ডোনাল্ড ট্রাম্প ও দিয়েগো ম্যারাডোনা। ছবি: সংগৃহীত

মাতাল হয়ে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে বেফাঁস মন্তব্য, বিপাকে ম্যারাডোনা

জয় উদযাপনের পর সংবাদ সম্মেলনে এসেই কোচ থেকে রীতিমতো রাজনীতিবিদ হয়ে যান ম্যারাডোনা!

মুশাহিদ
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ০৫ এপ্রিল ২০১৯, ২১:২৩ আপডেট: ০৫ এপ্রিল ২০১৯, ২১:২৩
প্রকাশিত: ০৫ এপ্রিল ২০১৯, ২১:২৩ আপডেট: ০৫ এপ্রিল ২০১৯, ২১:২৩


ডোনাল্ড ট্রাম্প ও দিয়েগো ম্যারাডোনা। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) সর্বকালের অন্যতম সেরা ফুটবলার দিয়েগো ম্যারাডোনা। ১৯৮৬ বিশ্বকাপে বলতে গেলে একাই দলকে শিরোপা জিতিয়েছিলেন তিনি। শুধু তা-ই নয়, দুই পায়ের জাদুতে ফুটবল-বিশ্বকে ঘোরের মধ্যে ফেলে দিয়েছিলেন তিনি। আর্জেন্টাইন এই কিংবদন্তি মাঠের বাইরেও কম যাননি। যেখানেই গেছেন, কোনো-না-কোনো মন্তব্য করেছেন। কিন্তু ম্যারাডোনার সেসব মন্তব্য নিয়ে আলোচনার চেয়ে সমালোচনাই বেশি হয়েছে।

বেফাঁস মন্তব্য করে বিভিন্ন সময় বিতর্কের মুখেও পড়তে হয়েছে ম্যারাডোনাকে। তাতেও যেন শিক্ষা হয়নি আর্জেন্টিনার এই ফুটবল কিংবদন্তির। এমনকি ম্যারাডোনার এই তীর্যক মন্তব্য থেকে বাদ যায়নি যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নাম। তবে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে বিতর্কিত মন্তব্য করে পার পাচ্ছেন না ম্যারাডোনা। এ জন্য বেশ বিপাকেই পড়তে হচ্ছে তাকে।  

কিছুদিন আগে মেক্সিকোর দ্বিতীয় বিভাগের দল তাম্পিকো মাদেরোর বিপক্ষে মাঠে নেমেছিল ম্যারাডোনার ক্লাব দোরাদোস দে সিনেলোয়া। সেই ম্যাচে তাম্পিকো মাদেরোকে ৩-২ ব্যবধানে হারিয়েছে দোরাদোস দে সিনেলোয়া। এই জয়ে মেক্সিকোর দ্বিতীয় বিভাগীয় লিগের চতুর্থ স্থানে উঠে এসেছে ম্যারাডোনার দল।

ম্যাচ শেষে ড্রেসিং রুমে ফুটবলারদের সঙ্গে জয় উদযাপন করেন ম্যারাডোনা নিজেও। তবে আনন্দ করতে গিয়ে খুব সম্ভবত একটু বেশিই মদপান করে ফেলেন তিনি। জয় উদযাপনের পর সংবাদ সম্মেলনে এসেই কোচ থেকে রাজনীতিবিদ হয়ে যান ম্যারাডোনা! ফুটবল বাদ দিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও ভেনেজুয়েলার অভ্যন্তরীণ রাজনৈতিক টানাপোড়েন নিয়ে কথা বলতে শুরু করেন তিনি। এ সময় ট্রাম্পকে রীতিমতো ধুয়ে দেন তিনি।

ভেনেজুয়েলার প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরোর প্রশংসা করতে গিয়ে ম্যারাডোনা বলেন, ‘আমেরিকা নিজেদের বিশ্বের প্রধান দেশ বলে মনে করে। বারবার তারা দাবি করে, তাদের কাছে সবথেকে শক্তিশালী বোমা রয়েছে। তারা সেই বোমা যখন-তখন যেখানে-সেখানে ফেলে দেওয়ার হুমকি দেয়। কিন্তু ডোনাল্ড ট্রাম্পকে মনে রাখতে হবে, ভেনেজুয়েলার সঙ্গে এই রকম কিছু করা যাবে না। তারা (ভেনেজুয়েলার নাগরিক) সেটা কিছুতেই হতে দেবে না।’

ম্যারাডোনার এমন মন্তব্যে বিশ্বজুড়ে রীতিমতো তোলপাড় শুরু হয়েছে। এই ঘটনায় মেক্সিকোর ফুটবল ফেডারেশন বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছে, তাদের শৃঙ্খলা রক্ষা কমিটি ইতোমধ্যেই ম্যারাডোনার এই মন্তব্যের তদন্ত শুরু করে দিয়েছে।

মেক্সিকোর ফুটবল আইন অনুযায়ী, ফুটবলের সঙ্গে জড়িত সবাইকেই রাজনৈতিক ও ধর্মীয় বিষয় নিয়ে পুরোপুরি নিরপেক্ষ থাকতে হবে। ধারণা করা হচ্ছে, তদন্তে দোষী সাব্যস্ত হলে নির্বাসিত হতে পারেন আর্জেন্টিনার এই কিংবদন্তি ফুটবলার। শুধু তা-ই নয়, আর্থিক জরিমানাও হতে পারে তার।

প্রিয় খেলা/আজাদ চৌধুরী