প্রতীকী ছবি

ফোন ধরে ‘হ্যালো’ বলি কেন আমরা?

অক্সফোর্ড ডিকশনারির তথ্য অনুযায়ী, বৈদ্যুতিক বাতির আবিষ্কারক টমাস আলভা এডিসনের কারণে ‘হ্যালো’ শব্দটি সর্বজনীনতা পায়।

প্রিয় ডেস্ক
ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশিত: ১৭ মে ২০১৯, ১৭:৪০ আপডেট: ১৭ মে ২০১৯, ১৭:৪০
প্রকাশিত: ১৭ মে ২০১৯, ১৭:৪০ আপডেট: ১৭ মে ২০১৯, ১৭:৪০


প্রতীকী ছবি

(প্রিয়.কম) যখন আপনি কোথাও ফোন করেন বা ফোন ধরেন তখন প্রথম কোন শব্দটি ব্যবহার করেন? অবশ্যই ‘হ্যালো’ শব্দটি। কারো সঙ্গে পরিচিত হওয়ার সময়ও হ্যালো শব্দটি ব্যবহার করে থাকেন। প্রশ্ন বা কৌতূহল আসতেই পারে, এই হ্যালো শব্দটি কি ইংরেজি ভাষায় আগে থেকেই ব্যবহার হয়ে আসছে?

বিভিন্ন নথিপত্র বা পুস্তক ঘেঁটে দেখা যায়, হ্যালো শব্দটির একটি ইতিহাস রয়েছে। অক্সফোর্ড ইংলিশ ডিকশনারি বলছে ১৮২৭ সালে প্রথম ‘হ্যালো’ শব্দটি ব্যবহার করা হয়।

প্রতীকী ছবি

আমন শেয়া নামের এক লেখক তার লেখা ‘দ্য ফার্স্ট টেলিফোন বুক’ বইয়ে উল্লেখ করেছেন ১৮৩০ সালের লোকজন অন্যের কাছে মনোযোগ আকর্ষণ বা বিস্ময় প্রকাশের জন্য এই শব্দটি ব্যবহার করতেন। টেলিফোন আসার পর শব্দটি ‘হাই’ শব্দে পরিণত হয়।

অক্সফোর্ড ডিকশনারির তথ্য অনুযায়ী, বৈদ্যুতিক বাতির আবিষ্কারক টমাস আলভা এডিসনের কারণে ‘হ্যালো’ শব্দটি সর্বজনীনতা পায়।

ফোনে উত্তর দেওয়ার সময় ‘হ্যালো’ শব্দটি ব্যবহার করে উত্তর দেওয়ার আহ্বান জানান তিনি। তার প্রতিদ্বন্দ্বী আলেকজান্ডার গ্রাহাম বেলের ধারণা ছিল ‘হ্যালো’র চেয়ে আরও ভালো শব্দ হচ্ছে ‘আহোই’ (হোই এবং হ্যালো শব্দের অর্থ একই) । জানা যায়, বেল যতদিন বেঁচে ছিলেন, ততদিন তিনি ‘আহোই’ শব্দটি ব্যবহার করেছেন।

প্রথম ফোন বুক

১৮৭৮ সালে নিউ হ্যাভেনের ডিস্ট্রিক্ট টেলিফোন কোম্পানি প্রথম ফোন বুক প্রকাশ করে। এতে ৫০ জন ব্যবহারকারীর নাম ছিল। ছিল ব্যবহারবিধিও। ব্যবহারবিধিতে ‘হুলোয়া’ শব্দটি ব্যবহার করে কথোপকথন শুরু করার কথা বলা হয়। পরবর্তীতে এই শব্দটি হ্যালো শব্দে রূপ পায়। হারিয়ে যায় বেলের আহোই।

এদিকে ব্যবহারবিধিতে শুধু হ্যালো শব্দের ব্যবহার লেখা ছিল তা নয়; কথোপকথন শেষে কী বলতে হবে এটিও ছিল। কথোপকথন শেষে ‘দ্যাট ইজ অল’ শব্দটি ব্যবহারের জন্য বলা হয়।

প্রিয় প্রযুক্তি/আজাদ চৌধুরী

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...