আওয়ামী লীগ বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন ওবায়দুল কাদের। ছবি সংগৃহীত

জামায়াতকে নিষিদ্ধ করতে সব সময়কেই উপযুক্ত মনে করি: কাদের

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বিচার বিভাগ একটা সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগেই আমি তো সেটাকে ভায়োলেট করতে পারি না।’

মোক্তাদির হোসেন প্রান্তিক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৬:৩৩ আপডেট: ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৬:৫১
প্রকাশিত: ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৬:৩৩ আপডেট: ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৬:৫১


আওয়ামী লীগ বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন ওবায়দুল কাদের। ছবি সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) জামায়াতে ইসলামীকে নিষিদ্ধ করতে সব সময়কেই উপযুক্ত সময় বলে মনে করি বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের

১৮ ফেব্রুয়ারি, সোমবার দুপুরে ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলটির সম্পাদকমণ্ডলীর এক বৈঠক শেষে কাদের এ কথা বলেন।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘নতুন বোতলে পুরাতন পানি– এ কথাটি আমি আগেই বলেছি, যদি তাদের আদর্শের পরিবর্তন না হয় তাহলে নাম পরিবর্তনে কী আসে যায়? তবে এখনই এ বিষয়ে কিছু বলার সময় আসেনি। জামায়াতের রাজনৈতিক অবস্থান দেখতে আমাদের আরও কিছুটা সময় অপেক্ষা করতে হবে।’

সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘জামায়াতে ইসলামীকে নিষিদ্ধ করার বিষয়টি আদালতের ওপর নির্ভর করছে। এখানে আদালতের একটা সিদ্ধান্তের ব্যাপার আছে। সেটাকে আমি কি উপেক্ষা করতে পারি?’

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমি বিচার ব্যবস্থাকে বলবো, স্বাধীনতা আমি স্বীকার করি। বিচার বিভাগ একটা সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগেই আমি তো সেটাকে ভায়োলেট করতে পারি না।’

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলের মনোনীত প্রার্থীর বিপক্ষে অবস্থান নেওয়া বিদ্রোহীদের প্রতি দেওয়া কঠোর অবস্থানের হুঁশিয়ারি এখন বাস্তবায়নের অপেক্ষায় রয়েছে মন্তব্য করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘দলীয় সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশে ফেরার পর তার মতামতের ভিত্তিতে বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছে আওয়ামী লীগ।’

তবে কতজনকে চিহ্নিত করা হয়েছে জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘এ পর্যন্ত আমরা আমরা দুজনকে চিহ্নিত করতে পেরেছি। শুরুতে বিদ্রোহ অনেক জায়গায় থাকলেও আমাদের নেতাদের অক্লান্ত প্রয়াসে তা মাঝপথে থেমে থেমে গেছে।’

তিনি বলেন, ‘জাতীয় নির্বাচনের আগে ওয়ার্কিং কমিটির এক বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছিল, যারা বিদ্রোহী হবে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান নেবো আমরা। এতদিন পর্যন্ত আমরা এটা নিয়ে কাজ করেছি। যাচাই-বাছাই করেছি কারা কোথায় কীভাবে বিদ্রোহ করেছে। সেই পরিপ্রেক্ষিতে একটা কথা বলতে চাই- ’৭০ পরবর্তী সময়ে এবারই সব থেকে কম বিদ্রোহী প্রার্থী জাতীয় নির্বাচনে অংশ নিয়েছে। কোথায় কীভাবে বিদ্রোহ হয়েছে তাদের একটি তালিকা করা হয়েছে। আমাদের নেত্রী দেশে ফিরলে তার সঙ্গে বসে আমরা আমাদের সিদ্ধান্ত নেবো।’

উপজেলা নির্বাচনে বড় দলগুলোর অংশগ্রহণ না থাকায় প্রধান নির্বাচন কমিশনারের হতাশা প্রকাশ প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘হতাশা নামক শব্দটি আমাদের অভিধানে নেই। এটা তার পার্সোনাল ওপিনিয়ন। যে কোনো পরিস্থিতিতে লড়াই করার জন্য আমরা প্রস্তুত আছি। কিন্তু কেউ নির্বাচনে যদি না আসে সে ক্ষেত্রে আমাদের কিছু করার নেই। উপজেলা নির্বাচনে বিএনপি অংশ না নেওয়ায় আওয়ামী লীগ হতাশ নয়।

একই সঙ্গে উপজেলা নির্বাচনে পাওয়া আওয়ামী লীগের বিতর্কিত প্রার্থীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

প্রিয় সংবাদ/কামরুল

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...