বোমা হামলাকৃত শ্রীলঙ্কার একটি চার্চ। ছবি:সংগৃহীত

হামলাকারীদের একজন শ্রীলঙ্কান কোটিপতির স্ত্রী

হামলার পর বাড়িতে তল্লাশি চালাতে গেলে নিজের পেটে থাকা সন্তানসহ আরও তিন ছেলেকে নিয়ে বোমার বিস্ফোরণ ঘটান ফাতিমা।

প্রিয় ডেস্ক
ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশিত: ২৬ এপ্রিল ২০১৯, ১২:০২ আপডেট: ২৬ এপ্রিল ২০১৯, ১২:০২
প্রকাশিত: ২৬ এপ্রিল ২০১৯, ১২:০২ আপডেট: ২৬ এপ্রিল ২০১৯, ১২:০২


বোমা হামলাকৃত শ্রীলঙ্কার একটি চার্চ। ছবি:সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) শ্রীলঙ্কায় গত রবিবার হামলায় অংশ নেওয়া আত্মঘাতী হামলাকারীদের মধ্যে একজন নারীও রয়েছেন। ফাতিমা ইব্রাহিম নামের ওই নারী শ্রীলঙ্কান কোটিপতি ব্যবসায়ী ইনসাফ আহমেদ ইব্রাহিমের স্ত্রী। ভারতীয় গোয়েন্দা সূত্রের বরাত দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যম ফার্স্টপোস্ট।

ওই সূত্রটি জানিয়েছে, ২১ এপ্রিলের ওই হামলার পর পুলিশ যখন তাদের বাড়িতে তল্লাশি চালায়, তখন নিজের পেটে থাকা সন্তানসহ আরও তিন ছেলেকে নিয়ে বোমার বিস্ফোরণ ঘটান ফাতিমা। ওই বিস্ফোরণে তিনজন পুলিশ কর্মকর্তাও নিহত হন।

ইনসাফ আহমেদ ইব্রাহিম ও তার ভাই ইলহাম আহমেদ ইব্রাহিমের পরিবার দেমাতাগোদায় তিনতলা বিলাসবহুল বাড়িতে থাকতেন। তারা দুই ভাই সিনামন গ্র্যান্ড ও সাংরি-লা হোটেলে বোমার বিস্ফোরণ ঘটান বলেও ফার্স্টপোস্টের ওই প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

এদিকে ওই হামলার পর ইসলামিক স্টেট (আইএস) যে ছবি প্রকাশ করেছে, সেখানে ফাতিমাও রয়েছে বলে ভারতীয় ওই গোয়েন্দা সূত্রটি দাবি করেছে। ওই ছবিতে সাতজনকে এক সারিতে ও পেছনে একজনকে দাঁড়ানো অবস্থায় দেখা যায়। ভারতের গোয়েন্দারা বলছেন, পেছনে যিনি দাঁড়িয়ে আছেন, তিনি ফাতিমা। আর ফাতিমার ঠিক সামনে দাঁড়িয়ে ছিলেন স্বামী ইনসাফ।

ভারতীয় ওই গোয়েন্দা সূত্র জানিয়েছে, ইনসাফের মূল ব্যবসা তামা দিয়ে তৈরি পণ্য। তারা বলছেন, তার এক কারখানায় হামলার বোমাগুলো প্রস্তুত করা হয়েছে।

শ্রীলঙ্কার শীর্ষ ব্যবসায়ীদের অন্যতম ইব্রাহিম পরিবার। ইনসাফ আহমেদ ইব্রাহিমের বাবা মোহাম্মদ ইউসুফ ইব্রাহিম কোটিপতি মসলা ব্যবসায়ী। ইউসুফ ইব্রাহীম শ্রীলঙ্কার বামপন্থী দল জনতা ভিমুখী পেরামুনা পার্টির হয়ে নির্বাচনও করেছিলেন। তিনি শ্রীলঙ্কার বর্তমান শিল্প ও বাণিজ্যমন্ত্রী ঋষথ বাথিউডেনের ঘনিষ্ঠ বন্ধু হিসেবে পরিচিত। তাকে সাবেক প্রেসিডেন্ট রাজাপক্ষের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানেও দেখা গেছে।

২১ এপ্রিল খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের ধর্মীয় উৎসব ইস্টার সানডে পালনকালে শ্রীলঙ্কার তিনটি চার্চ ও তিনটি হোটেলে ভয়াবহ আত্মঘাতী বোমা হামলায় অন্তত ৩৫৯ জন প্রাণ হারিয়েছে ও কয়েকশ লোক আহত হয়েছে।

প্রিয় সংবাদ/প্রান্তিক/রিমন

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...