গরম পানির সেঁক নিয়ে ব্যথা না কমলে পেইনকিলার খেয়ে থাকেন অনেকে। ছবি: প্রিয়.কম

পিরিয়ডের ব্যথা কমাতে ভুল ওষুধ খাচ্ছেন না তো?

প্রতি মাসে পিরিয়ডের সময় হলে এই রাসায়নিকগুলো জরায়ুর পেশিগুলোকে সংকুচিত হতে বাধ্য করে, যার ফলে পিরিয়ডের রক্তপাত হয় এবং এর পাশাপাশি ব্যথা হয়।

কে এন দেয়া
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ০৮ এপ্রিল ২০১৯, ১৪:৩৩ আপডেট: ০৮ এপ্রিল ২০১৯, ১৪:৩৫
প্রকাশিত: ০৮ এপ্রিল ২০১৯, ১৪:৩৩ আপডেট: ০৮ এপ্রিল ২০১৯, ১৪:৩৫


গরম পানির সেঁক নিয়ে ব্যথা না কমলে পেইনকিলার খেয়ে থাকেন অনেকে। ছবি: প্রিয়.কম

(প্রিয়.কম) অনেক নারীই পিরিয়ড চলার সময়ে মাঝারি থেকে তীব্র ক্র্যাম্প বা পেটব্যথায় ভোগেন। এই ব্যথা গরম পানির সেঁক নিয়ে না কমলে পেইনকিলার খেয়ে থাকেন অনেকে। কিন্তু পিরিয়ডের ব্যথায় সব ধরনের পেইনকিলার কাজ করে না। পিরিয়ডের ব্যথা কমানোর জন্য সবচেয়ে ভালো পেইনকিলার হলো NSAID ধরনের ওষুধ।

প্রথমে জেনে নিন কী কারণে পিরিয়ডের সময়ে নারীদের পেটে ব্যথা হয়। এন্ডোমেট্রিয়াম হলো সে টিস্যু, যা নারীর জরায়ুর ভেতরের দিকে থাকে। এন্ডোমেট্রিয়াম থেকে প্রোস্টাগ্ল্যান্ডিন নামের কিছু রাসায়নিক তৈরি হয়। প্রতি মাসে পিরিয়ডের সময় হলে এই রাসায়নিকগুলো জরায়ুর পেশিগুলোকে সংকুচিত হতে বাধ্য করে, যার ফলে পিরিয়ডের রক্তপাত হয় এবং এর পাশাপাশি ব্যথা হয়। প্রোস্টাগ্ল্যান্ডিন পেটের পেশিতে এমন ব্যথার পাশাপাশি পেটের অন্যান্য সমস্যা যেমন কোষ্ঠকাঠিন্য, ডায়রিয়া বা পেট ফাঁপার সমস্যাও তৈরি করতে পারে।  

এসব কারণে ডাক্তাররা মনে করেন NSAID বা ননস্টেরয়েডাল অ্যান্টি-ইনফ্লামেটরি ওষুধগুলো পিরিয়ডের ব্যথা দূর করতে বেশি কার্যকরী। এসব ওষুধের মাঝে রয়েছে আইবুপ্রোফেন, ডাইক্লোফেনাক, কিটোরোলাক, অ্যাসপিরিন ইত্যাদি। এসব ওষুধ সাইক্লোঅক্সিজেনেজ নামের একটি এনজাইমকে আটকে দেয়, ফলে প্রোস্টাগ্ল্যান্ডিন কমে।  প্রোস্টাগ্ল্যান্ডিন কমার কারণে ব্যথাও কমে আসে।  সুতরাং এরপর পিরিয়ডের ব্যথায় কোনো ওষুধ খেতে চাইলে নিশ্চিত হয়ে নিন তা NSAID ধরনের কি না।

সূত্র: পপসুগার

প্রিয় লাইফ/আজাদ চৌধুরী

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

প্রিয় টিপস: ১৭ জুন, ২০১৯

প্রিয় ৫ ঘণ্টা, ১৫ মিনিট আগে

loading ...