ভারত-পাকিস্তানের মধ্যকার ম্যাচের ফাইল ছবি। সংগৃহীত

বিশ্বকাপে পাকিস্তানের সঙ্গে না খেললে উল্টো বিপদে পড়বে ভারত!

এ জন্য আইসিসি চেয়ারম্যান শশাঙ্ক মনোহরের কাছে পাঠানোর জন্য চিঠিও তৈরি করছেন প্রশাসক কমিটির সদস্যরা।

সৌরভ মাহমুদ
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১১:৩৮ আপডেট: ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১১:৩৮
প্রকাশিত: ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১১:৩৮ আপডেট: ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১১:৩৮


ভারত-পাকিস্তানের মধ্যকার ম্যাচের ফাইল ছবি। সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) পুলওয়ামায় ভয়াবহ জঙ্গি হামলার পর আবার উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে ভারত-পাকিস্তানের রাজনৈতিক সম্পর্ক। দুই দেশের রাজনৈতিক উত্তাপ ছড়িয়ে পড়েছে ক্রিকেটেও। এর জেরে ইতোমধ্যেই ভারতে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে পাকিস্তান সুপার লিগের (পিএসএল) সম্প্রচার।

এখানেই শেষ নয়, বিশ্বকাপের মঞ্চে পাকিস্তানকে বয়কট করার কথাও ভাবছে ভারত। সমর্থকদের এমন দাবির সাথে আছেন দেশটির সাবেক ক্রিকেটাররাও। তবে বোর্ড অব কন্ট্রোল ফর ক্রিকেট ইন ইন্ডিয়া (বিসিসিআই) বলছে, এটা অসম্ভব বরং আইনগতভাবে উল্টো ঝামেলায় পড়তে পারে ভারতই।

গেল ১৪ ফেব্রুয়ারি ভারতশাসিত জম্মু-কাশ্মীরে আত্মঘাতী বোমা হামলায় প্রাণ হারান দেশটির সেন্ট্রাল রিজার্ভ পুলিশ ফোর্সের (সিআরপিএফ) ৪০ জনেরও বেশি সদস্য। এ ছাড়া মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছেন আরও কয়েকজন। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে ভারতীয় বাহিনীর ওপর এটাই সবচেয়ে বড় হামলা।

এই ঘটনার পর থেকে বিশ্বকাপে পাকিস্তানের বিপক্ষে ভারতের ম্যাচ না খেলার দাবি ক্রমশ জোরালো হচ্ছে। এই দাবির পরিপ্রেক্ষিতে নিজেদের করণীয় ঠিক করতে বৈঠকে বসেন সুপ্রিম কোর্ট নিযুক্ত বিসিসিআইয়ের প্রশাসক কমিটির সদস্যরা।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের খবর, ওই বৈঠকে পাকিস্তানকে পুরোপুরি একঘরে করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এ জন্য আইসিসি চেয়ারম্যান শশাঙ্ক মনোহরের কাছে পাঠানোর জন্য চিঠিও তৈরি করছেন প্রশাসক কমিটির সদস্যরা। কিন্তু এমন দাবি আইসিসিতে টিকবেনা বলেই মনে করেন বিসিসিআইয়ের এক কর্তা।

দেশটির ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থাটির বরাত দিয়ে হিন্দুস্তান টাইমস বলছে, কোনোভাবেই বিশ্বকাপ থেকে পাকিস্তানকে বাদ দিতে পারবে না ভারত। নিজেদের প্রমাণের মাধ্যমে যেকোনো সদস্য দেশ বিশ্বকাপ খেলার যোগ্যতা রাখে।আর বিষয়টি আইসিসির বোর্ড সভায় উপস্থাপনের মাধ্যমে সংখ্যাগরিষ্ঠ ভোট নিয়েই পাস করাতে হবে, যেখানে সংখ্যাগরিষ্ঠের ভোট পাওয়া অনেকটা অসম্ভব। তাই আইসিসি এই দাবি মানবে না।

এদিকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসি জানিয়েছেন, বিশ্বকাপে ভারত পাকিস্তান ম্যাচ বাতিল হওয়ার কোনো ইঙ্গিতই নেই। আইসিসির ভাষ্যের ওপর ভিত্তি করে ভারতীয় বোর্ড বলছে এমন দাবি পেশে উল্টো বিপদে পড়তে পারে ভারত। ভবিষ্যতে ভারতে আইসিসি ইভেন্ট আয়োজন পড়তে পারে হুমকির মুখে। যার জেরে বিসিসিআই এই ইস্যুটিতে জল ঘোলা করতে চাইছে না।

এ নিয়ে ভারতীয় সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে বিসিসিআইয়ের ওই কর্তা বলেন, ‘যদি পাকিস্তানকে বাদ দেওয়ার জন্য আইসিসি বরাবর বিসিসিআই চিঠি দেয়, তাহলে আগে এ নিয়ে এপ্রিলে বোর্ড মিটিংয়ে আলোচনা করতে হবে। আমরা এখন আর আইসিসি বোর্ডের সংখ্যাগরিষ্ঠ নই। এটা নিয়ে এগোতে গেলে আমরাই হেরে যাব। শুধু তাই নয়, আমাদের ২০২১-এর চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি এবং ২০২৩-এর বিশ্বকাপ আয়োজনের সুযোগ পাওয়া নিয়েও সংশয় দেখা দেবে। শুধু তাই নয়, এর ফলে ২০২১ সালের চ্যাম্পিয়নস ট্রফি ও ২০২৩ বিশ্বকাপ আয়োজনও এতে অনিশ্চিত হয়ে পড়বে।’

২২ ফেব্রুয়ারি, দিল্লিতে বৈঠকে বসবে বিসিসিআইয়ের প্রশাসক কমিটি। এই বৈঠকে থাকবেন প্রশাসক কমিটির চেয়ারম্যান বিনোদ রাই ও সদস্য ডায়না এডুলজি। এই বৈঠকে উত্তরখণ্ড রাজ্য সংস্থা নিয়ে আলোচনা হওয়ার কথা। সেইসঙ্গে বিশ্বকাপে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ম্যাচ নিয়েও আলোচনা হতে পারে। বৈঠক নিয়ে ডায়না বলেন, ‘আমরা আগামীকাল (শুক্রবার) সব সম্ভাবনা নিয়ে আলোচনা করব। দেশের জন্য যেটা সবচেয়ে ভালো হবে সেটাই করব।’

পরিসংখ্যান বলছে, কার্গিল যুদ্ধ চলার সময়ও ১৯৯৯ বিশ্বকাপে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে খেলেছে ভারত। ১৯৯৯ বিশ্বকাপও হয়েছিল ইংল্যান্ডের মাটিতে। শুধু তাই নয়, এই ম্যানচেস্টারেই হয়েছিল ভারত-পাক লড়াই। ৪৭ রানে ম্যাচ জিতে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে বিশ্বকাপে জয়ের ধারা বজায় রেখেছিল মোহম্মদ আজহারউদ্দিনের ভারত।

আইসিসিও ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ নিয়ে আশাবাদী। লন্ডনে ক্রিকইনফোকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে সংস্থাটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ডেভিড রিচার্ডসন বলেছেন, ‘দুই দেশের ক্রিকেট বোর্ড থেকে ম্যাচ না খেলার বিষয়ে কোনো আনুষ্ঠানিক ঘোষণা পাইনি। আইসিসিও কোনো চিঠি দেয়নি দুই বোর্ডকে। আমরা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে রাখছি। তবে আশাবাদী নির্ধারিত সময়েই ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে।’

দুই দেশের উত্তেজনাকর পরিস্থিতি প্রশমনে ক্রিকেট খুব ভালো ভূমিকা রাখতে পারে জানিয়ে আইসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন, ‘বিভিন্ন জাতির মধ্যে ঐক্য ও সংহতি বৃদ্ধির ক্ষেত্রে খেলাধুলা, বিশেষ করে ক্রিকেটের অসাধারণ একটা ক্ষমতা রয়েছে। আশা করছি, ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে বিভক্তি নয়, আস্থা বৃদ্ধির ক্ষেত্রে ক্রিকেট চমৎকার ভূমিকা রাখতে পারবে।’ 

আগামী ১৬ জুন ম্যানচেস্টারে বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বের ম্যাচ ভারত-পাকিস্তানের মুখোমুখি হওয়ার কথা।

প্রিয় খেলা/রুহুল

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...