রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়। ফাইল ছবি

রাবিতে ৫৩ জনকে বাদ দিয়ে ১১ জন নিয়ে পরীক্ষা

এ ঘটনায় আবার পরীক্ষার দাবিতে আমরণ অনশনে নেমেছেন বিভাগটির শিক্ষার্থীরা। শনিবার সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন ভবনের সামনে অবস্থান নেন তারা।

প্রিয় ডেস্ক
ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশিত: ১৬ মার্চ ২০১৯, ২২:৩৮ আপডেট: ১৬ মার্চ ২০১৯, ২২:৩৮
প্রকাশিত: ১৬ মার্চ ২০১৯, ২২:৩৮ আপডেট: ১৬ মার্চ ২০১৯, ২২:৩৮


রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়। ফাইল ছবি

(প্রিয়.কম) রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোবিজ্ঞান বিভাগের মাস্টার্সের ফাইনাল পরীক্ষায় ৫৩ জনকে রেখে মাত্র ১১ জনকে নিয়ে পরীক্ষা নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

১৬ মার্চ, শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টা থেকে সাড়ে ৪টা পর্যন্ত ৫৩ শিক্ষার্থীকে রেখেই বিভাগের ৩৪১-৪২ নম্বর কক্ষে পরীক্ষার আয়োজন করে বিভাগ কর্তৃপক্ষ।

এ ঘটনায় আবার পরীক্ষার দাবিতে আমরণ অনশনে নেমেছেন বিভাগটির শিক্ষার্থীরা। শনিবার সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন ভবনের সামনে অবস্থান নেন তারা।

আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা জানান, গত ১৪ তারিখে বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী কানিজ ফাতেমার বাবা মারা যান, এ ঘটনায় শনিবার পূর্বনির্ধারিত ৫০২ নম্বর কোর্স কোগনেটিভ নিউরো সাইকোলজি পরীক্ষা না নেওয়ার অনুরোধ জানান শিক্ষার্থীরা। পরীক্ষা কমিটির সভাপতি সাবিনা সুলতানাকেও মোখিকভাবে জানানো হয় বিষয়টি। তবুও ৫৩ শিক্ষার্থীকে রেখেই শনিবার সাড়ে ১২টা থেকে সাড়ে ৪টা পর্যন্ত বিভাগের ৩৪১-৪২ নং কক্ষে পরীক্ষার আয়োজন করে বিভাগ কর্তৃপক্ষ। এ ঘটনায় আবার পরীক্ষা নেওয়ার দাবি জানিয়ে অনশন করছেন তারা।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে মাস্টার্স বর্ষের পরীক্ষা কমিটির সভাপতি সাবিনা সুলতানা বলেন, ‘পরীক্ষার তারিখ নির্ধারিত ছিল। পরীক্ষা স্থগিত করার নোটিশও দেওয়া হয়নি। এখন যারা পরীক্ষা দিতে এসেছে, তাদের নিয়েই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে।’

শিক্ষার্থীর বাবা মারা যাওয়ার বিষয়টি সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘শিক্ষার্থীরা বলেছিল স্থগিত করতে। তবে পরীক্ষা কমিটি, বিভাগীয় সভাপতি মনে করেছে পরীক্ষা স্থগিত করা হবে না, তাই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ দায় কমিটির সভাপতির নয় বলেও দাবি করেন তিনি।’

এ বিষয়ে জানতে মনোবিজ্ঞান বিভাগের সভাপতি ড. এনামুল হকের বক্তব্য পাওয়া যায়নি। 

প্রিয় সংবাদ/কামরুল/আজাদ চৌধুরী

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

পাবনায় কৃষকের আত্নহত্যা

প্রিয় ১১ ঘণ্টা, ৫৯ মিনিট আগে

loading ...