বিশ্ব ইজতেমা দ্বিতীয় পূর্বের আখেরি মোনাজাত ১৯ ফেব্রুয়ারি। ফাইল ছবি

দ্বিতীয় পর্বের ইজতেমার আখেরি মোনাজাত মঙ্গলবার

বৈরী আবহাওয়ার কারণে মাওলানা সাদ কান্ধলভী পক্ষের স্থানীয় মুরুব্বিরা সরকারের কাছে এক দিন সময় বেশি চেয়ে আবেদন করেছেন।

মোক্তাদির হোসেন প্রান্তিক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১১:৫৫ আপডেট: ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১১:৫৫
প্রকাশিত: ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১১:৫৫ আপডেট: ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১১:৫৫


বিশ্ব ইজতেমা দ্বিতীয় পূর্বের আখেরি মোনাজাত ১৯ ফেব্রুয়ারি। ফাইল ছবি

(প্রিয়.কম) ঈমান, আমল ও আখলাকের আমবয়ানের মধ্য দিয়ে ১৭ ফেব্রুয়ারি, রবিবার বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব শুরু হয়েছে। ১৯ ফেব্রুয়ারি, মঙ্গলবার সকালে আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হবে বিশ্ব ইজতেমার সমাপনী পর্ব। যা আগে ১৮ ফেব্রুয়ারি, সোমবার বেলা ১১টার মধ্যে শেষ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু পরবর্তীতে ইজতেমা মাঠ গোছানোর সময় কম পাওয়া এবং বিরূপ আবহাওয়ার কারণে সমাপনী পর্ব এক দিন বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন গাজীপুরের জেলা প্রশাসক দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ূন কবির ।

তিনি জানান, বৈরী আবহাওয়ার কারণে মাওলানা সাদ কান্ধলভী পক্ষের স্থানীয় মুরুব্বিরা সরকারের কাছে এক দিন সময় বেশি চেয়ে আবেদন করেছেন। সেই আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে এক দিন বাড়ানো হয়েছে। তাই মঙ্গলবার সকাল ১০টায় আখেরি মোনাজাত অনুষ্ঠিত হবে।

১৫ ফেব্রুয়ারি, শুক্রবার বাদ ফজর উর্দুতে আমবয়ানের মধ্যে দিয়ে মাওলানা জোবায়েরপন্হিদের দুই দিনের ইজতেমা শুরু হয়। শনিবার আখেরি মোনাজাতের মধ্যে দিয়ে ইজতেমার প্রথম পর্ব শেষ হয়।

ইজতেমার প্রথম পর্বের আখেরি মোনাজাতের পর রাতেই প্রশাসনের পক্ষ থেকে সাদপন্হিদের প্রধান সমন্বয়কারী ওয়াসেফুল ইসলামসহ ৩২ জন মুরব্বির উপস্থিতিতে ইজতেমা ময়দানে সমাপনী পর্ব পরিচালনা ও মাঠের দায়িত্ব বুঝিয়ে দেওয়া হয়। কিন্তু পরদিন রবিবার ভোর থেকে টঙ্গী ও আশপাশের এলাকায় বজ্রপাতসহ ভারী বৃষ্টিপাত শুরু হয়। সকাল ৯টা পর্যন্ত প্রবল বর্ষণ চলতে থাকে। বৃষ্টির কারণে ইজতেমা মাঠের বিভিন্ন খেত্তায় পানি জমে যায়। পুরো মাঠের চটের শামিয়ানা চুয়ে নিচে পানি ঝরতে থাকে। আগত মুসল্লিদের বিছানাপত্র ও কাপড়চোপড় ভিজে যায়। এমন পরিস্থিতিতে দুর্ভোগে পড়ে মুসল্লিরা। তারপরও বৃষ্টিতে ভিজে দূর-দূরান্ত থেকে বাস, ট্রাক, লঞ্চ, পিকআপ, ট্রেন ও অন্যান্য যানবাহনে মুসল্লিরা ইজতেমা মাঠে আসতে থাকে।

প্রিয় সংবাদ/রিমন

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...