জেলা ও দায়রা জজ আদালত ঢাকা। ছবি: সংগৃহীত

ঘুষ দাবি: পুলিশ কর্মকর্তার ২ বছরের সাজা

মিথ্যা পরিচয় দিয়ে হাইকোর্টের এক বিচারপতির স্ত্রীর কাছে পাসপোর্ট ভেরিফিকেশনের জন্য ঘুষ দাবি করা পুলিশের সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) (বরখাস্ত হওয়া) সাদিকুল ইসলামকে কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত।

আমিনুল ইসলাম মল্লিক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২১ মার্চ ২০১৯, ১৫:২১ আপডেট: ২১ মার্চ ২০১৯, ১৫:২১
প্রকাশিত: ২১ মার্চ ২০১৯, ১৫:২১ আপডেট: ২১ মার্চ ২০১৯, ১৫:২১


জেলা ও দায়রা জজ আদালত ঢাকা। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) মিথ্যা পরিচয় দিয়ে হাইকোর্টের এক বিচারপতির স্ত্রীর কাছে পাসপোর্ট ভেরিফিকেশনের জন্য ঘুষ দাবি করা পুলিশের সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই, বরখাস্ত) সাদিকুল ইসলামকে দুই বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। তিনি পুলিশের বিশেষ (এসবি) শাখায় কর্মরত ছিলেন।

২১ মার্চ, বৃহস্পতিবার ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৯-এর বিচারক শেখ হাফিজুর রহমান এ আদেশ দেন।

ঘটনার বিবরণ থেকে জানা যায়, ২০১৬ সালের আগস্ট মাসে হাইকোর্ট বিভাগের এক বিচারপতির দুই সন্তানের পাসপোর্ট ভেরিফিকেশনের (যাচাই) জন্য তার বাসায় যান পুলিশ কর্মকর্তা সাদিকুল। পুলিশ কর্মকর্তা তার আসল পরিচয় গোপন করেন। তিনি নিজেকে আবদুস সালাম নামে ভুয়া পরিচয় দেন। পদবি বলেন উপপরিদর্শক (এসআই)।

পরে বিচারপতির স্ত্রীর কাছে তাদের দুই সন্তানের পাসপোর্ট ভেরিফিকেশনের জন্য দুই হাজার টাকা ঘুষ দাবি করেন। বিচারপতির স্ত্রী যাতায়াত খরচ বাবদ তাকে পাঁচশ টাকা দিতে চান। কিন্তু ওই এএসআই বলেন, দুই হাজার টাকা না দিলে হবে না।

বিষয়টি ২০১৬ সালের ১ অক্টোবর হাইকোর্টের নজরে আনা হয়। সেই দিন নাম ও পদবি নিয়ে মিথ্যা পরিচয় দেওয়ায় ওই পুলিশ কর্মকর্তাকে গ্রেফতারের নির্দেশ দেয় হাইকোর্ট। তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নিতেও নির্দেশ দেয় আদালত। রাতে আদালতের আদেশের বিষয়টি পুলিশ সদর দফতরে জানানো হয় এবং ওই পুলিশ কর্মকর্তাকে আদালতে হাজির করার নির্দেশ দেওয়া হয়।

পরদিন সাদেকুলকে আদালতে হাজির করা হয়। শুনানির পর আদালত তাকে (সাদেকুল) হাইকোর্ট বিভাগের ডেপুটি রেজিস্ট্রার মো. কামাল হোসেন শিকদারের হাতে তুলে দেয়। রেজিস্ট্রার এক দিন পর তাকে শাহবাগ থানা-পুলিশে সোপর্দ করেন। তার বিরুদ্ধে ১৬১ ধারায় মামলা দেওয়া হয়। একপর্যায়ে পুলিশের বিভাগীয় তদন্তে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। মামলার শুনানি শেষে আজ তাকে দুই বছরের সাজা দেওয়া হলো।

প্রিয় সংবাদ/আজাদ চৌধুরী

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...