সপ্তম স্প্যান বসানোর মধ্য দিয়ে নদীর দু প্রান্তে দৃশ্যমান হবে সেতুর ১২শ মিটার। ফাইল ছবি

পদ্মা সেতুর সপ্তম স্প্যান বসছে কাল

নদীর জাজিরা প্রান্তে আগের ৩৬ নম্বর পিলার থেকে এগিয়ে মাওয়া প্রান্তের দিকে ৩৫ নম্বর পিলারের মধ্যে যোগ হবে নতুন স্প্যানটি।

মোক্তাদির হোসেন প্রান্তিক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১২:১০ আপডেট: ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১২:১০
প্রকাশিত: ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১২:১০ আপডেট: ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১২:১০


সপ্তম স্প্যান বসানোর মধ্য দিয়ে নদীর দু প্রান্তে দৃশ্যমান হবে সেতুর ১২শ মিটার। ফাইল ছবি

(প্রিয়.কম) ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বর মাসে প্রথম স্প্যান বসানোর মধ্য দিয়ে সেতু দৃশ্যমান করার কাজ শুরু হয়। গত বছরের জুনে পঞ্চম স্প্যান বসানোর মধ্য দিয়ে শেষ হয় ছয় পিলারের একটি মডিউলের কাজ। তার পাশেই নতুন মডিউলের প্রথম আর জাজিরা প্রান্তে ষষ্ঠ স্প্যানটি বসানো হয় গত মাসের ২৩ তারিখ।

এবার সপ্তম স্প্যান বসানোর অপেক্ষার প্রহর শেষ হচ্ছে। সেই ধারাবাহিকতায় এক মাসেরও কম সময়ের ব্যবধানে আগামীকাল ২০ ফেব্রুয়ারি বুধবার জাজিরা প্রান্তে বসছে স্বপ্নের পদ্মা সেতুর সপ্তম স্প্যান। এ স্প্যান বসানোর মধ্য দিয়ে নদীর দু প্রান্তে দৃশ্যমান হবে সেতুর ১২শ মিটার। ৩৫ ও ৩৬ নম্বর পিলারের মধ্যে বসবে এ স্প্যান।

১৯ ফেব্রুয়ারি, মঙ্গলবার সকালে নদীর মাওয়া প্রান্ত থেকে এ দুটি পিলারের দিকে রওয়ানা হয়েছে স্প্যানবাহী ক্রেনটি। মাওয়া ইয়ার্ড থেকে স্প্যানটি নির্ধারিত ৩৫ ও ৩৬ নম্বর পিলারের কাছে নিয়ে যাওয়া হবে। প্রায় পাঁচ কিলোমিটার দূরের এ পিলারের কাছে নিয়ে যেতে পুরো একদিন সময় লাগে।

নদীর জাজিরা প্রান্তে আগের ৩৬ নম্বর পিলার থেকে এগিয়ে মাওয়া প্রান্তের দিকে ৩৫ নম্বর পিলারের মধ্যে যোগ হবে নতুন স্প্যানটি। এ ছাড়া ৩৪ নম্বর পিলারও শতভাগ প্রস্তুত করে তোলায় কিছুদিনের মধ্যে আরও একটি স্প্যান বসানো সম্ভব হবে।

এ বিষয়ে পদ্মা সেতুর প্রকল্প পরিচালক শফিকুল ইসলাম জানান, মাওয়া থেকে স্প্যানটি তিন হাজার ৬০০ ট‌ন ক্ষমতাসম্পন্ন একটি ক্রেনে তুলে জাজিরা প্রান্তে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। আগামীকাল বুধবার সকালে পিলারের ওপর এটি তোলা হবে।

তবে এবার স্প্যানবাহী ৩৬শ মেট্রিক টন ওজন বহনে সক্ষম ক্রেনটি মাওয়া থেকে শুরুতে সর্বোচ্চ গতিবেগে নিয়ে যাওয়া হবে চাঁদপুরে দিকে ভাটিতে। এখন নদীতে স্রোত কম থাকায় বর্ষা মৌসুমে তীব্র স্রোতের বিপরীতে ক্রেনটি কতটা কাজ করতে সক্ষম হবে, সেটি পরীক্ষা করতেই এটিকে ভাটির দিকে ৭ কিলোমিটার পথ ঘুরিয়ে নির্ধারিত পিলারের কাছে নেওয়া হবে।

প্রিয় সংবাদ/আশরাফ

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...