেছে মাশরাফি বিন মুর্তজার দল। রংপুরের জয়ে চার ঘণ্টাও শীর্ষে থাকা হলো না প্রথমবারের মতো পয়েন্ট টেবিলের এক নম্বর জায়গা দখল করা কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের।

জয়ের লক্ষ্যে ব্যাটিং করতে নেমে বরাবরের মতো শুরুতেই হতাশ হতে হয়েছে রংপুরকে। এই ম্যাচেও দলের হয়ে কিছুই করতে পারেননি প্রায় ফুরোতে বসা ক্যারিবীয় ব্যাটিং দানব ক্রিস গেইল। এদিন ১৪ বলে ২টি চারে ১০ রান করে থামেন তিনি। গেইলের বিদায়ের পর মনে হচ্ছিল সেদিনের মতো জুটি বেঁধে আবারো ঝড় তুলতে যাচ্ছেন অ্যালেক্স হেলস ও বিপিএলে মুড়ি-মুরকির মতো রান করে যাওয়া রাইলি রুশো।  

১৬ রান করে হেলস বিদায় নেওয়ায় সেটা হয়নি। তবে রুশো ঠিকই জুটি বেঁধেছেন। এবারের মিশনে পাশে পেয়েছেন জাতীয় দলে এক সময়ের সতীর্থ ৩৬০ ডিগ্রি খ্যাত ডি ভিলিয়ার্সকে। এই দুই প্রোটিয়া মিলেই রংপুরের জয় প্রায় নিশ্চিত করে ফেলেন। ডি ভিলিয়ার্সের সঙ্গে ৭১ রানের জুটি গড়ার পথে বিপিএলের পঞ্চম হাফ সেঞ্চুরি তুলে নেন রুশো।

দলকে জয়ের খুব কাছে পৌঁছে দিয়ে সাজঘরে ফেরা রুশো ৪৩ বলে ৫টি চার ও ২টি ছক্কায় ৫৫ রানের দারুণ এক ইনিংস খেলেন। এক সেঞ্চুরি ও ৫ হাফ সেঞ্চুরিতে ৫১৪ রান নিয়ে সর্বোচ্চ রান সংগ্রহকের তালিকার শীর্ষে থাকা বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান মঙ্গলবারের ইনিংসটি দিয়ে অন্যান্যদের সঙ্গে ব্যবধান আরো বাড়িয়ে নিলেন।

রুশো ফেরার পর থামেন ডি ভিলিয়ার্সও। এরআগে ২৭ বলে একটি চার ও ৩টি ছক্কায় ৩৭ রান করেন মারকাটারি এই ব্যাটসম্যান। বাকি কাজটুকু সেরেছেন নাহিদুল ইসলাম ও মোহাম্মদ মিঠুন। রাজশাহীর অধিনায়ক মিরাজ, আরাফাত সানি, কাইস আহমেদ ও কামরুল ইসলাম রাব্বি একটি করে উইকেট নেন।  

এরআগে ব্যাটিংয়ে নেমে পুরো ইনিংসে ঝিমিয়ে ঝিমিয়ে ব্যাটিং করেছে রাজশাহী কিংস। ব্যাট হাতে ভালো শুরু করতে না পারায় শেষপর্যন্তও আর ছন্দ খুঁজে পায়নি মেহেদী হাসান মিরাজের দল। দলীয় ১৮ রানে প্রথম উইকেট হারানো দলটি ১০০ পেরোনোর আগেই হারায় ৬ উইকেট। এর মধ্যে বলার মতো রান করতে পেরেছেন কেবল লরি ইভান্স। ডানহাতি এই ইংলিশ ব্যাটসম্যান ৩১ বলে ৫টি চারে ইনিংস সেরা ৩৫ রান করেন।

এরআগে দুই ওপেনার জনসন চার্লস ১২ ও সৌম্য সরকার ১৪ রান করেন। লরি ইভান্স ফেরার পর শেষের দিকের কয়েকজন ব্যাটসম্যান চেষ্টা করেও নিজেদের ইনিংস বড় করতে পারেননি। প্রোটিয়া অলরাউন্ডার ক্রিশ্চিয়ান জঙ্কার ১৬, ফজলে মাহমুদ রাব্বি ১৮ ও আফগান লেগ স্পিনার কাইস আহমেদ ২২ রান করে রাজশাহীকে ১৪১ রানে পৌঁছে দেন। ম্যাচসেরা ফরহাদ রেজা রংপুরের হয়ে সর্বোচ্চ ৩টি উইকেট নেন। এ ছাড়া নাজমুল ইসলাম অপু ও শহিদুল ইসলাম ২টি করে উইকেট নেন।

প্রিয় খেলা/শান্ত মাহমুদ

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...