এসব পনির ওজন কমাতেও কাজে আসে। ছবি: সংগৃহীত

ডায়েটে থাকলেও খেতে পারবেন যে ৪ ধরনের পনির

স্থানীয়ভাবে তৈরি টাটকা পনির, এমনকি ঘরে তৈরি পনির খাওয়া সবচেয়ে ভালো।

কে এন দেয়া
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ২৩ মার্চ ২০১৯, ২০:৪৪ আপডেট: ২৩ মার্চ ২০১৯, ২০:৪৪
প্রকাশিত: ২৩ মার্চ ২০১৯, ২০:৪৪ আপডেট: ২৩ মার্চ ২০১৯, ২০:৪৪


এসব পনির ওজন কমাতেও কাজে আসে। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) বেশির ভাগ মানুষের পনির নিয়ে রয়েছে ভ্রান্ত ধারণা। একে বার্গার, পিজ্জা বা পাস্তায় মেশানো হয় বলে মনে করা হয় অস্বাস্থ্যকর। এমনকি তা কোলেস্টেরল আর ওজন বাড়ায়—এমনটাও দাবি করা হয়। কিন্তু সব পনির এ বিষয়ে ক্ষতিকর নয় কিন্তু। এমনও কিছু পনির আছে, যাতে ক্যালোরি থাকে অনেক কম, আর বেশি পরিমাণে থাকে ক্যালশিয়াম ও প্রোটিন। এমনকি এসব পনির ওজন কমাতেও কাজে আসে।

প্রথমত, প্রসেসড চিজ (যেমন চিজ স্লাইস) খাওয়া বন্ধ করতে হবে। এগুলোতে বেশি লবণ, তেল এমনকি চিনি দেওয়া থাকে। স্থানীয়ভাবে তৈরি টাটকা পনির, এমনকি ঘরে তৈরি পনির খাওয়া সবচেয়ে ভালো। আসুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী কিছু পনিরের কথা।

১) মোজারেলা চিজ

মোজারেলা চিজের নাম শুনেছেন হয়তো। এটাকে পিজ্জায় ব্যবহার করা হয় অহরহ। এই পনিরটি তৈরি করা হয় গরু, মহিষ, ছাগল বা ভেড়ার দুধ থেকে। গোলগাল বল সাবানের মতো আকারের এই পনিরটি রাবারের মতো নরম। প্রতি ১০০ গ্রাম মোজারেলায় ২৮০ ক্যালোরি থাকে, আর এতে সোডিয়াম থাকে কম, ক্যালশিয়াম থাকে বেশি। এসব কারণে তা ওজন কমাতে উপকারী।

২) ফেটা চিজ

এই গ্রিক পনিরটি তৈরি হয় ভেড়া বা ছাগলের দুধ থেকে। এই পনিরটি হয় ঝুরঝুরে; তা ভেঙে স্যান্ডউইচ, পাই ও সালাদে দেওয়া হয়। এটা একটু টক স্বাদের হয়। ১০০ গ্রাম ফেটা পনিরে থাকে ১৪ গ্রাম প্রোটিন এবং ২৬৪ ক্যালোরি।

৩) কটেজ চিজ

কটেজ চিজ হলো ছানা। টাটকা ছানায় দুধের গন্ধ পাওয়া যায়। অন্যান্য সব পনিরের তুলনায় এতে ক্যালোরি অনেক কম। ১০০ গ্রাম ছানায় ৯৮ ক্যালোরি থাকে। তাই ডায়েট করতে তা বেশ উপকারী।

৪) রিকোটা চিজ

রিকোটা একটি ইতালিয়ান পনির। সে দেশের একধরনের মহিষের দুধ থেকে এই পনির তৈরি করা হয়। প্রতি ১০০ গ্রাম রিকোটায় ১১ গ্রাম প্রোটিন ও ১৭৪ ক্যালোরি থাকে। অনেক ইতালিয়ান খাবার যেমন চিজ কেক বা ক্যানোলি তৈরিতে রিকোটা ব্যবহার হয়।

সূত্র: এনডিটিভি

প্রিয় লাইফ/আজাদ চৌধুরী

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...