জাতীয় দলের পেসার কামরুল ইসলাম রাব্বি ও তার গ্র্যাজুয়েট স্ত্রী তাসনিয়া আনোয়ার। ছবি: সংগৃহীত

গ্র্যাজুয়েট হলেন স্ত্রী, বাঁধভাঙা উচ্ছ্বাস জাতীয় দলের এই পেসারের

তাসনিয়া আনোয়ার জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাকাউন্টিং বিভাগের ছাত্রী।

প্রিয় ডেস্ক
ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশিত: ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৯:০৯ আপডেট: ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ২৩:৩২
প্রকাশিত: ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৯:০৯ আপডেট: ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ২৩:৩২


জাতীয় দলের পেসার কামরুল ইসলাম রাব্বি ও তার গ্র্যাজুয়েট স্ত্রী তাসনিয়া আনোয়ার। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) ২২ গজের ক্রিকেটীয় লড়াইতে খেলোয়াড়রা পালন করেন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা। কিন্তু তাদেরও রয়েছে নিজস্ব জীবন। যেখানে তাদের ভাবনাতে ক্রিকেটের পাশাপাশি থাকে স্ত্রী-পরিবারও। এই পরিবার কিংবা স্ত্রীর কোনো উল্লেখযোগ্য সাফল্য খুশির উপলক্ষ এনে দেয় ওই ক্রিকেটারকে।

এই যেমন কামরুল ইসলাম রাব্বির কথাই বলা যায়। সম্প্রতি তার স্ত্রী তাসনিয়া আনোয়ার গ্র্যাজুয়েট হয়েছেন। স্ত্রীর এমন সাফল্যে যারপরনাই আনন্দিত স্বামী জাতীয় দলের তারকা পেসার কামরুল ইসলাম রাব্বি।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিবিএ করেছেন তাসনিয়া আনোয়ার। তার বিষয় ছিল অ্যাকাউন্টিং। ১২ ফেব্রুয়ারি, মঙ্গলবার গ্র্যাজুয়েট হওয়া প্রসঙ্গে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে একটি পোস্ট করেন তাসনিয়া।

ওই পোস্টে কামরুল ইসলাম রাব্বির স্ত্রী লিখেছেন, ‘জীবনের ব্যস্ততম অধ্যায়ের পরিসমাপ্তি ঘটল। কোনো সেশনজট ছাড়াই সফলভাবে সম্পূর্ণ করেছি। এটা একেবারেই সহজ ছিল না! আবার অনেক বেশি কিছুও অর্জন করা হয়নি। কিন্তু আমি আজ পর্যন্ত সংগ্রাম করেছি। স্বস্তি অনুভব করছি।’

স্ত্রীর এমন অর্জনে গর্বিত স্বামী কামরুল ইসলাম রাব্বিও। রীতিমতো উচ্ছ্বাসই প্রকাশ করেছেন জাতীয় দলের এই পেসার। স্ত্রীর ওই পোস্ট শেয়ার করেছেন রাব্বি। ক্যাপশনে লিখেছেন, ‘আলহামদুলিল্লাহ। এখানেই শেষ নয়, আরও অনেক দূর যেতে হবে। আমি জানি তুমি আগামীতে আরও অনেক কিছু অর্জন করবে।’

২০০৭ সালে ‘পেসার হান্ট’ থেকে উঠে এসেছিলেন কামরুল ইসলাম রাব্বি। ১০ বছর ধরে ঘরোয়া ক্রিকেট খেলেছেন। ভালো করার পুরস্কার হিসেবে ২০১৬ সালে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলে অভিষেক হয় এই ডানহাতি পেসারের। গায়ে তোলেন সাদা পোশাক। যদিও দলে জায়গাটা সেভাবে পাকাপোক্ত করে নিতে পারেননি তিনি। খেলেছেন পাঁচটি টেস্ট, উইকেট নিয়েছেন সাতটি।

প্রিয় খেলা/আজাদ চৌধুরী