তিনটি অজগর সাপ, একটি মেছো বাঘ, একটি বন বিড়াল, একটি গন্ধ গোকুল, একটি তক্ষক, দুটি সরালি হাঁস এবং দুটি বেগুনী কালিম পাখি অবমুক্ত করা হয়।

স্বাধীনতা দিবসে লাউয়াছড়া উদ্যানে মুক্ত হলো ১১টি বন্যপ্রাণী

স্বাধীনতা দিবসের সকালে লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানের আমতলী নামক স্থানে ১১টি বন্যপ্রাণী অবমুক্ত করা হয়।

প্রিয় ডেস্ক
ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশিত: ২৬ মার্চ ২০১৯, ১৬:২৪ আপডেট: ২৬ মার্চ ২০১৯, ১৬:২৪
প্রকাশিত: ২৬ মার্চ ২০১৯, ১৬:২৪ আপডেট: ২৬ মার্চ ২০১৯, ১৬:২৪


তিনটি অজগর সাপ, একটি মেছো বাঘ, একটি বন বিড়াল, একটি গন্ধ গোকুল, একটি তক্ষক, দুটি সরালি হাঁস এবং দুটি বেগুনী কালিম পাখি অবমুক্ত করা হয়।

(প্রিয়.কম) মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানে বিপন্ন ১১টি বন্যপ্রাণী অবমুক্ত করা হয়েছে।

বাংলাদেশ বন্যপ্রাণী সেবা ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ২৬ মার্চ (মঙ্গলবার) সকালে লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানের আমতলী নামক স্থানে ১১টি বন্যপ্রাণী অবমুক্ত করা হয়।

অবমুক্ত প্রাণিগুলো হলো তিনটি অজগর সাপ, একটি মেছো বাঘ, একটি বন বিড়াল, একটি গন্ধ গোকুল, একটি তক্ষক, দুটি সরালি হাঁস এবং দুটি বেগুনী কালিম পাখি।

বিজিবি শ্রীমঙ্গল সেক্টরের সেক্টর কমান্ডার কর্নেল মো. জোবায়ের হাসনাৎ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে প্রাণিগুলো অবমুক্ত করেন।

বাংলাদেশ বন্যপ্রাণী সেবা ফাউন্ডেশনের পরিচালক স্বপন দেব সজল বলেন, ‘অবমুক্ত করা প্রাণিগুলো বিভিন্ন সময় এ অঞ্চলের লোকালয়ে মানুষের হাতে ধরা পড়ে। আমরা এগুলোকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে সুস্থ করে আবার তার আবাসস্থলে অবমুক্ত করেছি।’

এ সময় উপস্থিত ছিলেন ৪৬ বিজিবি অধিনায়ক লে. কর্নেল মো. আরিফুল হক, মৌলভীবাজার সহকারী বন সংরক্ষক (বন্যপ্রাণী) মো. আনিসুর রহমান, সহকারী বন সংরক্ষক জিএম আবু বকর সিদ্দিক, লাউয়াছড়া বিট অফিসার আনোয়ার হোসেন, বাংলাদেশ বন্যপ্রাণী সেবা ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান সিতেশ রঞ্জন দেব, পরিচালক সজল দেব, শ্রীমঙ্গল উপজেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক বিকুল চক্রবর্তী, বৃহত্তর আদিবাসী ফোরামের মহাসচিব ফিলা পত্মি, নাগরদোলা থিয়েটারের সাধারণ সম্পাদক শিমুল তরফদার প্রমুখ।

এ সময় লাউয়াছড়ায় একটি বটবৃক্ষের চারা রোপণ করেন অতিথিরা।

প্রিয় সংবাদ/কামরুল

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...