প্রতীকী ছবি

৬২ হাজার ছেড়েছে জিপি, ৪৪ হাজার জনকে বাধা বাংলালিংকের

পরিসংখ্যানে দেখা যায়, দেশের বড় তিন অপারেটরের মধ্যে সংখ্যার দিক থেকে বেশি গ্রাহক যোগ হয়েছে রবিতে।

রাকিবুল হাসান
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৫:৩৫ আপডেট: ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৫:৩৫
প্রকাশিত: ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৫:৩৫ আপডেট: ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৫:৩৫


প্রতীকী ছবি

(প্রিয়.কম) নম্বর একই রেখে অপারেটর বদল বা মোবাইল নম্বর পোর্টেবিলিটি (এমএনপি) সেবা চালুর পর গত চার মাসে (২০১৮ সালের অক্টোবর থেকে ২০১৯ সালের জানুয়ারি পর্যন্ত) সংখ্যার হিসাবে বেশি গ্রাহক হারিয়েছে জিপি বা গ্রামীণফোন

একই সঙ্গে এমএনপি সেবার মাধ্যমে অন্য অপারেটরে যেতে বেশি বাঁধা দিয়েছে বাংলালিংক

১৪ ফেব্রুয়ারি, বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) প্রকাশিত এক পরিসংখ্যানে এ তথ্য তুলে ধরা হয়।

পরিসংখ্যানে দেখা যায়, দেশের বড় তিন অপারেটরের মধ্যে সংখ্যার দিক থেকে বেশি গ্রাহক যোগ হয়েছে রবিতে।

পরিসংখ্যান অনুযায়ী, এমএনপি সেবার মাধ্যমে চার মাসে মোট এক লাখ ৩৩ হাজার ৬২১ জন ব্যবহারকারী অপারেটর বদল করেছেন। এর মধ্যে গ্রামীণফোন হারিয়েছে ৬২ হাজার ৩১৭ জন ব্যবহারকারী।

এ ছাড়া গত চার মাসে রবি ২৩ হাজার ৯১১ জন, বাংলালিংক ৪৫ হাজার ৯২ জন এবং টেলিটক দুই হাজার ৩০১ জন গ্রাহক হারিয়েছে।

পরিসংখ্যান বলছে, অপারেটর পরিবর্তনে বেশি বাধা দিয়েছে বাংলালিংক। অপারেটরটি মোট ৪৪ হাজার ৩১ জনকে অপারেটর পরিবর্তনে বাধা দিয়েছে। এ ছাড়া গ্রামীণফোন ৩৯ হাজার ৮৫৭ জনকে, রবি ১৪ হাজার ৮৬৯জনকে এবং টেলিটক ছয় হাজার তিনজনকে অপারেটর পরিবর্তনের সময় বাধা দিয়েছে।

চার মাসে বেশি গ্রাহক পেয়েছে রবি। সংখ্যার হিসেবে রবিতে যোগ দিয়েছে ৯৩ হাজার ৮২৮জন। এ ছাড়া বাংলালিংকে ২৫ হাজার ৬১৫জন, গ্রামীণফোনে ১২ হাজার ৩৪৬ জন এবং টেলিটকে দুই হাজার দুইজন গ্রাহক এমএনপি সেবার মাধ্যমে যোগ দিয়েছে।

প্রিয় প্রযুক্তি/রুহুল