আসল টুনার রঙটা হবে লাল। ছবি: সংগৃহীত

কী করে বুঝবেন টুনা মাছ আসল না নকল?

নকল টুনা আসলে কী, আর তা আসল না নকল আপনি বুঝবেন কী করে?

কে এন দেয়া
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ১৮ মার্চ ২০১৯, ০৮:৪৪ আপডেট: ১৮ মার্চ ২০১৯, ০৮:৪৪
প্রকাশিত: ১৮ মার্চ ২০১৯, ০৮:৪৪ আপডেট: ১৮ মার্চ ২০১৯, ০৮:৪৪


আসল টুনার রঙটা হবে লাল। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) কাঁচাবাজারে বা সুপার শপে দেখতে পেলেন দারুণ এক খণ্ড টুনা মাছ। শখ করে খাওয়ার জন্য নিয়ে এলেন বাসায়। কিন্তু আপনি জানেন, প্রায়শই এই টুনা হয় নকল? নকল টুনা আসলে কী, আর তা আসল না নকল আপনি বুঝবেন কী করে?

টুনা বলে অনেক সময়েই যে মাছটি বিক্রি করা হয় তা হলো এসকলার। টুনা বলে তা চালিয়ে দেওয়াটা ধোঁকাবাজি। এর থেকেও বড় সমস্যা হলো, এসকলার আপনাকে অসুস্থ করে ফেলতে পারে। এই মাছটি ১৯৭৭ সাল থেকে জাপানে নিষিদ্ধ কারণ তারা ধারণা করে এটি বিষাক্ত। এসকলারে চর্বি বেশি থাকে বলে তা সুস্বাদু মনে হয়, আসলে কিন্তু এতে থাকা চর্বি মানুষ হজম করতে পারে না। ছয় আউন্সের বেশি এসকলার খাওয়া হলে ডায়ারিয়া ও অ্যানাল লিকেজ হতে পারে। কিন্তু আপনি বুঝবেন কী করে আপনার টুনা মাছটি নকল?

১) দাম

অবিশ্বাস্য কম দামে টুনা বিক্রি হচ্ছে? খুশিতে কিনে ফেলবেন না পুরোটা। টুনার দাম বেশি হওয়াটাই স্বাভাবিক। কম দামে কিনে তা খেয়ে অসুস্থ হওয়ার কোনো মানে হয় না।

২) রঙ

কখনো ছাড় বা প্রমোশনের জন্য টুনার দাম কম হতে পারে। তখন রঙ দেখে টুনা চিনতে পারেন। টুনা মাছের মাংস বেশ লালচে। অন্যদিকে এসকলারের মাংস সাদাটে। টুনার মাংস সাদাটে হবে না কখনোই।

৩) প্রশ্ন করুন

মাছ বিক্রেতা বা সুপার শপের ম্যানেজারকে জিজ্ঞেস করুন তাদের টুনা কোথা থেকে এসেছে। তারা যদি না জানেন, বা উত্তর দিতে সন্দেহজনক আচরণ করে, তাহলে তা না কেনাই ভালো।  

সূত্র: হাফিংটন পোস্ট

প্রিয় লাইফ/রুহুল