ভারতের দেখানো পথেই হাঁটলো পাকিস্তান। ছবি: সংগৃহীত

আইপিএল নিষিদ্ধ করে পাকিস্তানের পাল্টা জবাব

প্রায় প্রতিটা ক্ষেত্রেই প্রতিবেশী দেশ দুটি প্রতিযোগিতা চালিয়ে আসছে। ‍সুযোগ পেলেই প্রতিশোধের আগুন জ্বালিয়ে দিচ্ছে তারা।

প্রিয় ডেস্ক
ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশিত: ২১ মার্চ ২০১৯, ১৬:১৪ আপডেট: ২১ মার্চ ২০১৯, ১৬:১৪
প্রকাশিত: ২১ মার্চ ২০১৯, ১৬:১৪ আপডেট: ২১ মার্চ ২০১৯, ১৬:১৪


ভারতের দেখানো পথেই হাঁটলো পাকিস্তান। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) কাশ্মীরের পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলার পর থেকেই ভারত ও পাকিস্তানে উত্তপ্ত অবস্থা বিরাজ করছে। প্রায় প্রতিটা ক্ষেত্রেই প্রতিবেশী দেশ দুটি প্রতিযোগিতা চালিয়ে যাচ্ছে। ‍সুযোগ পেলেই প্রতিশোধের আগুন জ্বালিয়ে দিচ্ছে তারা।

ক্রিকেটও এর বাইরে নয়। পুলওয়ামা হামলার পর পাকিস্তান সুপার লিগের (পিএসএল) সব ধরনের সম্প্রচার ভারতে নিষিদ্ধ করা হয়। পাকিস্তানও এবার পাল্টা জবাব দিল। এবারের ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) সম্প্রচার নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে পাকিস্তান সরকার।

আগামী ২৩ মার্চ পর্দা উঠবে ভারতের ঘরোয়া ক্রিকেটের সবচেয়ে জমজমাট টুর্নামেন্ট আইপিএলের ১২তম আসরের। কিন্তু এই আসরের একটি খেলাও পাকিস্তানে দেখা যাবে না।

এ বিষয়ে পাকিস্তানের তথ্য ও যোগাযোগ মন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরী স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমকে বলেছেন, ‘আমরা সবাই জানি পিএসএল চলাকালীন ভারত সরকার কী করেছিল। তারা পিএসএলের সম্প্রচার বন্ধ করে দিয়েছিল তাদের দেশে। তাই আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি পাকিস্তানেও আইপিএল সম্প্রচার নিষিদ্ধ করার। এটাই সঠিক সিদ্ধান্ত বলে আমরা বিশ্বাস করি।’

ফাওয়াদ চৌধুরী জানিয়েছেন, রাজনীতির সঙ্গে ক্রিকেটকে মেশানোর কোনো ইচ্ছা তাদের ছিল না। কিন্তু ভারত একইভাবে ভাবেনি। তারা ক্রিকেটকেও এর মধ্যে টেনে এনেছে। যে কারণে তারাও এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

পাকিস্তানের সাবেক ক্রিকেটার ওয়াসিম আকরাম, শহীদ আফ্রিদি আলোচনার কথা বললেও ভারতের বেশ কয়েকজন সাবেক ক্রিকেটার পাকিস্তানের সঙ্গে সব খেলাতেই সম্পর্ক ছিন্ন করার কথা বলেছেন।

ভারতের ক্রিকেট ইতিহাসের অন্যতম সেরা অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলি বলেছিলেন, ‘শুধু ক্রিকেট নয়, সব খেলাতেই পাকিন্তানের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করা উচিত ভারতের।’ এমনকি বিশ্বকাপেও পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচ খেলার বিপক্ষে তিনি। একই মত দিয়েছেন মোহাম্মদ আজহারউদ্দিন, হরভজন সিং, গৌতম গম্ভীররাও

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি ভারতশাসিত জম্মু-কাশ্মীরে আত্মঘাতী বোমা হামলায় প্রাণ হারান দেশটির সেন্ট্রাল রিজার্ভ পুলিশ ফোর্সের (সিআরপিএফ) ৪০ জনেরও বেশি সদস্য। এ ছাড়া গুরুতর আহত হন আরও কয়েকজন। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে ভারতীয় বাহিনীর ওপর এটাই সবচেয়ে বড় হামলা।

প্রিয় খেলা/শান্ত মাহমুদ

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...