স্যামসাং গ্যালাক্সি এম১০। ছবি: সংগৃহীত

কি আছে সাড়া জাগানো স্যামসাং গ্যালাক্সি এম টেনে?

গ্যালাক্সি এম১০-এর দুটি সংস্করণের মধ্যে ২জিবি র‌্যাম ও ১৬জিবি রমের সংস্করণটি দেশের বাজারে এনেছে স্যামসাং বাংলাদেশ। খুচরা মূল্য মাত্র ১১,৯৯৯ টাকা হলেও বিশেষ অফারে বর্তমানে গ্যালাক্সি এম১০ ক্রয় করা যাচ্ছে মাত্র ১০,৯৯৯ টাকায়।

প্রিয় ডেস্ক
ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশিত: ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৭:০০ আপডেট: ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৭:০০
প্রকাশিত: ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৭:০০ আপডেট: ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৭:০০


স্যামসাং গ্যালাক্সি এম১০। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) সদ্য বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়া রাজধানীর এলিফেন্ট রোডের বাসিন্দা ফাহিম। নতুন জায়গায় উচ্চশিক্ষা গ্রহণ করতে আসা ফাহিম নতুন ফোন কেনার পরিকল্পনা করছিলো। ঠিক তখনই দেশের বাজারে বিক্রির জন্য আসে স্যামসাং গ্যালাক্সি এম১০। ফাহিমের মতো নতুন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের চাহিদা আসলে কি থাকে? ফোন কেনার ক্ষেত্রে বিবেচিত বিষয়গুলোর মধ্যে রয়েছে ব্র্যান্ড ভেল্যু, উন্নত মান, ট্রেন্ডি ডিসপ্লে, আশানুরূপ ক্যামেরা এবং বাজেট। ফাহিম গ্যালাক্সি এম১০-এর মধ্যে উল্লেখিত বিষয়গুলো খুঁজে পেয়েছে, আর তাই ফোনটি কিনতে সে মাত্র ১ দিন সময় নিয়েছে।

কেনো গ্যালাক্সি এম১০?

প্রথমত শুধুমাত্র অনলাইনেই গ্যালাক্সি এম১০ বিক্রির ব্যবস্থা রেখেছে প্রতিষ্ঠানটি। কারণ, সহস্রাব্দের এই প্রজন্ম ইন্টারনেটে সময় ব্যয় করে সবচেয়ে বেশি। পিকাবু ডট কম থেকে ফাহিমের মতো অগণিত ক্রেতা ফোনটির জন্য অর্ডার দিয়েছেন। গ্যালাক্সি এম১০-এর দুটি সংস্করণের মধ্যে ২জিবি র‌্যাম ও ১৬জিবি রমের সংস্করণটি দেশের বাজারে এনেছে স্যামসাং বাংলাদেশ। খুচরা মূল্য মাত্র ১১,৯৯৯ টাকা হলেও বিশেষ অফারে বর্তমানে গ্যালাক্সি এম১০ ক্রয় করা যাচ্ছে মাত্র ১০,৯৯৯ টাকায়।

এত কম দামে ডিভাইসটিতে চমৎকার ক্যামেরা দিয়েছে দক্ষিণ কোরিয়াভিত্তিক প্রতিষ্ঠানটি। ডুয়েল রিয়ার ক্যামেরার সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য ফিচার হচ্ছে এর ওয়াইড-অ্যাঙ্গেল লেন্স। গ্রুপে ছবি তুলতে গেলে কিংবা ল্যান্ডস্ক্যাপ ফুটেজ নিতে গেলে প্রশ্বস্ত জায়গা নেয়ার ক্ষেত্রেই ঝামেলা বাঁধে। তখন কোনো না কোন অংশ বাদ পড়ে যায়। এ সমস্যা অনায়াসে দূর করে দেয় ডিভাইসটির ১২০ ডিগ্রির ওয়াইড-অ্যাঙ্গেল লেন্স। এছাড়া এফ১.৯ অ্যাপারচারের ১৩ মেগাপিক্সেলের মূল লেন্স ছবিকে করে আরো বেশি প্রাণবন্ত। সেলফিপ্রেমিদেরও হতাশ করেনি স্যামসাং। দেয়া হয়েছে এ২.০ অ্যাপারচারের ৫ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট ক্যামেরা।

ডিসপ্লের দিক দিয়ে বরাবরের মতো স্যামসাং অন্য সবার থেকে এগিয়ে থাকার চেষ্টা করে, আর এখানেও তার ব্যাতিক্রম ঘটেনি। ডিভাইসটিতে প্রথমবারের মতো ওয়াটার ড্রপ নচ ডিসপ্লে প্রযুক্তি ব্যবহার করেছে স্যামসাং। ফোনটির ৬.২২ ইঞ্চির এইচডি+ ইনফিনিটি-ভি ডিসপ্লে সত্যিই মনো-মুগদ্ধকর। ফাহিমের মতো যারা ক্ল্যাশ অব ক্ল্যান, জম্বি গার্ড, ক্যান্ডি ক্র্যাশ কিংবা ফুটবল স্ট্রাইক গেম খেলতে কিংবা ইউটিউব ও নেটফ্লিক্সে হাই ডেফিনেশন ভিডিও দেখতে পছন্দ করেন তারা দুর্দান্ত ডিসপ্লের অভিজ্ঞতা উপভোগ করতে পারবেন। ডিসপ্লের পিক্সেল এতটাই নিখুঁত যে প্রতিটি কন্টেন্ট দেখা যায় অত্যন্ত স্বচ্ছভাবে।

স্বল্প বাজেটের মধ্যে স্যামসাং ব্যবহারকারীদের জন্য ফোনটিতে দিয়েছে ১.৬ গিগাহার্টজের এক্সিনস ৭৮৭০ অক্টা-কোর প্রসেসর। এছাড়া র‌্যাম ও রমের ক্ষেত্রে ফোনটিতে রয়েছে যথাক্রমে ২জিবি র‌্যাম ও ১৬জিবি রম। ফলে মাল্টিটাস্কিং হবে অনায়াসে। ফোনটিতে একই সময়ে জনপ্রিয় সব অ্যাপ ব্যবহার ও গেম খেলা যায় কোনো ধরনের ল্যাগ ছাড়াই। এর প্রসেসিং ইউনিট খুব দ্রুত ও দক্ষতার সাথে কর্ম সম্পাদনে সক্ষম। ফোনটিতে প্রসেসর, র‌্যাম ও রমের সমন্বয় ঘটানো হয়েছে চমৎকারভাবে।

এই ফোনে স্যামসাং ব্যবহার করেছে অ্যান্ড্রয়েড ওরিও ৮.১.০ ভিত্তিক ভিন্নধর্মী ও দ্রুত গতির স্যামসাং ইউজার এক্সপিরিয়েন্স (ইউএক্স)-এর ৯.৫ সংস্করণ। স্যামসাং ইউজার এক্সপিরিয়েন্স (ইউএক্স)-এর ৯.৫-এর বিশেষ দিক হচ্ছে এটি অত্যন্ত হালকা ঘরাণার, ফলে ফোনের ব্যাটারি খরচ হয় অনেক কম। বলা বাহুল যে, ইউএক্সটি সাজানো হয়েছে মিলেনিয়ালসদের ট্রেন্ডি ফ্যাশনের বিষয়টিকে মাথায় রেখে।

ফোনটিতে দেয়া হয়েছে ৩,৪০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি এবং এতে সফটওয়্যারের সমন্বয় এমনভাবে করা হয়েছে যাতে পুরোদমে ব্যবহারের ক্ষেত্রেও ব্যবহারকারী পাবেন বাধাহীন অভিজ্ঞতা।
সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য বিষয় হচ্ছে স্যামসাং গ্যালাক্সি এম১০-এর দাম। এই দামে বিশ্বখ্যাত একটি ব্র্যান্ডের স্মার্টফোন হাতে পেতে ক্রেতারা হুমড়ি খেয়ে পড়বে সেটিই স্বাভাবিক।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


loading ...