চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়। ফাইল ছবি

ধর্মঘটে বন্ধ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শাটল ট্রেন, ভোগান্তিতে শিক্ষার্থীরা

শাটল ট্রেন বন্ধ থাকায় সকালে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্দেশে বের হয়েও অধিকাংশ শিক্ষার্থী আটকে আছেন নগরীর বটতলী এবং ষোলশহর স্টেশনে।

মোক্তাদির হোসেন প্রান্তিক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯ এপ্রিল ২০১৯, ১৩:৪০ আপডেট: ০৯ এপ্রিল ২০১৯, ১৩:৪০
প্রকাশিত: ০৯ এপ্রিল ২০১৯, ১৩:৪০ আপডেট: ০৯ এপ্রিল ২০১৯, ১৩:৪০


চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়। ফাইল ছবি

(প্রিয়.কম) সহকর্মীকে অপহরণের অভিযোগ তুলে চট্টগ্রামে লোকো মাস্টার (ট্রেন চালক) সমিতি ধর্মঘট ডাকায় বন্ধ রয়েছে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে চলাচলকারী শাটল ট্রেন।

৯ এপ্রিল, মঙ্গলবার চালকদের ধর্মঘটের কারণে সকাল সাড়ে সাতটা, ৮টা এবং ৮.৪৫ মিনিটের ডেমু ট্রেনও বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্দেশে ছেড়ে যায়নি।

এদিকে শাটল ট্রেন বন্ধ থাকায় সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্দেশে বের হয়েও অধিকাংশ শিক্ষার্থী আটকে আছেন নগরীর বটতলী এবং ষোলশহর স্টেশনে। নগরী থেকে ২২ কিলোমিটার দূরে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৫ হাজার শিক্ষার্থীর যাতায়াতের প্রধান বাহন এই শাটল ট্রেন।

এর আগে রবিবার ও সোমবার শাটল ট্রেনের বগিভিত্তিক ছাত্রলীগের বিএফসি ও বিজয় গ্রুপের ডাকা অবরোধে কার্যত অচল থাকে বিশ্ববিদ্যালয়। সোমবার বিকালে তারা অবরোধ তুলে নেয়।

চালকদের সঙ্গে আলোচনা করে শিগগিরই ট্রেন চালানোর ব্যবস্থা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর লিটন মিত্র।

তিনি বলেন, ‘লোকো মাস্টার সমিতি তাদের এক সহকর্মী অপহৃত হওয়ার প্রতিবাদে আজকের শাটল ট্রেন বন্ধ রেখেছে। খুব শিগগিরই আমরা তাদের সাথে আলোচনা করে ট্রেন চলাচলের ব্যবস্থা করব।’

তবে লোকো মাস্টারদের অভিযোগ, ছাত্রলীগের অবরোধ চলাকালে ৭ এপ্রিল রবিবার দুপুরে একজন লোক মাস্টারকে ‘অপহরণ’ করা হয়। এ ঘটনার প্রতিবাদেই ট্রেন চালানো বন্ধ রেখেছেন তারা।

প্রিয় সংবাদ/আশরাফ