বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট। ফাইল ছবি

রিট করে সময়ক্ষেপণ, বাদীকে ১ লাখ টাকা জরিমানা

‘উদ্দেশ্যে প্রণোদিতভাবে রিট করে সময়ক্ষেপণ করায়’ আবেদনকারীকে এক লাখ টাকা জরিমানা করেছে হাইকোর্ট।

আমিনুল ইসলাম মল্লিক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬ মে ২০১৯, ২১:০৭ আপডেট: ০৬ মে ২০১৯, ২১:০৮
প্রকাশিত: ০৬ মে ২০১৯, ২১:০৭ আপডেট: ০৬ মে ২০১৯, ২১:০৮


বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট। ফাইল ছবি

(প্রিয়.কম) সীমানা নির্ধারণের বিষয়ে রাজশাহীর পবা উপজেলা পরিষদের নির্বাচনের বিরুদ্ধে করা এক রিটের ওপর জারি করা রুল খারিজ করে দিয়েছে হাইকোর্ট। ওই নির্বাচনের ওপর দেওয়া স্থগিতাদেশও তুলে নিয়েছে আদালত।

৬ মে, সোমবার বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রায় দেন। একই সঙ্গে ‘উদ্দেশ্যে প্রণোদিতভাবে রিট করে সময়ক্ষেপণ করায়’ আবেদনকারীকে ১ লাখ টাকা জরিমানা করেছে হাইকোর্ট।

আদালতে রিটকারীর পক্ষে ছিলেন আইনজীবী জাফর সাদিক। অপরদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন আইনজীবী মাহবুবে আলম ও মাসুদ হাসান চৌধুরী পরাগ।

পরে মাসুদ হাসান চৌধুরী পরাগ সাংবাদিকদের বলেন, ‘২০১৪ সালের চতুর্থ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের পরের বছর উপজেলা চেয়ারম্যানের মৃত্যু হলে উপ-নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হয়। কিন্তু স্থানীয় বাসিন্দা ফজলুল বারীসহ নয়জন উপজেলার পারিলা ইউনিয়নের মুরশইল ও কেচুয়াতৈল গ্রামের সীমানার জটিলতা নিয়ে হাইকোর্টে রিট করলে নির্বাচন স্থগিত হয়ে যায়।’

তিনি আরও বলেন, ‘এর মধ্যে একই সীমানা নিয়ে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন, জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছিল। কিন্তু তারা কোনো প্রকার আইনের আশ্রয় নেয়নি। কেবলমাত্র তারা উপজেলা নির্বাচনে রিট করে স্থগিতাদেশ নিয়ে নির্বাচন আটকে রেখেছেন। চলতি বছরের শুরুতে ওই উপজেলার নির্বাচনের জন্য তফসিল ঘোষণা করলে হাইকোর্টের এক আদেশে নির্বাচন কমিশন তা স্থগিত করেন।’

‘পরে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মনসুর রহমান রিটে পক্ষভূক্ত হয়ে নির্বাচনের ওপর দেওয়া স্থগিতাদেশ তুলে নিতে আবেদন করেন। সোমবার শুনানি শেষে আদালত স্থগিতাদেশ তুলে রুল খারিজ করে দেন। একই সঙ্গে ‘উদ্দেশ্যে প্রণোদিতভাবে রিট করে নির্বাচনে বিলম্বে করায়’ আবেদনকারীকে ১ লাখ টাকা জরিমানা করেছেন আদালত। এখন ওই উপজেলার নির্বাচন হতে কোনো বাধা নেই।’

প্রিয় সংবাদ/কামরুল