সাংবাদিক কনক সারোয়ার। ছবি: ফেসবুক থেকে সংগৃহীত

সাংবাদিক কনক সারোয়ারের নির্বাসনের তিন বছর

নির্বাসনে না আসলে হয়তো নিখোঁজ হয়ে যেতাম! হয়তো বা পত্রিকায় সংবাদ ছাপা হতো এতদিনেও কোনো খোঁজ মেলেনি।

মোক্তাদির হোসেন প্রান্তিক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১৭ এপ্রিল ২০১৯, ১৪:৪৪ আপডেট: ১৭ এপ্রিল ২০১৯, ১৪:৪৭
প্রকাশিত: ১৭ এপ্রিল ২০১৯, ১৪:৪৪ আপডেট: ১৭ এপ্রিল ২০১৯, ১৪:৪৭


সাংবাদিক কনক সারোয়ার। ছবি: ফেসবুক থেকে সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) সর্বশেষ বেসরকারি চ্যানেল একুশে টেলিভিশন থেকে চাকরিচ্যূত হওয়া বাংলাদেশি সাংবাদিক ড. কনক সারোয়ারের নির্বাসিত জীবনের আজ তিন বছর। বর্তমানে তিনি আমেরিকায় নির্বাসিত জীবন কাটাচ্ছেন। তিনি বেশ কিছুদিন কারাগারে ছিলেন। চাকরিচ্যূত হয়ে কারাগার থেকে জামিনে মুক্ত হয়ে পরবর্তী সময়ে তিনি দেশ ত্যাগ করে প্রথমে মালয়েশিয়া পাড়ি জমান। বর্তমানে আমেরিকায় নির্বাসিত। 

১৭ এপ্রিল তিনি তার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে তার নির্বাসিত জীবনের ওপর একটি স্ট্যাটাস দেন। পাঠকের জন্য ফেসবুকে দেওয়া স্ট্যাটাসটি তুলে ধরা হলো।

১৬ এপ্রিল ১৯ আমেরিকায় নির্বাসনের তিন বছর পূর্ণ হলো। 

নির্বাসনে না আসলে হয়তো নিখোঁজ হয়ে যেতাম! হয়তো বা পত্রিকায় সংবাদ ছাপা হতো এতদিনেও কোনো খোঁজ মেলেনি, পুলিশের বড়কর্তা হাসি হাসি মুখে অনুজ কোনো সাংবাদিকের ক্যামেরায় বলতেন ‘অচিরেই এর একটা সুরাহা হবে’!!!

৯ মাস পর জেল থেকে জামিনে বের হওয়ার পর আমার ঘনিষ্ঠ দুই প্রভাবশালী কমকর্তা সতর্ক করলেন, ‘ফার্স্ট এটেম্পট মিস হয়েছে; দ্বিতীয় এটেম্পট কিন্তু মিস হবে না, আরো অনেক কথা—সতর্কতা।‘

দেশ থেকে বের হওয়াটাও অত সহজ ছিল না, ২০১৬ সালের ১৩ এপ্রিল, বাংলা নববর্ষের আগের দিন উড়াল দিলাম মালয়েশিয়া, সেখান থেকে পরদিন আমেরিকার পথে।

আমার গ্রেপ্তারের বেশ কয়েক মাস আগে থেকে আজকের এই মুহূর্ত পর্যন্ত একটি বিষয় আমার কাছে স্পষ্ট যে, কোনো পরিকল্পনা বা সিদ্ধান্ত নেয়ার ক্ষমতা মানুষের হাতে নেই; রিজিক-সিদ্ধান্ত-ভবিষ্যৎ সম্পূর্ণভাবেই আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের নিয়ন্ত্রণে। বিপদের প্রতিটা মুহূর্তে যে বিস্ময়কর সাহায্য এসেছে বা সমাধান হয়েছে, তার কিছু কিছু এখনো মনে পড়লে শিহরণে শরীরের রোম দাঁড়িয়ে যায়। এবং নিজের অজান্তেই মুখ দিয়ে বেরিয়ে আসে ‘সুবহানআল্লাহ’।

সকল বন্ধু- স্বজন যারা ‘ আওয়ামী জাহেলিয়াতের’ এই সময়ে দেশে-বিদেশে সাহস করে পাশে ছিলেন তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা এবং ভালবাসা।

যারা ভয়ে দূরে ছিলেন, কি জানি কি হয়—তাদের প্রতিও কোনো ক্ষোভ নেই, এটা মানবীয় ত্রুটি, হতেই পারে...

প্রিয় সংবাদ/আজাদ চৌধুরী

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

১ গাভী থেকে ১২৮টি গাভী

প্রিয় ২৩ ঘণ্টা, ৩৩ মিনিট আগে

loading ...