মাতৃভাষা আন্দোলন এক অবিস্মরণীয় ঘটনা। ছবি: সংগৃহীত

ভাষা আন্দোলনের ইতিহাস নিয়ে আরও কাজ করতে হবে : রাষ্ট্রপতি

একুশের চেতনা বিশ্বের বিভিন্ন ভাষাভাষী মানুষের নিজস্ব ভাষা ও সংস্কৃতি রক্ষার অনুপ্রেরণা হয়ে উঠেছে।

মোক্তাদির হোসেন প্রান্তিক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১০:০৬ আপডেট: ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১০:০৬
প্রকাশিত: ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১০:০৬ আপডেট: ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১০:০৬


মাতৃভাষা আন্দোলন এক অবিস্মরণীয় ঘটনা। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) নাট্যকার, চলচ্চিত্রকার, লেখক, গবেষক ও বুদ্ধিজীবীদেরকে ভাষা আন্দোলনের ইতিহাস ও ঐতিহ্য নিয়ে আরও বেশি কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ

১৫ ফেব্রুয়ারি, শুক্রবার বিকেলে বঙ্গভবনের দরবার হলে মহান ভাষা আন্দোলনের পটভূমিতে নির্মিত ‘ফাগুন হাওয়ায়’ চলচ্চিত্রের প্রিমিয়ার শো দেখার আগে দেওয়া বক্তব্যে এসব কথা বলেন রাষ্ট্রপতি।

রাষ্ট্রপতি তার বক্তব্যের শুরুতে ভাষা শহীদ ও বীর মুক্তিযোদ্ধা এবং স্বাধীনতার নেতৃত্বদানকারী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানান।

তিনি বলেন, ‘একুশের চেতনা বিশ্বের বিভিন্ন ভাষাভাষী মানুষের নিজস্ব ভাষা ও সংস্কৃতি রক্ষার অনুপ্রেরণা হয়ে উঠেছে। ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনের ইতিহাস ও ঐতিহ্য ছড়িয়ে দিতে হবে। আমি আশা করব আমাদের নাট্যকার, চলচ্চিত্রকার, লেখক ও বুদ্ধিজীবীগণ মহান ভাষা আন্দোলন নিয়ে আরও বেশি কাজ করবেন।’

এ সময় চলচ্চিত্রকার ও সংশ্লিষ্ট সকলের প্রচেষ্টার কথা উল্লেখ করে রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘“ফাগুন হাওয়ায়” চলচ্চিত্রটি তরুণ প্রজন্মকে মহান ভাষা আন্দেলন ও ভাষার অধিকার রক্ষা করতে যারা ১৯৫২ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি বিশেষ অবদান রেখেছেন তাদের সম্পর্কে জানতে ভূমিকা রাখবে। এটি তরুণ প্রজন্মকে দেশাত্ববোধ ও স্বাধীনতা সংগ্রামের চেতনায় আরও বেশি অনুপ্রাণিত করবে।’

মাতৃভাষা আন্দোলন এক অবিস্মরণীয় ঘটনা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘ভাষা আন্দোলন কেবল আমাদের মাতৃভাষার অধিকারই নয় পাশাপাশি নিজস্ব জাতিসত্তা, স্বকীয়তা ও সাংস্কৃতিক স্বাতন্ত্র্য রক্ষারও আন্দোলন।’

মো. আবদুল হামিদ বলেন, ‘বাঙালি জাতিই বিশ্বে প্রথম, যারা মাতৃভাষার দাবিতে জীবন দিয়েছে। শহীদদের রক্ত বৃথা যায়নি। কারণ, বিশ্বের ১৯৩টি দেশে ২১ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে উদযাপিত হচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকার ক্ষুদ্র-নৃগোষ্ঠীর ভাষা সংরক্ষণের প্রতি বিশেষ গুরুত্ব দিয়েছেন। তা ছাড়া তাদের মাতৃভাষা সংরক্ষণ ও উন্নয়নে তাদের নিজস্ব ভাষায় পুস্তক প্রণয়ন ও পাঠদানের ব্যবস্থা করা হয়েছে ‘

ফাগুন হাওয়ায় চলচ্চিত্রের পরিচালক ও অভিনেতা তৌকীর আহমেদ, ইমপ্রেস টেলিফিল্মের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রেজা সাগর, চ্যানেল আইয়ের পরিচালক ও বার্তা প্রধান শাইখ সিরাজ এ সময় বক্তব্য দেন।

প্রিয় সংবাদ/রুহুল

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...