বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। ছবি: সংগৃহীত

ক্রাইস্টচার্চ মসজিদে হামলায় যা বললেন বিসিবি সভাপতি

এখন থেকে বাংলাদেশ দল যে দেশেই খেলতে যাক না কেন, মিনিমাম নিরাপত্তা ব্যবস্থা না করলে খেলতে যাবে না বলে জানান বিসিবি সভাপতি।

সৌরভ মাহমুদ
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ১৫ মার্চ ২০১৯, ১৪:০২ আপডেট: ১৫ মার্চ ২০১৯, ১৪:০২
প্রকাশিত: ১৫ মার্চ ২০১৯, ১৪:০২ আপডেট: ১৫ মার্চ ২০১৯, ১৪:০২


বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন জানিয়েছেন, ক্রাইস্টচার্চের ঘটনার পর নিরাপত্তা নিয়ে ভাববার সময় এসেছে। এখন থেকে বাংলাদেশ দল যে দেশেই খেলতে যাক না কেন, মিনিমাম নিরাপত্তা ব্যবস্থা না করলে খেলতে যাবে না।

১৫ মার্চ দুপুরে রাজধানীর গুলশানে নিজ বাসভবনে নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে হামলার পর এক প্রতিক্রিয়ায় বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন এই মন্তব্য করেন।

পাপন বলেন, ‘আমি যতটা জানতে পেরেছি আমাদের খেলোয়াড়রা তিনভাগে বিভক্ত ছিলেন। একদল মাঠে, একদল হল রুমে এবং একদল মসজিদে নামাজ পড়তে গিয়েছিলেন। তারা বাসযোগে নামাজ পড়তে গিয়েছিলেন। তবে মসজিদের কাছে যেতেই তাদের বাসের সামনে আরও একটি গাড়ি হঠাৎ থেমে যায় এবং ঐ গাড়ি থেকে সম্ভবত এক মহিলা সামনে যেতে মানা করেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘ওই সময় তারা গুলির শব্দ শুনতে পান এবং মসজিদ থেকেও লোকজনকে বেরিয়ে আসতে দেখেন। আল্লাহ রহমতে আমাদের খেলোয়াড়রা নিরাপদে রয়েছেন।’

নিরাপত্তার বিষয়ে পাপন বলেন, ‘আসলে নিউজিল্যান্ডে এমন হামলা হতে পারে তা তারাও কখনও অনুমান করতে পারেনি। আমাদের বা আশপাশের দেশে এমন ঘটনা ঘটলে যত দ্রুত পুলিশ পৌঁছাতে পারতো সেখানে কিন্তু তা হয়নি। পুলিশ যেতে অনেক সময় লেগেছে। তবে হ্যাঁ, আমাদের নিরাপত্তা নিয়ে আরও ভাবতে হবে। এখন থেকে বাংলাদেশ দল যেখানেই খেলতে যাক না কেন নিরাপত্তা বিষয় নিশ্চিত করা হবে। মিনিমাম নিরাপত্তা ব্যবস্থা না করলে সে দেশে বাংলাদেশ খেলতে যাবে না।’

বাংলাদেশ দলের ফিরে আসার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘আমরা ঘটনাটি শোনার পরই আমাদের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেছি। তাকে আমি বলেছি, যেকোনো মূল্যে দ্রুত যেন আমাদের দলকে দেশে আনার ব্যবস্থা করা হয়। এখান থেকে টিকিটের ব্যবস্থা করা হচ্ছে। তবে এখন ওখানে কী অবস্থা রয়েছে, বিমান রয়েছে কিনা তা দেখা হচ্ছে।’

ভিডিওতে দেখুন পাপনের প্রেস ব্রিফিং-

১৫ মার্চ, শুক্রবার অনুশীলন শেষে জুমার নামাজ পড়তে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ-মুশফিকুর রহিম-তামিম ইকবাল-মুস্তাফিজুর রহমান-মেহেদী হাসান মিরাজ-তাইজুল ইসলামসহ বেশ কয়েকজন ক্রিকেটার যান নিকটবর্তী মসজিদ আল নূরে। মসজিদে প্রবেশ করার ঠিক আগমুহূর্তে অজ্ঞাত এক নারী বাংলাদেশ দলকে সাবধান করেন যে, ভেতরে একজন বন্দুক হাতে ঢুকেছেন।

অজ্ঞাত নারীর ওই সাবধান বাণী শুনেই কাছেই দাঁড় করানো টিম বাসে ওঠে পড়েন বাংলাদেশি ক্রিকেটাররা এবং বাসের মেঝেতে শুয়ে পড়েন। এ সময় গোলাগুলির আওয়াজ শুনতে পান তারা। এরপর ভয়ার্ত ক্রিকেটাররা দ্রুতই হ্যাগলি পার্কের রাস্তা ধরে স্টেডিয়ামে ফেরেন। আপাতত তারা নিরাপদেই রয়েছেন। তবে নিরাপদে থাকলেও খুব কাছ থেকে এমন একটি ঘটনার সাক্ষী হয়ে ভীতশ্রদ্ধ হয়ে পড়েছেন ক্রিকেটাররা।

প্রিয় খেলা/রুহুল

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...