নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের আল নুর মসজিদে জুমার নামাজ পড়তে গিয়েছিলেন নূর হামজা। ছবি সংগৃহীত

‘ঘটনার মুহূর্ত আমাকে অনেক দিন ভোগাবে’, বললেন ক্রাইস্টচার্চ হামলার প্রত্যক্ষদর্শী

‘বৃষ্টির মতো গুলির মাঝে কোনোমতে আমিসহ কয়েকজন মসজিদ থেকে দৌড়ে বেরিয়ে আসি। আশ্রয় নেই মসজিদের বাইরের পার্কিং এরিয়ায়।’

মোক্তাদির হোসেন প্রান্তিক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১৫ মার্চ ২০১৯, ২০:৪০ আপডেট: ১৫ মার্চ ২০১৯, ২০:৪০
প্রকাশিত: ১৫ মার্চ ২০১৯, ২০:৪০ আপডেট: ১৫ মার্চ ২০১৯, ২০:৪০


নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের আল নুর মসজিদে জুমার নামাজ পড়তে গিয়েছিলেন নূর হামজা। ছবি সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের আল নুর মসজিদে জুমার নামাজ পড়তে গিয়েছিলেন নূর হামজা। সেই মসজিদে ১৫ মার্চ, শুক্রবার দুপুর দেড়টার দিকে বন্দুকধারীর গুলি শুরু হলে তিনি কোনোমতে বাইরে চলে আসেন।

মালয়েশিয়ান বংশোদ্ভূত নূর হামজা আশির দশকে চলে যান নিউজিল্যান্ডে। এরপর থেকে ৫৪ বছর বয়সী হামজা সেখানেই আছেন।

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের দুটি মসজিদে শুক্রবার জুমার নামাজের সময় বন্দুকধারীর গুলিতে এখন পর্যন্ত ৪৯ জন নিহত হয়েছেন। মসজিদে হামলাকারী ওই ব্যক্তি অস্ট্রেলিয়ার নাগরিক। আল নুর মসজিদে হামলার পরপরই ঘটনার পর কাছাকাছি শহরতলি লিনউডের মসজিদেও হামলা হয়। তবে ওই হামলাতেও একই ব্যক্তি জড়িত কি না, তা এখনো জানা যায়নি।

এদিকে হামলায় বেঁচে যাওয়া নূর হামজা বলেন, ‘বৃষ্টির মতো গুলির মাঝে কোনোমতে আমিসহ কয়েকজন মসজিদ থেকে দৌড়ে বেরিয়ে আসি। আশ্রয় নিই মসজিদের বাইরের পার্কিং এরিয়ায়। কী হচ্ছে ঠিক বুঝতে পারছিলাম না। বের হওয়ার সময় মসজিদের প্রবেশপথের সামনে দেখেছি মৃতদেহের স্তূপ।’

তিনি বলেন, ‘নিউজিল্যান্ডের ইতিহাসে এটা একটি কালো দিন। একটা ভয়াবহ বিপর্যয়। আমি কল্পনাও করতে পারছি না যে এই দেশে এমন কিছু ঘটতে পারে। আমি জানি, এই ঘটনার মুহূর্ত আমাকে অনেক দিন ভোগাবে। আশা করি, আমি শক্ত থাকতে পারব।’

প্রিয় সংবাদ/আজাদ চৌধুরী

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

ময়মনসিংহ সিটির ভোট ৫ মে

প্রিয় ৫ ঘণ্টা, ৩০ মিনিট আগে

loading ...