মেঘনা নদীর ভাঙন রোধে মানববন্ধনের অংশ নেন লক্ষ্মীপুরের কমলনগরবাসী। ছবি: প্রিয়.কম

মেঘনা নদীতে ১২ মাস ভাঙনের শিকার যারা (ভিডিও)

ভাঙন রোধে প্রতিরক্ষা বাঁধ নির্মাণ, ড্রেজিংয়ের মাধ্যমে স্রোতের চ্যানেল পরিবর্তন, ঝুঁকিপূর্ণ স্থানে ডাম্পিং করতে হবে।

আমিনুল ইসলাম মল্লিক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২৪ এপ্রিল ২০১৯, ১৮:৩২ আপডেট: ২৪ এপ্রিল ২০১৯, ১৮:৩৫
প্রকাশিত: ২৪ এপ্রিল ২০১৯, ১৮:৩২ আপডেট: ২৪ এপ্রিল ২০১৯, ১৮:৩৫


মেঘনা নদীর ভাঙন রোধে মানববন্ধনের অংশ নেন লক্ষ্মীপুরের কমলনগরবাসী। ছবি: প্রিয়.কম

(প্রিয়.কম) মেঘনা নদীতে ১২ মাসই ভাঙনের শিকার হচ্ছেন লক্ষ্মীপুরের কমলনগরের রামগতিবাসী। ভাঙন রোধে পদক্ষেপ নিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়ে মানববন্ধন করেছেন ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাবাসী।

২৪ এপ্রিল, বুধবার সকালে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘কমলনগর-রামগতি বাঁচাও মঞ্চ’ এ কর্মসূচির আয়োজন করে। বিষয়টি প্রিয়.কমকে জানান সংগঠনের আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট আবদুস সাত্তার পালোয়ান।

তিনি বলেন, ‘বছরের ১২ মাসই আমরা মেঘনা নদীর ভাঙনের শিকার। ছোটবেলা থেকেই দেখে আসছি আমাদের এলাকার মানুষ মেঘনা নদীতে বারবার ভাঙনের শিকার হচ্ছেন। কিন্তু ভাঙন রোধে কোনো অগ্রগতি নেই। এ জন্য আমরা একটি মানববন্ধন কর্মসূচির আয়োজন করি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করি। যাতে করে আমাদের মেঘনা নদী থেকে ভাঙন রোধে তিনি একটি কার্যকরী পদক্ষপে নেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘২০ বছর ধরে মেঘনা নদীর অব্যাহত ভাঙনে দুই উপজেলার ৩১টি হাট-বাজার, ৩৫টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ৩০টি আশ্রয় কেন্দ্র, ৪০০ কিলোমিটার সড়ক, ৩৭ কিলোমিটার বাঁধ, ৫০ হাজার একর জমি, ৪৫ হাজার ঘরবাড়ি নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। অব্যাহত ভাঙনে আতঙ্কিত প্রায় সাত লাখ মানুষ। তাই ভাঙন রোধে প্রতিরক্ষা বাঁধ নির্মাণ, ড্রেজিংয়ের মাধ্যমে স্রোতের চ্যানেল পরিবর্তন, ঝুঁকিপূর্ণ স্থানে ডাম্পিং করতে হবে। এমন দাবি জানাচ্ছি সরকারের কাছে।’

প্র্রিয় সংবাদ/আজাদ চৌধুরী