ছদ্মবেশে চেন্নাইয়ের রাস্তায় অস্ট্রেলিয়ার সাবেক ওপেনার ম্যাথু হেইডেন। ছবি: সংগৃহীত

ছদ্মবেশে চেন্নাইয়ের রাস্তায় অস্ট্রেলিয়ার সাবেক ক্রিকেটার

শুধু তাই নয়, রাস্তায় ঘুরে ঘুরে দরদাম করে ঘড়িও কিনেছেন সাবেক এই অজি ওপেনার। অবাক করার মতো বিষয় হলো, এ সময় কেউই চিনতে পারেননি তাকে।

মুশাহিদ
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ০৬ এপ্রিল ২০১৯, ১২:২৭ আপডেট: ০৬ এপ্রিল ২০১৯, ১২:২৭
প্রকাশিত: ০৬ এপ্রিল ২০১৯, ১২:২৭ আপডেট: ০৬ এপ্রিল ২০১৯, ১২:২৭


ছদ্মবেশে চেন্নাইয়ের রাস্তায় অস্ট্রেলিয়ার সাবেক ওপেনার ম্যাথু হেইডেন। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) ক্রিকেটকে বিদায় জানালেও মাঠের সঙ্গে এখনো সম্পর্ক ছিন্ন করেননি ম্যাথু হেইডেন। দীর্ঘ ১৫ বছরের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার শেষে ধারাভাষ্যকার হিসেবে নাম লিখিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার সাবেক এই ক্রিকেটার। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের পাশাপাশি লম্বা সময় ধরে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) ধারাভাষ্যকার হিসেবেও কাজ করছেন তিনি।

আইপিএলের দ্বাদশ আসরেও নিয়মিত ধারাভাষ্য কক্ষে দেখা যাচ্ছে হেইডেনকে। এরই মধ্যে সাবেক এই অজি খেলোয়াড়কে দেখা গেল চেন্নাইয়ের রাস্তায় ঘুরে বেড়াতে। তবে ছদ্মবেশে চেন্নাইয়ের রাস্তায় ঘুরে বেড়ান তিনি। শুধু তাই নয়, রাস্তায় ঘুরে ঘুরে দরদাম করে ঘড়িও কিনেছেন সাবেক এই ওপেনার। অবাক করার মতো বিষয় হলো, এ সময় কেউই চিনতে পারেননি তাকে।

সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে দুটি ছবি ও একটি ভিডিও পোস্ট করেন হেইডেন। ব্যক্তিগত ইনস্টাগ্রাম থেকে পোস্ট করা ছবিতে দেখা যায়, লুঙ্গি পরে, নকল দাড়ি লাগিয়ে ও মাথায় টুপি পরে চেন্নাইয়ের টি নগরের রাস্তায় কেনাকাটা করছেন তিনি। সেখানে দোকানিদের সঙ্গে রীতিমতো দরদাম করেন তিনি। শেষ পর্যন্ত ২০০ টাকার ঘড়ি কেনেন ১৮০ টাকায়।‌

পোস্টের ক্যাপশনে হেইডেন লেখেন, ‘‌টি নগরের মলে কেনাকাটা করছি।’‌

কিছুক্ষণ পরই জানা গেল ছদ্মবেশ ধরে চেন্নাইয়ের রাস্তায় হেইডেনের ঘুরে বেড়ানোর কারণ। রহস্য ভেদ করেছেন হেইডেন নিজেই। তিনি জানান, শেন ওয়ার্নের সঙ্গে চ্যালেঞ্জ করে ছদ্মবেশ ধরেছিলেন তিনি।

হেইডেন বলেন, ‘‌ওয়ার্ন আমায় চ্যালেঞ্জ করেছিল। ১০০০ টাকার মধ্যে একাধিক জিনিস কেনার। এজন্য ছদ্মবেশ ধারণ করে বাজারে চলে গিয়েছিলাম। সেখান থেকে লুঙ্গি, জামা ছাড়াও ঘড়ি কিনেছি।’‌

পুরো বিষয়টি জানতেন চেন্নাইয়ের এক স্থানীয় যুবক। তিনিই মূলত হেইডেনকে নিয়ে বাজারে যান। সেই যুবককে হেইডেন ১০০ টাকাও দিয়েছেন।

হেইডেনের ভাষ্য, ‘‌ছেলেটাকে ১০০ টাকা দিয়েছি। গর্বের সঙ্গে বলতে পারি চ্যালেঞ্জটা আমি জিতে গেছি।’‌

প্রিয় খেলা/রুহুল

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...