এসব মামলা নির্বাচন কমিশন (ইসি) দেখবে বলে ওবায়দুল কাদের জানান। ফাইল ছবি

‘কলঙ্ক যাদের গায়ে, স্বচ্ছতা নিয়ে তাদের প্রশ্ন তোলার অধিকার নেই’

যেকোনো সংক্ষুব্ধ ব্যক্তি মামলা করতে পারে।তারা ক্ষোভ প্রকাশ করতে পারে। এখানে আর নির্বাচনি পরাজিতরা ট্রাইব্যুনালের সম্মুখীন হয়।

মোক্তাদির হোসেন প্রান্তিক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৩:১১ আপডেট: ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৩:১৩
প্রকাশিত: ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৩:১১ আপডেট: ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৩:১৩


এসব মামলা নির্বাচন কমিশন (ইসি) দেখবে বলে ওবায়দুল কাদের জানান। ফাইল ছবি

(প্রিয়.কম) আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘১৫ ফেব্রুয়ারির মতো নির্বাচনের কলঙ্ক যাদের গায়ে, তাদের নির্বাচনের স্বচ্ছতা নিয়ে প্রশ্ন তোলার অধিকার নেই।’

১৫ ফেব্রুয়ারি, শুক্রবার সকালে ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী একথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘যেকোনো সংক্ষুব্ধ ব্যক্তি মামলা করতে পারে। তারা ক্ষোভ প্রকাশ করতে পারে। এখানে আর নির্বাচনি পরাজিতরা ট্রাইব্যুনালের সম্মুখীন হয়। ট্রাইব্যুনাল তাদের অভিযোগ পেশ করে এটা নতুন কিছু না। তাদের অধিকারও আছে। এখন এই বিষয়টা আমাদের কিছু করণীয় না। যেহেতু নির্বাচন কমিশন এই নির্বাচনে যারা জয় লাভ করেছে তাদের গ্যাজেট প্রকাশ করেছে এবং বিজয়ী বলে ঘোষণা করেছে। এসব মামলা নির্বাচন কমিশন (ইসি) দেখবে।’

উপজেলা নির্বাচন প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘দুই-চার স্থানে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় হতে পারে, তবে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে।’

প্রসঙ্গত, ১৯৯৬ সালে বাংলাদেশ ষষ্ঠ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) জয় লাভ করে। বিভিন্ন সহিংস ঘটনার মধ্যে এবং বিরোধীদলগুলোর প্রবল প্রতিবাদ ও নির্বাচন বর্জনের পরও ওই বছর ১৫ ফেব্রুয়ারি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। মোট ভোট গৃহীত হয়েছিল মাত্র ২১%। ৩০০টি আসনের মধ্যে বিএনপি ২৭৮টি আসন লাভ করে।

প্রিয় সংবাদ/রুহুল

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...