ছবির একটি দৃশ্যে অভিনেতা মোস্তফা মনোয়ার। ছবি: সংগৃহীত

‘নিজেদের ঢোল নিজেরাই বাজাইতে পারি নাই, এটাই আমাদের ব্যর্থতা’

ভিন্নধর্মী গল্পের ছবি ‘লাইভ ফ্রম ঢাকা’ দীর্ঘদিন বাংলাদেশের বাইরে বিভিন্ন উৎসবে প্রদর্শিত হয়েছে; সমালোচকদের প্রশংসাও কুড়িয়েছে।

মিঠু হালদার
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫ এপ্রিল ২০১৯, ২১:০৭ আপডেট: ০৫ এপ্রিল ২০১৯, ২১:০৭
প্রকাশিত: ০৫ এপ্রিল ২০১৯, ২১:০৭ আপডেট: ০৫ এপ্রিল ২০১৯, ২১:০৭


ছবির একটি দৃশ্যে অভিনেতা মোস্তফা মনোয়ার। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) ভিন্নধর্মী গল্পের ছবি ‘লাইভ ফ্রম ঢাকা’ দীর্ঘদিন বাংলাদেশের বাইরে বিভিন্ন উৎসবে প্রদর্শিত হয়েছে; সমালোচকদের প্রশংসাও কুড়িয়েছে। গত ২৯ মার্চ ছবিটি দেশের প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেয়েছে। তবে সেটি শুধু রাজধানীর স্টার সিনেপ্লেক্সে। কিন্তু এক সপ্তাহ যেতেই প্রেক্ষাগৃহটির সংশ্লিষ্টরা বাধ্যবাধকতার কারণে ছবিটি আর চালাতে পারেননি। এদিকে ছবিটির প্রযোজক বলছেন তারা ‘নিজেদের ঢোল নিজেরাই ঠিকভাবে বাজাতে পারেননি’, যার কারণেই বর্তমানে এ ধরনের পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে হয়েছে।

সিনেপ্লেক্সে গত এক সপ্তাহ ছবিটির প্রতিদিন তিনটি করে শো চলেছে। আবদুল্লাহ মোহাম্মদ সাদ পরিচালিত এ ছবির প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছেন মোস্তফা মনোয়ার। ‘খেলনা ছবি’র ব্যানারে নির্মিত ছবিটি পরিচালনার পাশাপাশি গল্প-চিত্রনাট্যও লিখেছেন নির্মাতাই।

রাজধানীর বসুন্ধরা সিটির স্টার সিনেপ্লেক্সের গণমাধ্যম ও বিপণন বিভাগের জ্যেষ্ঠ ব্যবস্থাপক মেজবাহ উদ্দিন প্রিয়.কমকে বলেন, ‘এটা তো কমার্শিয়াল মুভি না, তাই এটাকে ওই ধরনের দৃষ্টিভঙ্গিতে দেখাও যাবে না। এটা তো একটু ডিফরেন্ট ও অফট্রাক টাইপের মুভি। তাই কমার্শিয়াল সাকসেসটা ওভাবে আসে নাই, এই আর কি। তবে গতকালও সেল বেশ ভালোই গেছে।’

তাহলে ছবিটি কেন প্রথম সপ্তাহ শেষেই হল থেকে নেমে গেল? এমন প্রশ্নের জবাবে এই কর্মকর্তা বলেন, ‘হলিউডের মুভিগুলো বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে একই দিনে আমাদের এখানে মুক্তি দেওয়ার একটা বিষয় আছে। ওই মুভিগুলো রিলিজ দিতে আমরা বাধ্যও। এ কারণেই আমাদের কিছু ক্রাইসিসের সম্মুখীন হতে হয়। দেশের মুভি ভালো চললেও অনেক সময় নামিয়ে দিতে হয়। কারণ হলিউডের সঙ্গে একই দিনে ওই ছবিটা আমাদের এখানে চালাতেই হবে।’

‘তবে এই মুভিটা নামিয়ে দেওয়ার অর্থ এই নয় যে মুভিটা খারাপ। অনেকেই ওভাবে বিষয়টাকে ধরে নেয়; মুভি খারাপ তাই নামিয়ে দেওয়া হয়েছে। আমাদের ওই ব্যারিয়ারের কারণেই “লাইভ ফ্রম ঢাকা” ছবিটা আমরা আর চালাতে পারিনি।’

স্টার সিনেপ্লেক্স ছাড়া অন্য কোনো প্রেক্ষাগৃহ ছবিটি প্রদর্শন না করার বিষয়টি উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘এই ঘটনায় আমি বেশ বিস্মিত।’

মেজবাহ উদ্দিন বলেন, ‘অনেক হলেই তো পুরনো মুভি চলছে আমার জানামতে। আমরা তো সবসময়ই নতুনদের এবং ভালো কনটেন্ট হলে প্রোমোট করি। এমনও হয়েছে, একটা শো-তে চার-পাঁচ জন দর্শক, তাও আমরা এক সপ্তাহ কনটিনিউ করেছি। আমাদের এসি চলাচলের খরচই ওঠে না। তারপরও ছবিটি চালিয়েছি।’

২০১৬ সালে সিঙ্গাপুর আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে ‘লাইভ ফ্রম ঢাকা’র প্রিমিয়ার হয়েছিল। সেখানে সেরা পরিচালক হিসেবে আবদুল্লাহ মোহাম্মাদ সাদ ও সেরা অভিনেতা হিসেবে মোস্তফা মনোয়ার পুরস্কার জিতে নেন।

এদিকে বিষয়টি নিয়ে আজ সকালে কথা হয় ‘লাইভ ফ্রম ঢাকা’ ছবির প্রযোজক শামসুর রহমান আলভির সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘দর্শক যদি ছবিটি না দেখেন, তাহলে তো প্রদর্শক সংশ্লিষ্টরা ছবিটি আর চালাবে না, এটাই স্বাভাবিক। তাই ছবিটি তারা নামিয়ে দিয়েছে।’

আমরা শুরু থেকেই বলছি, ছবিটি যে রিলিজ পাচ্ছে বাংলাদেশে, সেটা ব্যাপক হারে সাধারণ মানুষকে জানাতে পারিনি। আর যারা জেনেছে, তারা কিন্তু আমাদের যারা কাছের মানুষ, তাদের একজনের মুখ থেকে আরেকজনের কাছে এভাবেই। আমরা কিন্তু অনেক প্রমোশন করিনি। এটা আসলে আমাদের পক্ষে সম্ভবও ছিল না।’

এই প্রযোজক মনে করেন, যদি তারা ঠিকঠাকভাবে ছবিটির প্রমোশন করতে পারতেন, তহলে হয়তো সাধারণ দর্শক ছবিটা দেখত।

আলভী বলেন, ‘এটা যে টাইপের ছবি কিংবা আমাদের যে সামর্থ্য, এটা একজন আরেকজনকে বলবে, এটা তেমনই একটি ছবি। তবে সেই পরিস্থিতিটা তৈরি হতে আসলে দুই-তিন সপ্তাহ ছবিটা চালাতে হবে।’

প্রযোজকের কথায়, ‘তাও ভালো স্টার সিনেপ্লেক্স ছবিটা চালিয়েছে। অন্য কেউ তো আর চালায়নি। যদিও শো-টাইমগুলো খুবই বাজে ছিল। আমার কাছে সবশেষ দর্শকদের যে হল রিপোর্ট ছিল, সেটা ৪১ পারসেন্ট ছিল।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা যারা ছবিটার সঙ্গে ছিলাম, তারা আসলে নিজেদের ঢোল নিজেরাই বাজাইতে পারি নাই, এটাই আমাদের ব্যর্থতা। অনেক সময় অনেক বাজে কনটেন্টও ভালো হয়ে যায়। কারণ কারো আশেপাশে যদি ১০০ জন লোক বলে ওই কনটেন্টটি ভালো, তখন সেটা এমনিই অনেকের কাছে ভালো হয়ে যায়, সেটা যেমন প্রোডাক্টই হোক।’

শামসুর রহমান আলভি জানান, তাদের এত ‘পয়সাও’ ছিল না যে তা খরচ করে মানুষকে ছবিটি মুক্তির বিষয়ে জানাবেন।

এ উদ্ভূত পরিস্থিতিতে বিকল্প উপায়ে প্রদর্শনের কথা ভাবছেন কি না? এমন প্রশ্নের জবাবে আলভী বলেন, ‘আমাদের ইচ্ছে রয়েছে বাংলাদেশের যে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো ছবিটি প্রদর্শনের বিষয়ে আগ্রহ দেখাবে, আমরা সেখানে প্রদর্শন করার ব্যবস্থা করব। ইতোমধ্যেই কয়েকটা বিশ্ববিদ্যালয় ছবিটি প্রদর্শনের বিষয়ে বেশ আগ্রহ দেখিয়েছে।’

৯৪ মিনিট ব্যাপ্তির ‘লাইভ ফ্রম ঢাকা’তে দেখানো হয়েছে শেয়ারবাজারে পুঁজি হারিয়ে ঢাকা থেকে পালাবার পথ খুঁজে ফেরা এক প্রতিবন্ধী যুবকের গল্প; যে নৈতিকতা ও আত্মরক্ষার মধ্যে একটিকে বেছে নেওয়ার জটিল পরিস্থিতিতে পড়ে।

ছবিটিতে অভিনয় করেছেন তাসনোভা তামান্না, তানভীর আহমেদ চৌধুরী, মোশাররফ হোসেন, রনি সাজ্জাদ, শিমুল জয়, উজ্জ্বল আফজালসহ আরও অনেকেই।

প্রিয় বিনোদন/আজাদ চৌধুরী