স্ত্রী উম্মে আহমেদ শিশির ও মেয়ে আলাইনা হাসান অউব্রির সঙ্গে সাকিব আল হাসান। ছবি: সংগৃহীত

‘শিশির-অউব্রিকে ছাড়া জীবনটা কল্পনাই করতে পারি না’

সাকিব আল হাসান ও উম্মে আহমেদ শিশিরের মনেও লেগেছে ভালোবাসার ছোঁয়া।

মুশাহিদ
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৪:৫৯ আপডেট: ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৪:৫৯
প্রকাশিত: ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৪:৫৯ আপডেট: ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৪:৫৯


স্ত্রী উম্মে আহমেদ শিশির ও মেয়ে আলাইনা হাসান অউব্রির সঙ্গে সাকিব আল হাসান। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) একদিন আগেই নানা আয়োজনে বরণ করে নেওয়া হয়েছে ঋতুরাজ বসন্তকে। বসন্তের এই আমেজ শেষ না হতেই এসেছে ভালোবাসা দিবস। সকল বাধা-বিপত্তিকে পাশ কাটিয়ে সবাই চায় বিশেষ দিবসের কিছুটা সময় প্রিয় মানুষের সান্নিধ্যে কাটাতে। এ নিয়ে তাদের মধ্যে নানা ধরনের প্রস্তুতিও লক্ষ্য করা যায়।

তারুণ্যের অনাবিল আনন্দ ও বিশুদ্ধ উচ্ছ্বাসের মধ্য দিয়ে অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও পালিত হচ্ছে ভালোবাসা দিবস। ভালোবাসার উৎসবে মুখরিত রাজধানী। ভালোবাসা দিবসের ছোঁয়া লেগেছে গ্রাম-বাংলার জনজীবনেও। সাকিব আল হাসানউম্মে আহমেদ শিশিরের মনেও লেগেছে ভালোবাসা দিবসের ছোঁয়া।

এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগগমাধ্যমে আবেগঘন এক স্ট্যাটাস দিয়েছেন সাকিব। সেখানে স্ত্রী ছাড়াও মেয়ে আলাইনা হাসান অউব্রির প্রতি ভালোবাসা জানিয়েছেন বিশ্বের অন্যতম সেরা এই অলরাউন্ডার।

ভেরিফাইড ফেসবুক পেজে সাকিব লিখেন, ‘আমার এবং শিশিরের দাম্পত্য জীবনের প্রায় ছয় বছর হতে চলল, সৃষ্টিকর্তার অশেষ রহমতে আমাদের জীবনে এসেছে ফুটফুটে এক সন্তান, আলাইনা। আমার পুরো জগতটাই এখন এ দুজন ভালবাসার মানুষ দিয়ে ঘেরা। তাদের ছাড়া জীবনটা কল্পনাই করতে পারি না আমি। তোমাদের দুজনকেই আমি প্রচণ্ড ভালবাসি। আমার পৃথিবীর সবচেয়ে প্রিয় এই দুজন মানুষকে জানাই ভালবাসা দিবসের শুভেচ্ছা।’

২০১২ সালের ১২ ডিসেম্বর যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী উম্মে আহমেদ শিশিরের সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন সাকিব আল হাসান। বিয়ের তিন বছরের মাথায় তারকা এই দম্পতির ঘর আলো করে আসে কন্যা আলাইনা হাসান অউব্রি। ২০১৫ সালের ৯ নভেম্বর জন্মগ্রহণ করা সাকিব-কন্যার বয়স প্রায় তিন বছর তিন মাস।

বিয়ের পর ছয় বছর পেরিয়ে গেলেও শিশিরের প্রতি সাকিবের ভালোবাসা এতটুকুও কমেনি। ভালোবাসা দিবসে প্রিয়তমা স্ত্রীকে যেন সেটাই মনে করিয়ে দিলনে এই অলরাউন্ডার।

প্রিয় খেলা/রিমন

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...