রবিবার ইস্টার সানডের পরের দিন দেশটির তিনটি গির্জা ও চারটি হোটেলে আত্মঘাতী বোমা হামলা হয়। ছবি: সংগৃহীত

শ্রীলঙ্কায় বোমা হামলায় নিহত বেড়ে ৩৫৯, তদন্তে অগ্রগতির দাবি

বুধবার শ্রীলঙ্কান পুলিশের মুখপাত্র রুয়ান গুনাসেকেরা নিহতের সংখ্যা বৃদ্ধির কথা প্রকাশ করলেও বিস্তারিত আর কিছু জানাননি।

প্রিয় ডেস্ক
ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশিত: ২৪ এপ্রিল ২০১৯, ১৫:৪৯ আপডেট: ২৪ এপ্রিল ২০১৯, ১৫:৪৯
প্রকাশিত: ২৪ এপ্রিল ২০১৯, ১৫:৪৯ আপডেট: ২৪ এপ্রিল ২০১৯, ১৫:৪৯


রবিবার ইস্টার সানডের পরের দিন দেশটির তিনটি গির্জা ও চারটি হোটেলে আত্মঘাতী বোমা হামলা হয়। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) শ্রীলঙ্কার কয়েকটি চার্চ ও হোটেলে একযোগে চালানো আত্মঘাতী বোমা হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৩৫৯ জনে দাঁড়িয়েছে। 

২৪ এপ্রিল, বুধবার শ্রীলঙ্কান পুলিশের মুখপাত্র রুয়ান গুনাসেকেরা নিহতের সংখ্যা বৃদ্ধির কথা প্রকাশ করলেও বিস্তারিত আর কিছু জানাননি। খবর বার্তা সংস্থা রয়টার্সের।

২১ এপ্রিল, রবিবার ইস্টার সানডের পরের দিন দেশটির তিনটি গির্জা ও চারটি হোটেলে আত্মঘাতী বোমা হামলা হয়। মঙ্গলবার পর্যন্ত নিহত ৩২১ জন ও আহত প্রায় ৫০০ জন ছিল।

মঙ্গলবার এ হামলার দায় স্বীকার করেছে মধ্যপ্রাচ্যের জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস)। আইএসের বার্তা সংস্থা আমাক সাত জঙ্গির নাম প্রকাশ করে। এরাই আত্মঘাতী হামলাগুলো চালিয়েছে বলে জানিয়েছে আইএস।

শ্রীলঙ্কার প্রতিরক্ষা প্রতিমন্ত্রী রুয়ান বিজয়বর্ধন জানিয়েছেন, হামলায় নিহতদের মধ্যে ৩০ জন বিদেশিও রয়েছেন। দেশ এবং দেশের জনগণকে নিরাপদ রাখতে সরকার প্রয়োজনীয় সব ধরনের সতর্কতা অবলম্বন করছে বলেও জানান রুয়ান বিজয়বর্ধন।

তিনি বলেন, ‘আমাদের বিশ্বাস, দুর্ভাগ্যজনক এই সন্ত্রাসী হামলায় জড়িত সব অপরাধীকে যত দ্রুত সম্ভব হেফাজতে নেওয়া হবে। তাদের শনাক্ত করা হয়েছে।’

পুলিশের মুখপাত্র রুয়ান গানাসেকারা এক বিবৃতিতে বলেন, ‘এ হামলায় জড়িত সন্দেহে ৪০ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।’

প্রেসিডেন্ট মাইথ্রিলা সিরিসেনার ঘোষণা অনুযায়ী গতকাল মঙ্গলবার শ্রীলঙ্কায় শোক পালন করা হয়। এদিন স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ৮টার দিকে তিন মিনিটের নীরবতা পালন করা হয়। এ সময় জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখা হয় এবং সবাই মাথা নত করে রাখেন।

প্রিয় সংবাদ/কামরুল/আজাদ চৌধুরী