মাশরাফি বিন মুর্তজা। ছবি: প্রিয়.কম

মুশফিক-মাহমুদউল্লাহদের নিয়ে দুশ্চিন্তায় ছিলেন মাশরাফি

হ্যাগলি ওভালের আল নুর মসজিদে হামলার খবরে অন্যান্যদের মতো মুষড়ে পড়েছিলেন জাতীয় দলের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা।

মুশাহিদ
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ১৫ মার্চ ২০১৯, ২০:৩৩ আপডেট: ১৫ মার্চ ২০১৯, ২০:৩৩
প্রকাশিত: ১৫ মার্চ ২০১৯, ২০:৩৩ আপডেট: ১৫ মার্চ ২০১৯, ২০:৩৩


মাশরাফি বিন মুর্তজা। ছবি: প্রিয়.কম

(প্রিয়.কম) স্থানীয় সময় তখন ১টা ৪০ মিনিট। অনুশীলন শেষ করে জুমার নামাজ আদায় করতে ক্রাইস্টচার্চের হ্যাগলি পার্কমুখী সড়ক দীন অ্যাভিনিউতে আল নুর মসজিদে যাচ্ছিলেন নিউজিল্যান্ডে অবস্থানরত বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা। ঠিক এমন সময় ওই মসজিদে হামলা চালায় সশস্ত্র এক সন্ত্রাসী। এই হামলায় প্রাণ হারিয়েছেন অন্তত ৪৯ জন।

হ্যাগলি ওভালের আল নুর মসজিদে হামলার খবরে অন্যান্যদের মতো স্বাভাবিকভাবে মুষড়ে পড়েছিলেন জাতীয় দলের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। ডানহাতি এই পেসার জানান, সেখানে অবস্থানরত ক্রিকেটারদের নিয়ে খুবই দুশ্চিন্তায় ছিলেন তিনি।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এমনটাই জানিয়েছেন মাশরাফি। একই সঙ্গে ফেসবুকে নিজের ভেরিফাইড পেজ থেকে দেওয়া ওই পোস্টের মাধ্যমে এমন সন্ত্রাসী হামলার তীব্র নিন্দাও জানান তিনি।

মাশরাফি লেখেন, ‘নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে আল নূর মসজিদে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় দুই (তিনজন) বাংলাদেশিসহ বহু মানুষের নিহত হবার খবর পাচ্ছি! আমি এমন সন্ত্রাসী হামলার তীব্র নিন্দা জানাই।’

বাংলাদেশি ক্রিকেটারদের নিয়ে খুব দুশ্চিন্তায় ছিলেন জানিয়ে মাশরাফি লেখেন, ‘ঘটনাটি শোনার পর থেকে আমাদের ক্রিকেটারদের নিয়ে খুবই দুশ্চিন্তায় ছিলাম। আল্লাহর অশেষ রহমতে আমাদের ক্রিকেটাররা বড় দুর্ঘটনার হাত থেকে রেহাই পেয়েছেন। তারা নিরাপদে আছেন।’

নিহতদের তালিকায় থাকতে পারত বাংলাদেশি ক্রিকেটারদের নামও। এদিন বাংলাদেশি ক্রিকেটাররা ৫ মিনিট আগে মসজিদে পৌঁছালে পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ হতে পারত। কিন্তু অল্পের জন্য বড় বিপদ থেকে রক্ষা পান মাহমুদউল্লাহ-মুশফিকরা। কারণ জুমার নামাজ আদায়ের জন্য দুপুর দেড়টায় বাংলাদেশ দলের মসজিদে ঢোকার কথা ছিল।

অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের সংবাদ সম্মেলন শেষ করে মসজিদে যেতে যেতে ১টা ৪০ বেজে যায়। ফলে মসজিদ থেকে মাত্র ৫০ গজ দূরে থাকতে হামলার খবর পান বাংলাদেশি ক্রিকেটাররা। হামলার খবরে হ্যাগলি পার্কের রাস্তা ধরে স্টেডিয়ামে ফেরেন তারা। হামলার কারণে ইতোমধ্যেই বাতিল করা হয়েছে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে তিন ম্যাচ সিরিজের তৃতীয় ও শেষ টেস্ট ম্যাচ।

ক্রিকেটাররা নিরাপদে দেশে ফেরার আশাবাদ ব্যক্ত করে মাশরাফি বলেন, ‘শুক্রবার জুমার নামাজ পড়তে আর একটু আগে মসজিদে গেলে শোকাবহ পরিস্থিতি তৈরি হতে পারতো! কিন্তু আল্লাহ সহায় হয়েছেন। আশা করছি, ক্রিকেটাররা দ্রুতই নিরাপদে দেশে ফিরে আসবেন।’

প্রিয় সংবাদ/কামরুল

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...