দণ্ডবিধির ৪৯৭ ধারাটি বৈষম্যমূলক ও সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক। প্রতীকী ছবি

পরকীয়ায় সাজা বৃদ্ধি চেয়ে রিট

পরকীয়ার অপরাধে সাজা বৃদ্ধি এবং দণ্ডবিধির ৪৯৭ ধারার সংশোধন চেয়ে হাইকোর্টে একটি রিট আবেদন করা হয়েছে।

আমিনুল ইসলাম মল্লিক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ২১:৩১ আপডেট: ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ২১:৩১
প্রকাশিত: ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ২১:৩১ আপডেট: ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ২১:৩১


দণ্ডবিধির ৪৯৭ ধারাটি বৈষম্যমূলক ও সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক। প্রতীকী ছবি

(প্রিয়.কম) পরকীয়ার অপরাধে সাজা বৃদ্ধি এবং দণ্ডবিধির ৪৯৭ ধারার সংশোধন চেয়ে হাইকোর্টে একটি রিট আবেদন করা হয়েছে।

১১ ফেব্রুয়ারি, সোমবার সুপ্রিম কোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় আবেদনটি দায়ের করেন আইনজীবী ইশরাত হাসান।

আইন মন্ত্রণালয়ের সচিব, সংসদ সচিব, অতিরিক্ত সচিব ও সংসদের (আইন) সহকারী সচিবকে রিটে বিবাদী করা হয়েছে। এর আগে গত ৬ ফেব্রুয়ারি, মঙ্গলবার রেজিস্ট্রি ডাকযোগে সংশ্লিষ্টদের এ নোটিশ পাঠানো হয়। সেই নোটিশের জবাব না পেয়ে হাইকোর্টে রিট আবেদনটি দায়ের করা হয়েছে।

জানতে চাইলে রিটকারী আইনজীবী বলেন, ‘দণ্ডবিধির ৪৯৭ ধারাটি বৈষম্যমূলক ও সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক। এই ধারায় নারী-পুরুষের মাঝে বৈষম্য করা হয়েছে। এতে নারীকে অভিযুক্ত করা যাবে না বলে একপক্ষীয় নিয়ম করা হয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘দণ্ডবিধি আইনে পরকীয়া বলতে বোঝানো হয়েছে, কোনো নারী যদি তার স্বামীর অনুমতি ছাড়া অন্য কোনো পুরুষের সঙ্গে মিলিত হয়, সে ক্ষেত্রে তৃতীয় পুরুষটিকে অভিযুক্ত করা যাবে, কিন্তু ওই নারীকে অভিযুক্ত করা যাবে না।’

‘আবার তৃতীয় পুরুষের বিরুদ্ধে নারীর স্বামী ছাড়া আর কেউ অভিযোগ তুলতে পারবে না বলেও আইনে উল্লেখ আছে, যা বৈষম্যমূলক। পরকীয়ার জেরে স্বামী-স্ত্রীর মাঝে সম্পর্কের অবনতি এবং সে থেকে অনেক অপরাধের সৃষ্টি হচ্ছে।’

প্রিয় সংবাদ/আজাদ চৌধুরী

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...